s alam cement
আক্রান্ত
১০২৩১৪
সুস্থ
৮৬৮৫৬
মৃত্যু
১৩২৮

ধারের টাকার বদলে দরিদ্র গৃহবধূ ১০ মাস ধরে ধর্ষণের শিকার, এখন কলঙ্ক রটাচ্ছে ধর্ষক

হাসপাতাল পালানো মা নবজাতককে দত্তকই দিয়ে দিলেন

0

ধারের টাকা ফেরত দিতে না পারায় দরিদ্র গৃহবধূটি ১০ মাস ধরে ধর্ষণের শিকার হয় এক ব্যবসায়ীর। এর ফলে জন্ম নেওয়া নবজাতককে প্রসবের পরই ওই গৃহবধূর হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যাওয়ার ঘটনা প্রকাশ হওয়ার পর বেরিয়ে এসেছে চাঞ্চল্যকর তথ্য।

রোববার (১ আগস্ট) রাত ১০টায় নবজাতক ফেলে মায়ের পালানোর এই ঘটনা ঘটে চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। আবার সেই মাকে খুঁজে এনে সোমবার (২ আগস্ট) রাত ৯টায় তার হাতেই তুলে দেওয়া হয় নবজাতককে। তার আগে মাসহ পরিবারের অন্যদের কাছ থেকে নেওয়া হয় অঙ্গীকারনামা।

এদিকে এই ঘটনার পর বেরিয়ে এসেছে চাঞ্চল্যকর এক কাহিনী। জানা গেছে, ওই শিশুর মা ধর্ষিতা গৃহবধূ কলঙ্কের দায় এড়াতে এবং ধর্ষকের স্বজনদের চাপের মুখে নবজাতককে মঙ্গলবার (৩ আগস্ট) ভোরে নবজাতক কন্যান্তানটিকে দত্তক দিয়ে দিয়েছে। এ নিয়ে এলাকায় তোলপাড় চলছে।

এদিকে ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যবসায়ী খোকন বড়ুয়া প্রকাশ্যে ঘুরছেন এবং ধর্ষিতা সম্পর্কে নানা কলঙ্ক রটিয়ে ধর্ষিতার সামাজিক জীবনকে অসহায় করে তুলছেন।

সরেজমিন ঘুরে বাঁশখালী পৌরসভার উত্তর জলদী বড়ুয়া পাড়ার স্থানীয়দের মাধ্যমে জানা গেছে, ধর্ষিতা গৃহবধূর দরিদ্র স্বামী ৮ বছর আগে মালয়েশিয়া গেছেন। বিদেশে গেলেও তেমন টাকা পয়সা পাঠাতে পারেন না। বিভিন্ন এনজিও থেকে ধারদেনা নিয়ে এক ছেলে ও এক মেয়ের সংসার চালান প্রবাসীর এই দরিদ্র গৃহবধূ। বেড়ার কুঁড়েঘরে তাদের বসবাস।

ধর্ষিতা গৃহবধূ বলেন, প্রায় এক বছর আগে স্থানীয় ধনাঢ্য মুদির দোকান ব্যবসায়ী খোকন বড়ুয়ার কাছ থেকে ৩৬ হাজার টাকা ধার নিই। ওই টাকা ধার নেওয়ার পর থেকে আমাকে খোকন বড়ুয়া নানা প্রলোভন ও চাপের মুখে দোকানে এবং আমার ঘরে এসে ১০ মাস ধরে ধর্ষণ করে আসছে। ওই কথা কাউকে বললে বড় ধরনের ক্ষতি করবে বলে ভয় দেখায়। এর মধ্যে গর্ভবর্তী হবার ঘটনা জানালেও সন্তান নষ্ট করে ফেলার চাপ দেয় খোকন বড়ুয়া।

তিনি বলেন, গত রোববার (১ আগস্ট) বাঁশখালী হাসপাতালে রাত ৯টায় সন্তান প্রসব করলে হাসপাতালের এক আত্মীয় নার্সের কথামত সন্তানটি হাসপাতালে রেখে বাড়ি চলে আসি। তবে ওইদিন আমার আত্মীয় ওই নার্স হাসপাতালে ছিলেন না। পরে পুলিশ আমাকে হাসপাতালে নিয়ে সন্তানটি গছিয়ে দেয়। আমি লোকলজ্জার ভয়ে তাকে দত্তক দিয়ে দিই।

বাঁশখালী পৌরসভার স্থানীয় কাউন্সিলর তপন বড়ুয়া বলেন, ‘প্রবাসী গৃহবধূর সন্তান প্রসবের পেছনে জড়িত ব্যক্তিটি চিহ্নিত হয়েছে। এটি কলঙ্কিত ঘটনা হওয়ায় বাঁশখালী উপজেলা প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা সমরঞ্জন বড়ুয়ার সহযোগিতায় লোহাগাড়া উপজেলার পুটিবিলা গ্রামের এক ইতালি প্রবাসীর পরিবারে নবজাতকটিকে দত্তক হিসেবে দেওয়া হয়েছে।’

বাঁশখালী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. মাসুদ বলেন, ‘৮ বছর ধরে বিদেশে থাকা প্রবাসী স্ত্রীর সন্তান প্রসবের ঘটনাটি কলঙ্কিত ঘটনা। তাই সন্তান রেখে দরিদ্র গৃহবধূ হাসপাতাল থেকে পালিয়েছেন। পরে গৃহবধূকে সন্তানটি গছিয়ে দেওয়া হয়েছে। গৃহবধূ লিখিত অভিযোগ না করায় আর কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি।’

এদিকে গৃহবধূকে ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্ত ব্যবসায়ী খোকন বড়ুয়া বলেন, ‘আমার সাথে ওই গৃহবধূর কোনো যোগাযোগ ছিল না। ওই গৃহবধূর সাথে অনেক পুরুষের মেলামেশা আছে। নিজের চরিত্রহীনতা ঢাকতে আমার নাম বলছে।’

ManaratResponsive

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm