বাংলাদেশি ভুয়া ফেসবুক একাউন্ট থেকে আমেরিকার টিকা নিয়ে রাশিয়ার ‘মিথ্যা’ প্রচারণা

৬৫ ফেসবুক ও ২৪২ ইন্সটাগ্রাম একাউন্ট বন্ধ

0

আমেরিকায় তৈরি টিকা নিয়ে ‘ভুল তথ্য’ ছড়ানোয় রাশিয়ার একাধিক প্রচারণা নেটওয়ার্ক বন্ধ করেছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক। একইসঙ্গে ফেসবুকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে রাশিয়াপন্থী যুক্তরাজ্যের একটি বিজ্ঞাপনী সংস্থাকেও।

এসব ভুয়া তথ্য প্রচারের জন্য বেশ কিছু ভুয়া ফেসবুক একাউন্টও তৈরি করা হয়েছিল। ফেসবুক বলছে, এসব ভুয়া একাউন্ট তৈরি করা হয়েছে বাংলাদেশ ও পাকিস্তান থেকে।

ফেসবুকের নীতিমালা ভঙ্গের দায়ে ইতিমধ্যে এরকম ৬৫টি ফেসবুক একাউন্ট নিষিদ্ধ করা হয়েছে। একইসঙ্গে ফেসবুক মালিকানাধীন আরেক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইন্সটাগ্রাম থেকেও ২৪২টি একাউন্ট মুছে দেওয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার (১০ আগস্ট) জুলাই মাসের ওপর প্রকাশিত সংঘবদ্ধ অনৈতিক আচরণ (সিআইবি) প্রতিবেদনে এই তথ্য জানায় ফেসবুক।

ভুয়া ফেসবুক একাউন্ট থেকে এভাবে মিম ছড়ানো হচ্ছিল আমেরিকার তৈরি টিকা নিয়ে।
ভুয়া ফেসবুক একাউন্ট থেকে এভাবে মিম ছড়ানো হচ্ছিল আমেরিকার তৈরি টিকা নিয়ে।
Yakub Group

এতে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্র, ভারত এবং লাতিন আমেরিকার কয়েকটি দেশকে টার্গেট করে কোভিড-১৯ করোনা ভাইরাসের টিকা সম্পর্কে মিথ্যা তথ্য প্রচার করে আসছিল রাশিয়ান ওই নেটওয়ার্কগুলো। একইসঙ্গে টিকার বিষয়ে মিথ্যা ক্ষতিকারক দিক তুলে ধরে সাধারণ মানুষকে টিকা নিতে নিরুৎসাহিতও করা হচ্ছিল। এর জন্য সমাজের মানুষদের মধ্যে প্রভাব আছে এমন ‘ইনফ্লুয়েন্সার’দেরও নিয়োগ দিচ্ছিল তারা।

ফেসবুক জানায়, এর পেছনে যুক্তরাজ্যে নিবন্ধিত বিজ্ঞাপনী সংস্থা ফেজ’কে দিয়ে কাজ করানো হচ্ছিল। আর ফেজ মূলত রাশিয়ান প্রতিষ্ঠান ‘এড নাউ’ এরই একটি অংশ। ফেজের প্রচারণায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে নির্মিত টিকার বিষয়ে ভুল ও ভুয়া তথ্য প্রচার করা হচ্ছিল।

এসব ভুয়া তথ্য প্রচারের জন্য কিছু ভুয়া ফেসবুক একাউন্ট ও তৈরি করা হয়েছিল। ফেসবুক বলছে, এসব ভুয়া একাউন্ট বাংলাদেশ ও পাকিস্তান থেকে তৈরি করা হয়েছে।

ফেসবুকের নীতিমালা ভঙ্গের দায়ে ইতিমধ্যে ৬৫টি ফেসবুক একাউন্ট সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। একইসঙ্গে ফেসবুক মালিকানাধীন আরেক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইন্সটাগ্রাম থেকেও ২৪২টি একাউন্ট মুছে দিয়েছে ফেসবুক।

সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm