বিএনপি-জামায়াত মানুষের শান্তি নষ্টের অপচেষ্টা করছে, প্রস্তুতি সভায় আ জ ম নাছির

চট্টগ্রামে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগমন ও পলোগ্রাউন্ডের মহাসমাবেশ উপলক্ষে চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবহারী শ্রমিক কর্মচারী লীগের এক প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার (২৮ নভেম্বর) সকালে চট্টগ্রাম নগরীর নিমতলা বিশ্বরোড মোড় বিমান চত্বরে এ প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। তিনি বলেন, ‘চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এলাকার মোট জনসংখ্যার ২২ লাখ ভোটাধিকারী নাগরিক। ন্যূনতম হিসাবে দেখা গেছে, এই ভোটারদের মধ্যে ৪০ শতাংশ আওয়ামী লীগের ভোটার। অর্থাৎ প্রায় ৮ লাখ ৮০ হাজার ভোটার আমাদের। যারা প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে আওয়ামী আদর্শ ধারণ করে। এই ৮ লাখ ৮০ হাজার ভোটারের মধ্যে কমপক্ষে ৫০ শতাংশও যদি পলোগ্রাউন্ডের সমাবেশে আসে তাহলে প্রায় ৪ লাখ ৪০ হাজার লোকের জমায়েত হবে নেত্রীর মহাসমাবেশে। আবার এরসঙ্গে রয়েছে চট্টগ্রাম উত্তর ও দক্ষিণ জেলা। সুতরাং সহজেই অনুমান করা যায়, ৪ ডিসেম্বর পলোগ্রাউন্ডের মহাসমাবেশে কত লোক হতে পারে।’

তিনি আরও বলেন, ‘সাধারণ মানুষ শান্তি চায়, সাধারণ মানুষ দুবেলা দু’মুঠো খেয়ে-পড়ে শান্তিতে থাকতে চায়। বিএনপি-জামায়াত দেশের মানুষের শান্তি বিনষ্টের অপচেষ্টা শুরু করেছে। অদৃশ্য শক্তির ইন্ধনে দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। এই মহাসমাবেশের মধ্যদিয়ে স্বাধীনতাবিরোধী বিএনপি-জামায়াতের বিরুদ্ধে শান্তিপ্রিয় সাধারণ মানুষের গণজাগরণ সৃষ্টি হবে।’

চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবহারী শ্রমিক কর্মচারী লীগের সভাপতি মো. মীর নওশাদের সভাপতিত্বে ও সিনিয়র সহ-সভাপতি হাজী মো. হাছানের সঞ্চালনায় প্রস্তুতি সভায় জাতীয় শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা শফর আলী, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবহারী শ্রমিক কর্মচারী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মোহাম্মদ আলমগীর, কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী,কাউন্সিলর আফরোজা কালাম, শ্রমিক নেতা শফি বাঙ্গালী, বন্দর সিবিএ নেতা আবদুর ছাদেক মান্না, আলমগীর হোসেন, বন্দর ব্যবহারকারী শ্রমিক কর্মচারী লীগের কার্যকরী সভাপতি মো. ইসকান্দর, সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. নুরুল আবছার, মো. আইয়ুব দোভাষ, মো. হুমায়ন কবির, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক উৎপল বিশ্বাস, হাজী মো. নাছের, আমিনুল ইসলাম ভুঁঞা, মো. জসিম, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. সোহেল চৌধুরী বক্তব্য রাখেন।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ksrm