বাংলাদেশে এসে ক্ষমা চেয়ে গেল টিকটক অ্যাপের প্রতিনিধিরা

0

অশ্লীল কনটেন্ট থাকার অভিযোগে বাংলাদেশে জনপ্রিয় অ্যাপ টিকটক বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দিয়েছিলেন টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। এতে অবশ্য কাজ হয়েছে।

এ হুমকিতেই চীন থেকে বাংলাদেশে চলে এসেছেন কোম্পানিটির শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তারা। বুধবার (২৪ এপ্রিল) মন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে ক্ষমা চেয়েছেন তারা। এর ফলে এ যাত্রায় দেশে টিকে গেল সাম্প্রতিক সময়ে জনপ্রিয় হয়ে ওঠা অ্যাপটি বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

মোস্তাফা জব্বার এক ফেইসবুক পোস্টে জানান, চীনা প্রতিষ্ঠান টিকটকের প্রতিনিধিরা ক্ষমা চাইতে এসেছিলেন। তাদের অ্যাপে পর্নো ভিডিও থাকার জন্য তারা ক্ষমা চেয়েছেন। প্রতিজ্ঞা করে গেছেন আর কখনও এমন হবে না। বাংলাদেশের জীবনধারা, সংস্কৃতি, জীবনবোধ ও আইন মানার প্রতিশ্রুতি দিয়ে গেছেন তারা।

কিছুদিন আগে দেশে পর্নোসাইট বন্ধের সময় অশ্লীল কনটেন্ট থাকার জন্য টিকটিক অ্যাপও বন্ধের দাবি ওঠে। টেলিযোগাযোগমন্ত্রী অ্যাপটি বন্ধের উদ্যোগও নিচ্ছিলেন।

সম্প্রতি পর্নোগ্রাফিকে উৎসাহিত করা এবং শিশু ব্যবহারকারীদের নিশানা বানানোর অভিযোগে ভারতের মাদ্রাজের আদালত কেন্দ্রীয় সরকারকে টিকটক নিষিদ্ধ করতে বলে। পরে ভারতের তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা গত বুধবার অনুযায়ী আইওএস ও অ্যান্ড্রয়েড প্ল্যাটফর্ম থেকে অ্যাপটি সরিয়ে নেয় অ্যাপল ও গুগল। এতে টিকটকের বেইজিংভিত্তিক ডেভেলপার কোম্পানি বাইটড্যান্সের দিনে ক্ষতি হচ্ছে ৫ লাখ ডলার (চার কোটি ২২ লাখ টাকা)। এ ছাড়া তাদের ২৫০ কর্মীর চাকরি নিয়েও দেখা দেয় অনিশ্চয়তা।

ছোট ছোট ভিডিও ক্লিপ তৈরির অ্যাপটি বিশ্বে এখন অন্যতম জনপ্রিয়। গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্সর টাওয়ারের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে টিকটকের ১০০ কোটির বেশি ব্যবহারকারী রয়েছে। এর মধ্যে ভারতে ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৩০ কোটি। অ্যাপটির ডাউনলোডের পরিমাণ ১০ কোটির বেশি। জনপ্রিয়তা পাওয়ায় এখন বিশ্বের সবচেয়ে দামি স্টার্টআপের তকমাও পেয়েছে তারা।

প্রতিষ্ঠানটির বাজারমূল্য সাড়ে সাত হাজার কোটি ডলার।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন