বাক প্রতিবন্ধী কিশোরী ধর্ষণ মামলার আসামি গ্রেপ্তার বিলাইছড়িতে

রাঙামাটির বিলাইছড়ি উপজেলার দুর্গম ফারুয়া ইউনিয়নে এক বাক প্রতিবন্ধী কিশোরীকে (১৭) ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্ত আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

শনিবার (২৭ মে) সকালে ফারুয়া সেনা ক্যাম্পের সহযোগিতায় আসামিকে ফারুয়া সেগুন বাগানপাড়া থেকে গ্রেপ্তার করেছে বিলাইছড়ি থানা পুলিশ।

অভিযুক্ত ধর্ষকের নাম মো. হাসান (৫০)। তিনি মৃত মো. কাছিম মিয়া ছেলে এবং ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সেগুন বাগান পাড়ায় বসবাস করেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২৫ মে) সকাল ১০টার দিকে তাংকুইতাং পাড়ার দক্ষিণ পাশে খামার বাড়ির জুম ঘরে সকালে পরিবারের লোকজন ফারুয়া বাজারে গেলে সুযোগ বুঝে অভিযুক্ত হাসান ওই কিশোরীকে হাত বেঁধে  ধর্ষণ করে।

ঘটনার পরদিন ভিকটিম ও তার বাবাসহ উপস্থিত হয়ে বিলাইছড়ি থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেন।

এই বিষয়ে বিলাইছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ আলমগীর জানান, শনিবার সকালে ফারুয়া আর্মি ক্যাম্পের সহযোগিতায় সেগুন বাগান এলাকা থেকে অভিযুক্তকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে।

তবে আসামির কোনো আইডি কার্ড নেই। তিনি প্রায় ১৫ বছর ধরে ওই এলাকায় বসবাস করে আসছেন। আসামিকে আদালতে নিতে রাঙামাটিতে পাঠানো হয়েছে। আর ভিকটিমকে পরীক্ষা করানোর জন্য রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানান ওসি।

এই বিষয়ে ৩ নস্বর ফারুয়া ইউপির চেয়ারম্যান বিদ্যালাল তঞ্চঙ্গ্যা জানান. আমি  চেয়ারম্যান হওয়ার আগে থেকে অভিযুক্ত আসামি ফারুয়ায় পরিবার নিয়ে বসবাস করে আসছে। এলাকায় সবাই থাকে রোহিঙ্গা হিসেবে চেনে।  তিনি সেখানকার স্থানীয় না হওয়ায় ভোটার হতে পারেননি।

ডিজে

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!