বসুধার বিরুদ্ধে ক্ষুব্ধ ৫০০ গ্রাহক, প্রতারণার অভিযোগ

0

বসুধা বিল্ডার্সের মালিক জব্বার খাঁনের প্রতারণার শিকার হয়েছেন কোম্পাটির ৫০০ গ্রাহক। ১২ বছরেও দোকান বুঝে না পেয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন এ সব গ্রাহকরা। এতে ক্ষোভ জানিয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিল করেছে বসুধা রেলওয়ে মেন্স সিটি সেন্টার দোকান মালিক সমিতি।

রোববার (২৭ অক্টোবর) বিকাল ৩টায় চট্টগ্রাম মহানগরীল স্টেশন রোড এলাকায় বসুধা বিল্ডার্সের সামনে এ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, গত ২০০৭ সালে চট্টগ্রামের স্টেশন রোডস্থ বসুধা রেলওয়ে মেন্স সিটি সেন্টার থেকে দোকান ক্রয় করেন ৫০০ গ্রাহক। বসুধা বিল্ডার্স ২০০৯ সালের ডিসেম্বরে দোকান বুঝিয়ে দিয়ে মার্কেট উদ্বোধন করবে বলে প্রতি গ্রাহকের কাছ থেকে ২০-৪০ লাখ টাকা নিয়েছে। কিন্তু এখনো পর্যন্ত দোকান বুঝিয়ে না দেওয়ায় হতাশায় জর্জরিত এ সব গ্রাহক। নিজেদের কষ্টার্জিত জীবনে শেষ সম্বলটুকু বসুধা বিল্ডার্সের মালিক জব্বার খাঁনের হাতে তুলে দিয়েছিলেন —ব্যবসা করে পরিবার নিয়ে জীবন যাপন করবে বলে! কিন্তু জব্বার খানের ছলচাতুরি না বুঝে দিশেহারা ও হতাশায় অনেকেই মৃত্যুবরণ করেছেন।

জানা যায়, দোকান মালিক সমিতি গঠন করে ২০১৮ সালে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনকে স্মারকলিপি প্রদান ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে গ্রাহকরা। এরমধ্যে বসুধা বিল্ডার্সের মালিক জব্বার খাঁন সমিতির সাথে কয়েক বার বৈঠক করে চলতি ২০১৯ সালের রমজান মাসে মার্কেট উদ্বোধন হবে বলে চুক্তি করেন।’

প্রতারিত হওয়া গ্রাহকেরা বলছেন,‘ জব্বার সাহেব শুধু আমাদের জীবনের মূল্যবান ১২টি বছরই নষ্ট করেননি দেশেরও ক্ষতি করেছেন। প্রতিশ্রুতি মোতাবেক ২০০৯ সালে মার্কেট উদ্বোধন হলে এখান থেকে দেশ প্রায় ১০ কোটি টাকার রাজস্ব পেতো। আমাদের এতোগুলো পরিবারকে পথে বসতে হতো না। এ অবস্থায় মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের কৃপাদৃষ্টি ছাড়া আমাদের বাঁচার উপায় নেই। তা মেয়রের প্রতি আমাদের আবেদন বসুধা বিল্ডার্সের প্রতারণার হাত থেকে রক্ষা করুন।’

এদিকে, বিক্ষোভ সমাবেশে বসুধা রেলওয়ে মেন্স সিটি সেন্টার দোকান মালিক সমিতির সভাপতি রণজিত সরকার বলেন, ‘জব্বার সাহেবের কাছে আমরা শত কোটি টাকা তুলে দিয়েছি। আমরা ২০০৭ থেকে ২০১৯ পর্যন্ত নির্যাতিত। জব্বার সাহেব অনেক বার আশ্বাস দিয়েছিলেন ২০১৯ সালে মার্কেট চালু করবেন। কিন্তু জব্বার সাহেব আনন্দ পূর্তি করে বেড়াচ্ছেন। জব্বার সাহেব, চট্টগ্রামে আমরা আপনাকে ব্যবসায় করার সুযোগ দিয়েছি। আপনাকে আমরা বারবার ক্ষমা করেছি।’

এ সময় আগামী ১০ নভেম্বরের মধ্যে মার্কেট চালুর কোন লক্ষণ দেখা না গেলে কঠোর কর্মসূচি দেওয়ার ঘোষণা দেন রণজিত সরকার।

সমাবেশে আরো বক্তব্য দেন সেলিম আনসারি, কাশেম মোল্লা, মো. ইলিয়াস, শহীদ প্রমুখ।

এমএ/এসএস

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন