পটিয়ায় ১৫ হাজার ইয়াবা নিয়ে পুলিশের লুকোচুরি

0

চট্টগ্রামের পটিয়ায় মমতাজ হোসেন (৪৮) নামের এক রোহিঙ্গা নাগরিকের কাছ থেকে ১৫ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার নিয়ে লুকোচুরির অভিযোগ উঠেছে পটিয়া থানার উপ-পরিদর্শক মোবারক হোসেনের বিরুদ্ধে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ১৭ আগস্ট বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে পটিয়ার শান্তিরহাট এলাকায় ইউনিয়ন ব্যাংকের সামনে থেকে রোহিঙ্গা মমতাজকে গ্রেপ্তার করা হয়। এ সময় তার সঙ্গে থাকা ব্যাগ থেকে উদ্ধার করা হয় ১৫ হাজার পিস ইয়াবা।

জানা গেছে, গ্রেপ্তার মমতাজ হোসেন কক্সবাজার উখিয়া কুতুপালং রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে পরিবার নিয়ে থাকেন।

ইয়াবাসহ গ্রেপ্তারের খবর পেয়ে পটিয়া থানার উপ-পরিদর্শক মোবারকের কাছে এ বিষয়ে স্থানীয় সংবাদকর্মীরা জানতে গেলে তিনি বলেন, ‘২ হাজার ৩০০পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়েছে।’
কিন্তু সংবাদকর্মীরা বিভিন্ন সোর্সের কাছ থেকে ১৫ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার হয়েছে বলে জানতে পারেন। তখন উপ-পরিদর্শক মোবারক বলেন, ‘১৫ হাজার পিস ইয়াবার কথা যে বলেছে তাকে তার কাছে ধরে নিয়ে আসতে।’

পটিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বোরহান উদ্দিন বিষয়টি কিছুক্ষণ পর জানাবেন বললেও রাত সাড়ে ১১টার দিকে সংবাদকর্মীদের ১৫ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার এবং রোহিঙ্গা নাগরিক গ্রেপ্তারের বিষয়টি স্বীকার করেন।

পরে মোবারক হোসেনের নিকট ইয়াবা নিয়ে লুকোচুরির বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি জানান, ‘আসলে ওই সময়ে উদ্ধার করা ইয়াবাগুলো হিসাব করা হয়নি। তা ছাড়া মূল হোতাকে ধরার জন্য এ কৌশল নেওয়া হয়েছে।’

কিন্তু হিসাব না করে সুনির্দিষ্টভাবে ২ হাজার ৩০০ পিস ইয়াবা কেন বলা হলো এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি হেসে বিষয়টি এড়িয়ে যান।

ইয়াবা নিয়ে পুলিশ ও সাংবাদিকদের মধ্যে এ ধরনের লুকোচুরি এবং সময়ক্ষেপণ প্রসঙ্গে পটিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জসিম উদ্দিন খান বলেন, ‘আমাকে জানানো হয়েছে সন্ধ্যা ৬টায়। তবে কত পিস ইয়াবা পেয়েছে তখন আমাকে জানানো হয়নি। এ বিষয়ে তদন্ত করা হচ্ছে’।

এএইচ

Loading...
আরও পড়ুন