s alam cement
আক্রান্ত
৭৪৫৬২
সুস্থ
৫৩৬৬২
মৃত্যু
৮৭৪

Son of/ বালিকা স্কুলের প্রশংসাপত্রের লাইনে লাইনে পুরুষ!

1

প্রশংসাপত্র নিতে এসে ছাত্রীরা দেখলেন, পত্রটিই ভুলে ভরা। মেয়ে শিক্ষার্থীদের দেওয়া প্রশংসাপত্রের লাইনে লাইনে পুরুষবাচক শব্দের ছড়াছড়ি। এর শুরুটাই হয়েছে ‘Son of…’ (পুত্র) দিয়ে। চট্টগ্রামের কাপাসগোলা সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থী ছাত্রীদের দেওয়া প্রশংসাপত্রে এই কাণ্ড ঘটেছে।

ছাত্রীদের দেওয়া প্রশংসাপত্রগুলোতে দেখা যায়, এর সব জায়গায় ‘He’ (পুরুষবাচক তিনি), ‘Him’ (পুরুষবাচক তাকে), ‘His’ (পুরুষবাচক তার)—এরকম পুরুষবাচক শব্দের ছড়াছড়ি। অথচ কাপাসগোলা সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সব শিক্ষার্থীই ছাত্রী।

কোনো বালক বিদ্যালয়ের প্রশংসাপত্র কাণ্ডজ্ঞানহীনভাবে নকল করতে গিয়ে এই কাণ্ড ঘটেছে বলে অভিভাবকদের অনেকে মনে করছেন। তারা অভিযোগ করেছেন, ভুলে ভরা এই প্রশংসাপত্রের জন্য প্রতি ছাত্রীর কাছে থেকে ১০০ টাকা করে নিয়েছে স্কুল কর্তৃপক্ষ।

মেয়ে শিক্ষার্থীদের দেওয়া প্রশংসাপত্রের লাইনে লাইনে পুরুষবাচক শব্দের ছড়াছড়ি।
মেয়ে শিক্ষার্থীদের দেওয়া প্রশংসাপত্রের লাইনে লাইনে পুরুষবাচক শব্দের ছড়াছড়ি।

অভিযোগ প্রসঙ্গে কাপাসগোলা সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ আলাউদ্দিন চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, ‘প্রশংসাপত্রগুলো আমার আগের প্রধান শিক্ষকের মেয়াদে ছাপানো। আমরা আগামী সেশনের আগেই নতুন ছাপায় যাবো। এবারের শিক্ষার্থীদের জরুরিভিত্তিতে স্কুলের প্রিন্টার থেকে কালার প্রিন্ট দিয়ে দিচ্ছি।’

১০০ টাকা করে নেওয়ার ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘ওটা শ্রেণীশিক্ষকরা নিচ্ছেন। টুকটাক খরচ বহন করে ওই টাকায় উনারা চা-নাস্তা খান। ওটা অফিসিয়াল নয়।’

Din Mohammed Convention Hall

এর আগেও ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া অভ্যন্তরীণ ‘মডেল টেস্ট’ পরীক্ষা নেয়ার অভিযোগ উঠেছিল প্রধান শিক্ষক মো. আলাউদ্দিনের বিরুদ্ধে। অভিযোগে বলা হয়, পরীক্ষার উত্তরপত্র, প্রশ্ন ও আনুষাঙ্গিক ব্যয় নির্বাহের জন্য প্রতি শিক্ষার্থীর কাছ থেকে আদায় করা হয়েছে ২০০ টাকা। পরবর্তীতে আদায়কৃত অর্থ সম্মানী হিসেবে শিক্ষক-কর্মচারীদের মাঝে বণ্টন করা হয়।

প্রধান শিক্ষক মো. আলাউদ্দিনের বিরুদ্ধে অভিযোগ অবশ্য নতুন নয়। তার বিরুদ্ধে এর আগে প্রায় সাড়ে ১২ লাখ টাকা আত্মসাৎ, বিধিবহির্ভূতভাবে টাকা আদায়, ভর্তি বাণিজ্য, পরীক্ষার খাতা বিক্রি, জাতীয় পতাকা উত্তোলন না করাসহ নানা অভিযোগ জমা পড়ে সিটি কর্পোরেশনে।

ManaratResponsive

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

1 মন্তব্য
  1. হোসাইন আহমদ বলেছেন

    যেখানে আপনাদের মহিলা শিক্ষিকা কে শিক্ষিকা বলতে শরম লাগে শিক্ষক বলেন।। সেখানে She এর জায়গায় he হলে কি সমস্যা।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm