দিনভর আলোচনায় মনোয়ারা বেগম মনি

0

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন (চসিক) মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের প্রশংসা করে দল থেকে বহিস্কার হয়ে চট্টগ্রামের রাজনৈতিক অঙ্গনে দিনভর আলোচনার কেন্দ্রে মনোয়োরা বেগম মনি। শুক্রবার (৪ অক্টোবর) লালখানবাজার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের এক অনুষ্ঠানে তিনি মেয়রের প্রশংসা করে বক্তব্য দেন। শনিবার রাতে দল থেকে তাকে বহিস্কার করা হয়।

তার বহিস্কারাদেশ নিয়ে যেমন সমালোচনা আছে তেমনি তার নিজের দলেও আছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া। এক পক্ষ বলছেন দল যথার্থ পদক্ষেপ নিয়েছেন, আরেকপক্ষ প্রকাশ্যে মুখ না খুললেও মনোয়ারা বেগম মনির ত্রিশ বছরের রাজনৈতিক ক্যারিয়ার বিবেচনায় বহিস্কার করাটা উচিত হয়নি বলে ভাবছেন। সময়ের ব্যবধানে এই বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহার হতে পারে বলেও আশা করছেন তারা। এমন পরিস্থিতির জন্য মনির প্রতি নগর বিএনপির উপেক্ষাকেও দুষছেন বিএনপি একাংশ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নগর বিএনপির এক শীর্ষ নেতা চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, আন্দোলন সংগ্রামে মনোয়ারা বেগম মনি সব সময় সরব ছিলেন। ত্রিশটি বছর তিনি দলের জন্য কাজ করেছেন। বক্তব্যটি যেমন তার কাছ থেকে অপ্রত্যাশিত তেমনি হুটকরে তাকে দলের নগর সভানেত্রীর পদের পাশাপাশি প্রাথমিক সদস্য পদ বাতিলও অপ্রত্যাশিত। মনিতো আর সুসময়ের বন্ধু নয়, ত্যাগ তিতিক্ষায় উত্তীর্ণ রাজনৈতিক কর্মী। এই নেতা মনোয়ারা বেগম মনির বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহার চান।
তিনি আরো জানান, মনোয়ারা বেগম মনি লালখানবাজার আওয়ামী লীগের বস্ত্র বিতরণে যেদিন মেয়রের প্রশংসা করেছেন একই দিন নগর বিএনপির দলীয় কার্যালয় মাঠে বিএনপি নেতৃবৃন্দও সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মাঝে বস্ত্র বিতরণ করেছেন। তারা মনোয়ারা বেগম মনিকে অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানাননি। মনি দলের একটি অঙ্গ সংগঠনের নগর শাখার শীর্ষ নেত্রী। তাকে উপেক্ষা করেই তার নির্বাচনী এলাকা জামালখানে বস্ত্র বিতরণ হয়েছে। একজন জনপ্রতিনিধিকে এভাবে উপেক্ষা করা বিএনপির জন্য সুফল বয়ে আনবে না।

তবে, মহিলা দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সভানেত্রী আফরোজা আব্বাস রোববার সন্ধ্যায় চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, আপাতত মনোয়ারা বেগম মনিকে বহিস্কারের যে সিদ্ধান্ত দেওয়া হয়েছে তা বলবত থাকবে। ভবিষ্যতের কথা ভবিষ্যতে বলা যাবে।

এ প্রসঙ্গে নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও চসিক মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, ‘মনিকে যদি দল থেকে বহিস্কার করা হয় সেটা তাদের দলীয় বিষয়। তাদের দলীয় অভ্যন্তরীণ বিষয়ে আমি মন্তব্য করবো না।’

দেওয়ান বাজার ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও চসিকের প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনি বলেন, বহিস্কার তাদের দলের অভ্যন্তরীন বিষয়। তবে মেয়র যেহেতু ভালো কাজ করেছেন তার প্রশংসা যে কেউ করতে পারে। তদুপরি মনোয়ারা বেগম মনি একজন কাউন্সিলর। তিনি মেয়রের প্রশংসা করেছেন। কাউন্সিলর হিসেবে মেয়রের প্রশংসাতো করতেই পারেন।

দিদারুল আলম মাসুম বলেন, দুর্গাপূজা উপলক্ষ্যে হিন্দু সম্প্রদায়ের মধ্যে নগদ টাকা বিতরণ হতো। এবার আমরা ঘোষণা দিয়েছি কেউ পুরাতন শাড়ি পরে পূজা মÐপে যেতে হবে না। তাই লালখানবাজার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মধ্যে নতুন কাপড় বিতরণের আয়োজন করেছিলেন। জামা-কাপড় বিতরণ অনুষ্ঠানের শেষ দিকে মনি আপা আমাকে বললেন, মেয়র যেহেতু আমার এলাকায় এসেছেন তার সম্পর্কে দুটো কথা না বললেই নয়। তিনি আমার থেকে মাইক চেয়ে নিয়ে বক্তব্য দিয়েছেন। বক্তব্যে তিনি মেয়রের প্রশংসা করেছেন।
মাসুম আরো বলেন, একজন ব্যক্তি যখন মেয়র নির্বাচিত হন তখন তিনি সব দলের, সব মতের মানুষের অভিভাবক, পুরো নগরের অভিভাবক। তার দলীয় পদ-পদবি থাকলেও তিনি আর কেবলই দলের থাকেন না। সব মানুষের অভিভাবক হয়ে যান। মেয়রের প্রশংসা করায় মনোয়ারা বেগম মনি আপাকে দল থেকে বহিস্কার করাটা বিএনপির মূর্খতা ছাড়া আর কিছুই নয়।

অন্য দলের নেতার প্রশংসা করে নিজ দলের পদ হারানো নিয়ে বিশিষ্ট সমাজ বিজ্ঞানী ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যে রাজনৈতিক ভিশন তাতে শুধু আওয়ামী লীগ দলীয় মানুষজন উপকৃত হচ্ছে না, পুরো জাতিই এর সুফল পাচ্ছেন। মনোয়ারা বেগম মনি চসিকের কাউন্সিলর, আ জ ম নাছির উদ্দিন মেয়র। মেয়রের উন্নয়ন, কর্মযজ্ঞ, সচ্ছতা সবতো তার অধীনস্থ কাউন্সিলরগণ বেশী জানবেন। মনি জেনে শুনে মেয়রের ভালো কাজের প্রশংসা করেছেন, তাতেতো দোষের কিছু নেই। আমাদের রাজনৈতিক সংস্কৃতি পরিবর্তন হওয়া উচিত। ভালোকে ভালো, মন্দকে মন্দ বলার সৎ সাহস রাজনীতিবিদদের দেখানে উচিত।

মনোয়ারা বেগম মনি চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, আমি আবেগ তাড়িত হয়ে ওই বক্তব্য দিয়েছিলাম। ভুল হয়েছে আমার। ভুলের জন্য আমি আমার দলের নেতাকর্মীদের কাছে ক্ষমাপ্রার্থী। দল আমাকে বহিস্কার করেছে। দল থেকে বহিস্কার হলেও আমি দল ছাড়বো না। বিএনপি আমার ত্রিশ বছরের সাধনার নাম। একাধিকবার আমি সরাসরি হামলার শিকার হয়েছি। মামলায় কারাভোগ করেছি। এখনো নিয়মিত আদালতে হাজিরা দিতে হচ্ছে চারটি মামলায়। দলের জন্য আমার ত্যাগ এক দিনেই নিঃশেষ হয়ে যাবে না।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার লালখানবাজার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের বস্ত্র বিতরণে মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের প্রশংসা করে মনোয়ারা বেগম মনি মেয়রকে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ মেয়র, মানবতার সেবক হিসেবে উল্লেখ করার পাশাপাশি আ জ ম নাছির ছাড়া অন্য কারো অধীনে কাউন্সিলর হতেও অনাগ্রহ প্রকাশ করেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন