আক্রান্ত
২১০৯২
সুস্থ
১৬৪৭৩
মৃত্যু
৩০২

নাসার চ্যালেঞ্জে চট্টগ্রামের চ্যাম্পিয়ন ওরিয়ন সিক্স, রানারআপ ফোর ফ্রন্টিয়ার্স

0

‘নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০২০’ প্রতিযোগিতায় চট্টগ্রাম বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ওরিয়ন সিক্স এবং রানারআপ হয়েছে টিম ফোর ফ্রন্টিয়ার্স। প্রতিযোগিতার সমাপনী অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম ছাড়াও দেশের আরও ৮ শহরের বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা আন্তর্জাতিকভাবে এ বছর বিশ্বের ২৫০টি শহরে এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করছে। এর মধ্যে বেসিস চট্টগ্রামসহ বাংলাদেশের নয়টি শহরে ২ থেকে ৪ অক্টোবর এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। এবার প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের ৯টি শহর থেকে সাড়ে তিনশ’র বেশি প্রকল্প জমা পড়ে। ২-৪ অক্টোবর ভার্চুয়ালি নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০২০ অনুষ্ঠিত হয়। ভার্চুয়ালি ৪৮ ঘণ্টা টানা হ্যাকাথনের পর যাচাই পর্যবেক্ষণ শেষে ৬০টি প্রকল্প থেকে শীর্ষ ১৭টি প্রকল্প নির্বাচিত হয়েছে, যা পরবর্তীতে নাসায় পাঠানো হবে। এতে বিজয়ী দলগুলো এ বছরই নাসার উদ্যোগে প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে বাংলাদেশকে প্রতিনিধিত্ব করবে।

রোববার (৪ অক্টোবর) রাতে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) আয়োজিত সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

অনুষ্ঠানে বেসিস সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির ‘নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০২০’ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী দেশের ৯ জেলার বিজয়ী চ্যাম্পিয়ন ও রানার্স আপ দলের নাম ঘোষণা করেন। এর মধ্যে চট্টগ্রাম বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ওরিয়ন সিক্স ও রানারআপ টিম ফোর ফ্রন্টিয়ার্স, বরিশাল বিভাগের চ্যাম্পিয়ন ভ্যাকপিকার ও রানার আপ ওজোন, কুমিল্লা জেলায় চ্যাম্পিয়ন প্রাইম স্পেসএক্স ও রানার আপ টিম ফ্লাশিং রেড, ঢাকা বিভাগে চ্যাম্পিয়ন বুয়েট জেনিথ ও রানারআপ এস২১ এআরএসবি/এইচএএম এসওএস সিওএম, খুলনা বিভাগে চ্যাম্পিয়ন ফ্লাই হাই ও রানার আপ মহাকাশ, ময়মনসিংহ জেলায় চ্যাম্পিয়ন লিজেন্ড অফ লেগাসি ও রানার আপ ট্রোজানস, রাজশাহী বিভাগে টিম ইনকগনিশন ও রানার আপ টিম নোব্বো, রংপুর জেলায় টিম শকওয়েভ ও রানার আপ ও রানার আপ ফ্লিট্যাক্স এবং সিলেট বিভাগের চ্যাম্পিয়ন সিলিকন লিলি।

কোডার, প্রযুক্তিবিদ, বিজ্ঞানী, নকশাবিদ, শিল্পী, শিক্ষাবিদ, উদ্যোক্তাসহ সবার স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ নিশ্চিত করার মাধ্যমে মহাকাশ সংক্রান্ত পৃথিবীর বিভিন্ন বৈশ্বিক সমস্যা, যা মহামারীর সঙ্গে সম্পর্কিত, এমন উদ্ভাবনী সমাধান খুঁজে বের করাই এই প্রতিযোগিতার মূল লক্ষ্য।

এবারের ‘নাসা স্পেস অ্যাপস চ্যালেঞ্জ ২০২০’ প্রতিযোগিতা আয়োজনের পার্টনার আইসিটি ডিভিশন, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি), এলআইসটি প্রকল্প এবং ক্লাউড ক্যাম্প।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম, বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হোসনে আরা বেগম, ডিজিটাল সিকিউরিটি ‘এজেন্সি’র (ডিএসএ) মহাপরিচালক ও এলআইসিটি প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. রেজাউল করিম।

অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, দেশে উদ্ভাবনী সংস্কৃতি গড়ে তোলার জন্য সরকার উদ্ভাবন ও স্টার্টআপকে উৎসাহিত করছে। ইতোমধ্যে ১৩০টি স্টার্টআপকে অর্থায়ন করা হয়েছে। আরও স্টার্টআপকে অর্থায়ন করার জন্য স্টার্টআপ কোম্পানি গঠন করা হয়েছে। আইসিটি বিভাগ বুয়েটে একটি রোবোটিক ল্যাব প্রতিষ্ঠা করে দিয়েছে, যেখানে শিক্ষার্থীরা ফ্রন্টিয়ার প্রযুক্তিতে গবেষণা করার সুযোগ পাচ্ছে।

সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ManaratResponsive

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন
ksrm