আক্রান্ত
১৫৫৫৭
সুস্থ
৩৩৮১
মৃত্যু
২৪৭

পচা পেঁয়াজ খালে-ডাস্টবিনে, নতুন উঠে গেছে বিমানে

0

চট্টগ্রাম নগরের জামালখান এলাকায় একটি ভাতের হোটেলে দুপুরের খাওয়া-দাওয়া সারেন শাহাদাত। টেবিলের বাটিতে লঙ্কা-পেঁয়াজের টুকরা থাকতো আগে। ভাতের সঙ্গে ইচ্ছেমতো তুলে নিতো সবাই। গত একমাস ধরে সেই বাটি উধাও। পেঁয়াজ চাইলে হোটেল মালিক বলেন, পেঁয়াজ রান্নায়ও দিতে পারছি না। দেশে পেঁয়াজ নিয়ে এমনই চলছে।

দুইমাস ধরে পেঁয়াজ কিনতে গিয়ে হিমশিম খাচ্ছেন চট্টগ্রামসহ সারাদেশের মানুষ। পেঁয়াজের ঝাঁজ এসে পড়েছে সংসারে। হোটেল, ফাস্টফুড সেন্টারেও পেঁয়াজ এখন যেন বহুমূল্য উপাদান। পেঁয়াজের এ মারাত্মক সংকটের মধ্যে চট্টগ্রাম নগরীর ভোগ্যপণ্যের পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জের আড়ত থেকে ডাস্টবিন, খালের পাড়ে-নদীতে ফেলা হচ্ছে বস্তায়-বস্তায় পচা পেঁয়াজ। এদিকে সরকার বলছে, সব দেশে পেঁয়াজের সংকট, এমনকি ভারতেও। সংকট কাটাতে দেশে নতুন পেঁয়াজ নিয়ে আসা হচ্ছে বিমানের কার্গোতে।

গত সেপ্টেম্বরে ভারত আকস্মিকভাবে পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ ঘোষণা করে। মুহূর্তের মধ্যে বাংলাদেশের বাজারে পেঁয়াজের দাম বাড়তে শুরু করে। পাইকারিতে কেজিপ্রতি ৩০ টাকার পেঁয়াজ দ্বিগুণ-তিনগুণ দামে বিক্রি শুরু হয়। আর খুচরা বাজারে সেটা ২৫০ টাকা ছাড়িয়েছে। গত দুইমাসে পেঁয়াজের দাম ২৫ বার বেড়েছে, এমন তথ্যও পাওয়া যায়।

বাজারে সরবরাহে মারাত্মক সংকটের মধ্যে খাতুনগঞ্জের আড়ত থেকে ডাস্টবিন, খালের পাড়-নদীতে ফেলা হচ্ছে বস্তায়-বস্তায় পচা পেঁয়াজ। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের পরিচ্ছন্ন কর্মীরা জানিয়েছেন, গত তিনদিন ধরে খাতুনগঞ্জের বিভিন্ন মার্কেটের গুদাম থেকে ফেলা ১৫ থেকে ১৬ মেট্রিকটন পচা পেঁয়াজ তারা অপসারণ করেছেন। এ খবর পত্র-পত্রিকায় আসলে মানুষের মধ্যে ব্যাপক কৌতূহল তৈরি হয়। পেঁয়াজের এমন সংকটের মধ্যে পচা পেঁয়াজ ইঙ্গিত দিচ্ছে সরকারের সাথে কিছু সিন্ডিকেট চক্রান্ত করছে।

এ নিয়ে কনজ্যুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ক্যাব) প্রতিনিধি এবং খুচরা বিক্রেতারা বলছেন, বাজারে সরবরাহ সংকট তৈরি করে দাম বাড়ানোর জন্য আড়তদারেরা এ পেঁয়াজ মজুত করে রেখেছিল। মজুত করা পেঁয়াজ পচে যাওয়ায় সেগুলো এখন আবর্জনার স্তূপে ফেলা হচ্ছে। অন্যদিকে পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা বলছেন, তাদের গুদামে কোনো পেঁয়াজ মজুত নেই। মিয়ানমার থেকে যেসব পেঁয়াজের চালান আসছে, সেখানে পচা পেঁয়াজও আছে। সেগুলোই ফেলে দেয়া হচ্ছে।

শনিবার (১৬ নভেম্বর) দুপুরে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের জাতীয় সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এখন পেঁয়াজ একটা সমস্যা। প্রায় সব দেশেই পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। পাশের দেশ ভারতেও পেঁয়াজের দাম বেশি। সেখানে একশ’ রূপিতে এখন তারা পার কিলো পেঁয়াজ কিনতে পারছে। আর আমরা যেখান থেকে কিনছি, আমাদেরও বেশি দামে পেঁয়াজ কিনতে হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, কিন্তু আমাদের দেশে কেন এবং কী কারণে অস্বাভাবিকভাবে লাফিয়ে লাফিয়ে পেঁয়াজের দাম বাড়ছে- তা জানি না। যে কারণে এখন আমরা বিমানের কার্গোতে পেঁয়াজ আমদানি করে নিয়ে আসছি। আগামীকাল-পরশুর মধ্যেই এই বিমানে পেঁয়াজ এসে পৌঁছবে।

আমরা দেখতে চাই, এ ধরনের চক্রান্তের সঙ্গে কেউ জড়িত আছে কি না। আমরা যতই এগিয়ে যাচ্ছি, মানুষকে ততই বিভ্রান্ত করা হচ্ছে। এর পেছনে মূল কারণটা কি সেটা খুঁজে বের করতে হবে।

সর্বশেষ পেঁয়াজের বাজারে অস্থিরতার মধ্যে শনিবার চট্টগ্রামে ১৯৮ টন পেঁয়াজ এসেছে। এরমধ্যে চীন ও মিশর থেকে আনা ১১৪ টন পেঁয়াজ বন্দরে খালাস হয়েছে এবং মিয়ানমার থেকে আসা ৮৪ টন পেঁয়াজ বন্দর নগরীর পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জের বিভিন্ন আড়তে এসেছে।

এর আগে শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) মিয়ানমার থেকে ১৬৮ টন পেঁয়াজ খাতুনগঞ্জে এসেছে। শনিবার খাতুনগঞ্জের পাইকারি বাজারে প্রতিকেজি মিয়ানমারের ভালো পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছিল ২২০ টাকায়। কিছুটা নিম্নমানের পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২০০ টাকায়। মিয়ানমার থেকে নৌকায় করে পেঁয়াজ আসছে। যেসব পেঁয়াজ নৌকার তলায় থাকে সেগুলো নষ্ট হয়ে যায়। গুদামে আসার পর সেগুলো ফেলে দিতে হচ্ছে। যেসব পচা পেঁয়াজ ফেলে দেওয়া হয়েছে, সেগুলো মিয়ানমারের পেঁয়াজ।

এইচটি/সিআর

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ManaratResponsive

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন
ksrm