আক্রান্ত
১১৭৬৪
সুস্থ
১৪১৪
মৃত্যু
২১৬

নিলামের পণ্য দেখতে বন্দরে মানুষের ভিড়, দিনভর চলবে প্রদর্শনী

আপেল গাড়ি মাছ মাংস গার্মেন্টসপণ্য সবই আছে

0
high flow nasal cannula – mobile

চট্টগ্রাম কাস্টমসের ৩৬১ কনটেইনার নিলামপণ্যের প্রদর্শনী চলছে বন্দরের ইয়ার্ডে। নিলামের অংশগ্রহণকারী বিডাররা প্রতিদিন সকাল থেকেই পণ্য দেখতে ভিড় করছেন। গত বুধবার শুরু হওয়া এই প্রদর্শনী চলবে শুক্রবার (২৬ জুন) দিনভর। এ যাবতকালের সবচেয়ে বড় নিলামটি অনুষ্ঠিত হবে ৩০ জুন। এতে ১৭৪ লটে ৩৬১টি কনটেইনার পণ্যের নিলাম হবে।

নিলামের জন্য ইতিমধ্যে দরপত্রও আহবান করা হয়েছে। আগামী ২৯ জুন পর্যন্ত ফরম সংগ্রহ করা যাবে। ৩০ দুপুর পর্যন্ত ফরম জমা দেওয়া যাবে। ওইদিন বিকাল তিনটায় টেন্ডার বক্স খোলা হবে ঢাকাসহ একযোগে। উপযুক্ত দরপত্র প্রদানের মাধ্যমে এসব পণ্য ছাড় দেওয়া হবে।

এবারের নিলামে সবচেয়ে বেশি রয়েছে গার্মেন্টসপণ্য— যা মোট ৪০ কনটেইনার। এছাড়া ফ্রেশ আপেল রয়েছে ১২ লটে ৪০ ফুটের ২৪টি কনটেইনারে— যার ওজন প্রায় ৬ লাখ ১২ হাজার কেজি বা ৬১২ টন। মহিষের হিমায়িত মাংস রয়েছে ৬ লটে ১৭৪ টন। ৯ টন ওজনের মাছ রয়েছে ২০ ফুটের এক কনটেইনারে। ৪০ ফুটের ২৭ কনটেইনারে রয়েছে অ্যানিমেল ফিড ও মুরগির খাবার— যার ওজন ৭২৯ টন। এছাড়া ১৫০ টন পেঁয়াজ রয়েছে ৬ লটে।

অন্যদিকে উল্লেখযোগ্য পরিমাণ সোডিয়াম সালফেট ও ক্যালসিয়াম কার্বনেট রয়েছে প্রায় ৫৪ কনটেইনার। এর মধ্যে ৫৬ নং সিরিয়ালে ওবিপিসি ২৩-১৮ লটে ২০ ফুটের ২০ কনটেইনার রয়েছে সোডিয়াম সালফেট— যার ওজন ৫৪০ টন।
১১৩ ও ১২০ সিরিয়ালের দুই লটে ১৯ কনটেইনার রয়েছে ক্যালসিয়াম কার্বনেট।

এছাড়া দুই লটে আর্ট পেপার রয়েছে ৮ কনটেইনার। ওবিপিসি-২ ৭৩ নং সিরিয়াল লটে ক্যাপিটাল মেশিনারিজ রয়েছে ২৮ কনটেইনারে প্রায় ৬৮৯ টন।

নিলামে তোলা হবে সাধারণ গাড়ি থেকে বিলাসবহুল চারটি গাড়িও। গার্মেন্টস এক্সেসরিজ, বিভিন্ন ধরনের কাপড়, কেমিক্যাল, ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী, পেপার ও পেপারসামগ্রী, হার্ডওয়্যার, টেক্সটাইল মেশিনারিজ, সিরামিক আইটেমসহ নানান ধরনের পণ্য রয়েছে আরো শতাধিক কনটেইনার।

বিভিন্ন সময় আটক করা ও আমদানি করে কাস্টমস থেকে দীর্ঘদিন ধরে ছাড়িয়ে না নেওয়া পণ্যগুলোই নিলামে তোলা হয়। করোনাভাইরাসের কারণে বেশ অনেকদিন বন্ধ থাকার পর চট্টগ্রাম কাস্টমসের সবচেয়ে বড় নিলামটি এবার হতে যাচ্ছে ৩০ জুন। এতে মোট ৩৬১টি কনটেইনার নিলামযোগ্য পণ্যের নিলাম হবে। ১৭৪টি লটে ভাগ হবে এসব কনটেইনার। শুরুতে ১৬৪টি লটে ২০০ কনটেইনার নিলামে তোলার কথা থাকলেও পরবর্তীতে আরও ১০টি লট বাড়ানো হয়েছে। এতে কনটেইনার সংখ্যাও বেড়ে গেছে।

কাস্টমসের নিলাম শাখা সূত্র এ তথ্য চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে নিশ্চিত করেছেন।

চট্টগ্রাম কাস্টমসের নিলাম আয়োজনকারী কেএম করপোরেশনের স্বত্ত্বাধিকারী মোহাম্মদ মুর্শেদুল আলম জানান, ‘নিলামের প্রত্যেকটি লটের প্রদর্শনী চলছে বন্দরে। যে কেউ সব পণ্য দেখে শুনে কিনতে পারবেন। গত বুধবার শুরু হওয়া এই প্রদর্শনী চলবে শুক্রবার সারাদিনও।’

কাস্টমস নিলাম শাখার ডেপুটি কমিশনার ফরিদ আল মামুন চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, ‘নিলামে অংশগ্রহণের জন্য চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউজের রাজস্ব কর্মকর্তা (প্রশাসন), জেলা প্রশাসকের দপ্তর এবং যুগ্ম কমিশনার (সদর), শুল্ক আবগারি ও ভ্যাট কমিশনারেট (ঢাকা দক্ষিণ) এর কার্যালয়ে নির্ধারিত টেন্ডার বক্স থাকবে। চট্টগ্রাম কাস্টমস হাউজের নিলাম শাখা এবং ঢাকা ভ্যাট কমিশনারেট কার্যালয়ে একযোগে টেন্ডার বক্স খোলা হবে। করোনাভাইরাসের কারণে গেল দুই মাস নিলাম হয়নি। তাই এবার পণ্য ও কনটেইনারের সংখ্যাও বেশি।’

এএস/সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ManaratResponsive

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন
ksrm