s alam cement
আক্রান্ত
১০২৩১৪
সুস্থ
৮৬৮৫৬
মৃত্যু
১৩২৮

নতুন রূপে আরও শক্তিশালী হয়ে ফিরেছে করোনা, তাণ্ডবে দিশেহারা বিশ্ব

একদিনে ১২ হাজারের বেশি প্রাণহানি—১২ কোটি ছুঁই ছুঁই শনাক্ত

0

এক বছরেরও বেশি সময় ধরে বিশ্বজুড়ে তাণ্ডব চালিয়ে যাচ্ছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। মাঝে এর প্রকোপ কিছুটা কমলেও নতুন রূপ নিয়ে আরও শক্তিশালী হয়ে ফিরে এসেছে এই ভাইরাস। আবারও তাণ্ডব চালাচ্ছে বিশ্বব্যাপী। এতে ফের নাকাল হয়ে পড়েছে বিশ্ববাসী।

গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এই ভাইরাসের ছোবলে প্রাণ হারিয়েছেন আরও ১২ হাজারের বেশি মানুষ। এই সময়ে নতুন সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে সাড়ে ৬ লাখ।

এদিন রেকর্ড ৪ হাজারের মতো মৃত্যু দেখল ব্রাজিল। ২৪ ঘণ্টায় দেশটির প্রায় ৯০ হাজার মানুষের দেহে মিলেছে করোনাভাইরাস। দিনের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১১শ’র বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। মার্কিন মুলুকে একদিনেই ৬৮ হাজারের ওপর মানুষের দেহে শনাক্ত হল সংক্রমণ।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় মেক্সিকোয় ৮ শতাধিক, পোল্যান্ডে সাড়ে ৬শ’র বেশি প্রাণহানি হয়েছে করোনায়। দিনে ৪ থেকে সাড়ে ৪শ’ মানুষ মৃত্যুবরণ করেছে রাশিয়া-ইতালি-ইউক্রেনে।

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। সারাবিশ্বে এখন পর্যন্ত এই ভাইরাসে শনাক্ত রোগী বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১২ কোটি ৯৪ লাখ ৫৪ হাজার ৪৪০ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ২৮ লাখ ২৭ হাজার ৪২৬ জন। এখন পর্যন্ত এ মহামারি থেকে সুস্থ হয়েছেন ১০ কোটি ৪৪ লাখ ৭৯৪ জন।

বৃহস্পতিবার (১ এপ্রিল) সকাল সাড়ে ৮টায় আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৫ লাখ ৬৫ হাজার ২৫৬ জন মারা গেছেন। এছাড়া করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩ কোটি ১১ লাখ ৬৬ হাজার ৩৪৪ জনের। আর সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ৩৬ লাখ ৭৩ হাজার ৪৬২ জন।

যুক্তরাষ্ট্রের পর করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ হচ্ছে ব্রাজিল। আক্রান্ত এবং মৃত্যু বিবেচনায় দেশটির অবস্থান দ্বিতীয়। লাতিন আমেরিকার এই দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১ কোটি ২৭ লাখ ৫৩ হাজার ২৫৮ জন। তাদের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ২১ হাজার ৮৮৬ জনের। আর সুস্থ হয়েছেন ১ কোটি ১১ লাখ ৬৯ হাজার ৯৩৭ জন।

তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে ভারত। এশিয়ার মধ্যে ভারতই হচ্ছে করোনায় সবচেয়ে বিপর্যস্ত দেশ। ভারতে এখন পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১ কোটি ২২ লাখ ২০ হাজার ৬৬৯ জন। মারা গেছেন ১ লাখ ৬২ হাজার ৯৬০ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ১ কোটি ১৪ লাখ ৭২ হাজার ৪৯৪ জন।

শনাক্তের তালিকায় রাশিয়াকে ছাড়িয়ে চারে উঠে এসেছে ফ্রান্স। দেশটিতে এখন পর্যন্ত শনাক্ত হয়েছেন ৪৬ লাখ ৪৪ হাজার ৪২৩ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ৯৫ হাজার ৬৪০ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ২ লাখ ৯৪ হাজার ৬৩৮ জন।

পঞ্চম স্থানে থাকা রাশিয়ায় এখন পর্যন্ত ৯৮ হাজার ৮৫০ জনের মৃত্যু হয়েছে। শনাক্ত ৪৫ লাখ ৪৫ হাজার ৯৫ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৪১ লাখ ৬৬ হাজার ১৭২ জন।

এরপর শনাক্তের দিক থেকে তালিকায় রয়েছে যথাক্রমে যুক্তরাজ্য, ইতালি, তুরস্ক স্পেন ও জার্মানি। আর তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ৩৪তম।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। দেশটিতে করোনায় প্রথম রোগীর মৃত্যু হয় ২০২০ সালের ৯ জানুয়ারি। ওই বছরের ১৩ জানুয়ারি চীনের বাইরে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় থাইল্যান্ডে। পরে ধীরে ধীরে বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ে।

এমএহক

ManaratResponsive

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm