তামিম-সিইও ফোনালাপ/ক্রিকেটারদের সঙ্গে সন্ধ্যায় আলোচনায় বসছে বিসিবি

বৈঠকেই হতে পারে সঙ্কটের সমাধান

0

দেশের ক্রিকেটের চরম সংকট ও অস্থিতিশীল অবস্থা আরও ঘনীভূত হবার পথে যাচ্ছিল, ঠিক তখনই সুসংবাদ শোনালেন বিসিবির প্রধান নির্বাহী (সিইও) নিজামউদ্দিন চৌধুরী সুজন। বুধবার (২৩ অক্টোবর) মধ্যাহ্নে শেরে বাংলায় উপস্থিত সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপে বিসিবি সিইও জানান, জাতীয় দলের অন্যতম সিনিয়র ক্রিকেটার তামিম ইকবালের সঙ্গে তার কথা হয়েছে। তামিম আশ্বস্ত করেছেন, নিজেদের মধ্যে কথা বলে তারপর সিদ্ধান্ত জানাবেন।

জানা গেছে, ক্রিকেটাররা আজ (বুধবার) গুলশানে কোনো একটা রেস্টুরেন্টে বিকেলে বসবেন। সেখানেই তারা পরবর্তী কার্যক্রম নিয়ে সিদ্ধান্ত নেবেন। বিসিবি সিইওর সঙ্গে ফোনালাপে তামিমও এমনটাই জানিয়েছেন।

সিইও নিজামুদ্দিন চৌধুরী সুজন বলেন, ‘বোর্ড সভাপতির নির্দেশে আমরা আবার খেলোয়াড়দের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা চালাই। জাতীয় দলের খেলোয়াড় তামিম ইকবালের সঙ্গে আমার কথা হয়। ওকে জানানো হয়েছে আর্থিক যে বিষয়গুলো আছে সেগুলো সমাধান সময়ের ব্যাপার মাত্র। দ্রুত বিষয়গুলো নিষ্পত্তি হবে। তামিমও জানিয়েছেন তিনি তার টিমমেট যারা আছে, তাদের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি জানাবেন। আমরা এরই মধ্যে জেনেছি ক্রিকেটাররা কোথাও না কোথাও বসবে। আমাকে জানিয়েছে, বিকেল ৫টার পর আমরা অ্যাভেইলেবল আছি। বাইরে কোথাও বা বোর্ডে তাদের সঙ্গে আমাদের আলোচনা হতে পারে।’

বাংলাদেশ ক্রিকেটের অচলাবস্থা নিরসনে আন্দোলনরত ক্রিকেটারদের সেই বৈঠকটি কোথায় হবে তা এখনও নির্ধারিত হয়নি। তবে আজই সংকটের সুরাহা হয়ে যাবে এমন আশা প্রকাশ করেছেন নিজামউদ্দিন। তিনি জানান, ‘জাতীয় দলের সিনিয়র ক্রিকেটার তামিম ইকবালের সঙ্গে আলাপ হয়েছে বিসিবির এবং বৈঠক করতে সম্মত হয়েছেন ১১ দফা দাবিতে ক্রিকেট বর্জন করা ক্রিকেটাররা।’ উল্লেখ্য, বিসিবি’র নানা বিতর্কিত সিদ্ধান্ত ও দেশের ক্রিকেটের চলমান অসংগতিতে অসন্তোষ প্রকাশ করে সোমবার (২১ অক্টোবর) সাকিব-তামিম-মুশফিক-মাহমুদউল্লাহরা অনির্দিষ্টকালের জন্য ধর্মঘট ডেকেছেন। তাদের ১১ দফা দাবি না মানা পর্যন্ত সব ধরনের ক্রিকেটে খেলবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন ক্রিকেটাররা।

এতে করে হুমকির মুখে পড়েছে চলমান জাতীয় ক্রিকেট লিগ (এনসিএল)। এছাড়া আগামী মাসে ভারত সফরের বিষয়টিও শঙ্কার মুখে পড়ে।

উদ্ভুত পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) জরুরি বোর্ড সভা ডাকে বিসিবি। সভা শেষে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ‘ক্রিকেটারদের এই ধর্মঘটের পেছনে নিশ্চয়ই কোন ষড়যন্ত্রকারী মদদ দিয়ে যাচ্ছে। ভারতের বিপক্ষে সিরিজটি নষ্যাৎ করে দেওয়াই তাদের মূখ্য উদ্দেশ্য বলেও জানান বিসিবি বস।’

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন