আক্রান্ত
২৫৮৮
সুস্থ
২০৫
মৃত্যু
৭২

বিএনপি নেতাদের বাড়িতে অভিযান

K

ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে ঘিরে যৌথ বাহিনীর অভিযান চলছে। রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় বিএনপির সাবেক কাউন্সিলর ও বর্তমান নির্বাচনে প্রার্থীদের বাসা-বাড়িতে এ অভিযান চালানো হচ্ছে। বিএনপির পক্ষ থেকে এমন অভিযোগ পাওয়া গেলেও পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, যৌথ বাহিনীর অভিযান নয়। নাশকতার অভিযোগে মামলার এজাহারভুক্ত আসামি ও সন্দেহভাজনদের গ্রেপ্তারে বাসা-বাড়িতে পুলিশী অভিযান চালানো হচ্ছে। ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারের ডিসি মাসুদুর রহমান বলেন, প্রতি নির্বাচনের আগে পুলিশ অভিযান চালায়। নির্বাচন ঘিরে কোন অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টির চেষ্টা ও নাশকতাকারিদের গ্রেপ্তার করা হয়। আর কয়েকটি বাহিনী মিলে যে অভিযান চালানো হয় তাই হলো যৌথ বাহিনীর অভিযান। এদিকে বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, গতকাল শুক্রবার দুপুরে ঢাকা সিটি কর্পোরেশন (উত্তর) বিএনপির মনোনীত প্রাথী ও ৭ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি দেলোয়ার হোসেন দুলুর বাসায় যৌথ বাহিনী অভিযান চালায়। ওই প্রার্থীকে বাসায় না পেয়ে তার ভাইদের বাসায় অভিযান চালায় এবং ভয়ভীতি প্রদর্শন করে চলে যায়। বিষয়টি প্রার্থীর পরিবারের মাঝে আতংক বিরাজ করছে। মিরপুর থানা বিএনপির পক্ষ থেকে এ ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়েছে।

এছাড়া বৃহস্পতিবার গভীর রাতে কাঠালবাগান এলাকার সাবেক কমিশনার সিরাজুল ইসলামের বাসায় অভিযান চালায় আইন শৃঙ্খলা বাহিনী। ওই অভিযানে পুলিশ-র‌্যাবের পাশাপাশি বিজিবি সদস্যরাও ছিল। ওই বাড়িতে কাউকে না পেলেও কে বা কারা থাকে তাদের বিস্তারিত পরিচয় জানতে চাওয়া হয় ওই অভিযানে।

অপরদিকে বৃহস্পতিবার বিকেলে মহিলা সংরক্ষিত আসনের প্রার্থী নাজমা কবিরের বাসায় অভিযান চালায়। নাজমা কবিরকে না পেয়ে তার স্বামী মো. হুমায়ুন কবিরকে দারুস সালাম থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। এছাড়া যেসব প্রার্থীদের বাসায় যৌথবাহিনীর অভিযান চালানো হয়েছে তারা হলেন, মিপুর থানা বিএনপির সভাপতি সৈয়দ বদরুল আলম বাবুল, ৯ নম্বর ওয়ার্ডের প্রার্থী ও ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি হাজী আব্দুর রহমান, ১০ নম্বর ওয়ার্ড প্রার্থী ও বিএনপির সভাপতি সৈয়দ ওয়াহেদুল আলম লাবু, সাবেক কমিশনার মো. মাসুদ খান, ১১ নম্বর ওয়ার্ড প্রার্থী ও মিরপুর থানা বিএনপির সহ সভাপতি কাউসার আহমেদ, ১২ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি ও প্রার্থী ফজলুল হক ফজলু, ১৩ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির প্রার্থী ও সভাপতি আবুল হোসেন আব্দুল, ৭ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক কমিশনার মুন্সি বজলুল বাসেদ আনজু, একেএম আহমদ হোসেন, ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কমিশনার প্রার্থী ফেরদাউস আহমেদ মিষ্টি ও ডা. আনিছুর রহমান মিল্টনের বাসায় যৌথ বাহিনী অভিযান চালিয়ে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে বলে বিএনপির অভিযোগ। তাছাড়া খিলগাঁও থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ফারুক-উল-ইসলাম জানিয়েছেন তার বাড়িতে পুলিশ কয়েক দফায় অভিযান চালিয়েছে। পল্টন থানা বিএনপির আহবায়ক আনবির আদিল খান বাবু জানিয়েছেন, পুলিশ প্রতিদিনই ঘুরে যাচ্ছে বাড়ি থেকে। এখনো এলাকায় ঢুকতে পারেননি তিনি। পুলিশ বিএনপির অন্য নেতাদের বাসা-বাড়িতেও এভাবে অভিযান চালাচ্ছে বলে তিনি উল্লেখ করেন। এছাড়াও দেশের বিভিন্ন এলাকায় যৌথ অভিযানের খবর পাওয়া গেছে। – আ স

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Manarat

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।

আরও পড়ুন
ksrm