বিশ্বসেরা পাসপোর্ট জাপান ও সিঙ্গাপুরের, বাংলাদেশ ৯৯তম

0

বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী পাসপোর্ট র‌্যাংকিংয়ে এশিয়ার তিন দেশ জায়গা করে নিয়েছে প্রথম দুটি স্থানে। জাপান ও সিঙ্গাপুর রয়েছে যৌথভাবে এক নম্বরে। এ দুটি দেশের নাগরিকরা ১৯০টি দেশে ভিসামুক্ত কিংবা অন-অ্যারাইভাল ভিসা সুবিধা পেয়ে থাকেন। হেনলি পাসপোর্ট ইনডেক্সে এ র‌্যাংকিং প্রকাশ করা হয়েছে।

অন্যদিকে শক্তিশালী পাসপোর্টের তালিকায় দুই নম্বরে রয়েছে দক্ষিণ কোরিয়া। অবশ্য ফিনল্যান্ড ও জার্মানির সঙ্গে জায়গাটি ভাগ করতে হয়েছে এশিয়ার এই দেশটিকে। বিশ্বের ১৮৮টি দেশে যেতে আগে থেকে ভিসা নিতে হয় না এই তিন দেশের নাগরিকদের।

শক্তিশালী পাসপোর্ট র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের অবস্থান ৯৯ নম্বরে। বিশ্বের ২০টি দেশে ভিসামুক্ত ভ্রমণ ও ২০টি দেশে অন-অ্যারাইভাল ভিসা সুবিধা পান বাংলাদেশের পাসপোর্টধারীরা।

ভ্রমণে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী পাসপোর্টগুলোর তালিকা তুলে ধরা হয় হেনলি পাসপোর্ট ইনডেক্সে। পৃথিবীর ১৯৯টি পাসপোর্ট ও ২২৭টি ভ্রমণ গন্তব্য নিয়ে ইন্টারন্যাশনাল এয়ার ট্রান্সপোর্ট অ্যাসোসিয়েশনের (আইএটিএ) বিশেষ তথ্যের ওপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়ে থাকে হেনলি পাসপোর্ট ইনডেক্স।

ভ্রমণে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী পাসপোর্টগুলোর কয়েকটি।
ভ্রমণে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী পাসপোর্টগুলোর কয়েকটি।

২০১৪ সালে হেনলি পাসপোর্ট ইনডেক্সের শীর্ষতালিকায় ছিল যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্য। কিন্তু এ বছর আমেরিকা ও ব্রিটেন পেয়েছে ষষ্ঠ স্থান। এ দুটি দেশের সঙ্গে একই নম্বরে আছে বেলজিয়াম, কানাডা, গ্রিস, আয়ারল্যান্ড, নরওয়ে ও সুইজারল্যান্ড। এসব দেশের পাসপোর্টধারীদের ১৮৪টি দেশে যাওয়ার ক্ষেত্রে আগে থেকে ভিসার ঝামেলা পোহাতে হয় না।

হেনলি ইনডেক্সে তিন নম্বর জায়গাটি দখল করেছে ইউরোপের তিন দেশ ডেনমার্ক, ইতালি ও লুক্সেমবার্গ। ভিসামুক্ত ও অন-অ্যারাইভাল ভিসা মিলিয়ে ১৮৭টি দেশে যেতে পারেন এই তিন দেশের পাসপোর্টধারীরা।

ইউরোপের অন্য তিন দেশ ফ্রান্স, স্পেন ও সুইডেনের নাগরিকদের ১৮৬টি দেশের দূতাবাস থেকে ভিসা নিতে হয় না। তাই এগুলো আছে চার নম্বরে। পাঁচ নম্বরে যৌথভাবে আছে ইউরোপের তিন দেশ অস্ট্রিয়া, নেদারল্যান্ডস ও পর্তুগাল। সাত থেকে দশ নম্বরে রয়েছে যথাক্রমে মাল্টা ও চেক রিপাবলিক (১৮৩ দেশ), নিউজিল্যান্ড (১৮২ দেশ), অস্ট্রেলিয়া, লিথুয়ানিয়া ও স্লোভাকিয়া (১৮১ দেশ), হাঙ্গেরি, আইসল্যান্ড, লাটভিয়া, স্লোভেনিয়া (১৮০ দেশ)।

সংযুক্ত আরব আমিরাত পাঁচ ধাপ এগিয়ে স্থান করে নিয়েছে ১৫ নম্বরে। দক্ষিণ আফ্রিকাসহ আফ্রিকা মহাদেশের বেশ কয়েকটি দেশে ভিসামুক্ত কিংবা ভিসা-অন-অ্যারাইভাল সুবিধা পেতে শুরু করেছেন আমিরাতিরা। সব মিলিয়ে ১৭২টি দেশ এগুলো দিচ্ছে তাদের।

র‌্যাংকিংয়ে সবার নিচে আফগানিস্তান (১০৭)। বিশ্বের সবচেয়ে দুর্বল পাসপোর্ট এই দেশের নাগরিকদের। আফগান নাগরিকেরা মাত্র ২৫টি দেশে ভিসামুক্ত ও ভিসা-অন-অ্যারাইভাল সুবিধা পান। অন্যদিকে বিশ্বের কয়েকটি রাষ্ট্রের নাগরিকরা ৪০টিরও কম দেশে ভিসামুক্ত কিংবা ভিসা-অন-অ্যারাইভাল সুবিধা পান। এ তালিকায় শীর্ষ পাঁচে আফগানিস্তানের পরে আছে যথাক্রমে ইরাক, সিরিয়া, সোমালিয়া-পাকিস্তান ও ইয়েমেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন