বাকলিয়ায় অপহৃত শিশু কক্সবাজারে উদ্ধার, যুবতী গ্রেপ্তার

পাঁচ মাসের শিশু সন্তানকে সাবলেট থাকা নাফিজা আক্তার সুমির কোলে দিয়ে গোসল করতে যানতা তসলিমা আক্তার। গোসল শেষে ফিরে দেখেন তার মেয়ে ও সুমি কেউই নেই। সেইসঙ্গে তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন ও টাকাও নিয়ে যান সুমি। এরপর মেয়ে অপহরণের ঘটনায় থানায় অভিযোগ দেন তসলিমা। অভিযোগ পাওয়ার ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে পুলিশ শিশু সন্তানসহ অপহরণকারী সুমিকে গ্রেপ্তার করে।

সোমবার (৭ নভেম্বর) এই ঘটনা ঘটে চট্টগ্রাম নগরীর বাকলিয়ার কল্পলোক আবাসিক এলাকায়। পরে বুধবার (৯ নভেম্বর) কক্সবাজারের কুতুবদিয়ার বগাডেইল এলাকা থেকে অপহরণকারী নাফিজা আক্তার সুমীকে (২০) গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (১০ নভেম্বর) সন্ধ্যায় বিষয়টি নিশ্চিত করে বাকলিয়া থানা পুলিশ।

থানা সূত্রে জানা গেছে, কক্সবাজার জেলার বাসিন্দা জমির উদ্দীন স্ত্রী-সন্তান নিয়ে কল্পলোক এলাকার একটি ভাড়া বাসায় থাকেন। ওই বাসায় নাফিজা আক্তার সুমি সাবলেট হিসেবে থাকতেন। গত ৭ নভেম্বর সকালে পাঁচ মাস বয়সী শিশু সন্তান আসমাউল হোসনাকে সুমির কোলে দিয়ে গোসল করতে যান তাসলিমা আক্তার। ফিরে দেখেন তার মেয়েকে নিয়ে পালিয়েছে সুমি। পরে দেখেন বাসার মোবাইল ফোন ও নগদ দুই হাজার টাকা নিয়ে পালায় সুমি। এরপরে এই ঘটনায় ৮ নভেম্বর মামলা দায়ের করা হয়।

বাকলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রহিম বলেন, ‘এই ঘটনায় মামলা দায়েরের পর তথ্যপ্রযুক্তি মাধ্যমে নাফিজা আক্তার সুমির অবস্থান শনাক্ত করা হয়। অপহৃত শিশু আসমাউল হোসনাকে উদ্ধার করা হয়। এই সময় সুমিকে গ্রেপ্তার করা হয়।’

তিনি আরও বলেন, ‘সুমির কাছ থেকে চুরি করা মোবাইল ও নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়। বৃহস্পতিবার তাকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।’

Yakub Group

আরএ/ডিজে

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ksrm