তরুণদের ক্যারিয়ার কাউন্সিলিং আয়োজন চবি’র সাবেক শিক্ষার্থীদের

পজেটিভ বাংলাদেশ গড়ায় লক্ষ্য

0

বছরের পর বছর শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাশের হার বাড়লেও চাকরি নামক সোনার হরিণের দেখা না পাওয়ার কারণে পিছিয়ে পড়েছে তরুণেরা। চাকরি ক্ষেত্রে বিশেষ করে বিসিএস ও অন্য প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ও চট্টগ্রাম কেন্দ্রীক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে সফলতার হার ক্রমশ কমে যাচ্ছে। তাই পজেটিভ বাংলাদেশ গড়তে এসব প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত ছাত্র ছাত্রীদের মোটিভেশন ও ক্যারিয়ার কাউন্সিল নিয়ে একটি সেমিনারের আয়োজন করা হয়।

শনিবার (২৪ আগস্ট) বিকেলে নগরীর ষোলশহরস্থ এলজিইডি (LGED) ভবনের হলরুমে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ও চট্টগ্রামের অন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে পাশ করে যারা সরকারের বিভিন্ন উচ্চপদস্থ পদে কর্মরত আছেন এমন সাবেক কয়েকজন ছাত্ররা এ ক্যারিয়ার কাউন্সিলিং এর আয়োজন করেন। আয়োজনের উদ্যোক্তা ছিলেন সহকারী পুলিশ সুপার (প্রবেশনারী) মো. ইমরুল হাসান। এই আয়োজনের সামগ্রিক সহায়তা করেন পাঁচলাইশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কাসেম ভুঁইয়া।

পজেটিভ বাংলাদেশ গড়ায় লক্ষ্য তরুণদের ক্যারিয়ার কাউন্সিলিং আয়োজন করে চবি'র সাবেক শিক্ষার্থীরা
পজেটিভ বাংলাদেশ গড়ায় লক্ষ্য তরুণদের ক্যারিয়ার কাউন্সিলিং আয়োজন করে চবি’র সাবেক শিক্ষার্থীরা

এতে বক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম কলেজের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আনোয়ার মালেক মজুমদার, ফেনীর সমবায় ট্রেনিং সেন্টারের পরিচালক মো. শাহ নেওয়াজ চৌধুরী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় বাংলা বিভাগের প্রভাষক মোহাম্মদ আলী, বান্দরবান জেলার জেলা তথ্য অফিসার প্রকাশ দেবনাথ, চট্টগ্রামের সহকারী কর কমিশনার মেহেদী হাসান শাকিল, পটিয়া সরকারি কলেজের ইসলামের ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক মিজানুর রহমান, সহকারী জাজ মমিনুল হক।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের লোকপ্রশাসন বিভাগের হাবিবা আক্তার ইমুর উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে প্রায় ৫ শতাধিক ছাত্রছাত্রী অংশগ্রহণ করেন।

সকল বক্তাই জাতি গঠনে তরুণদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। চলার পথের সকল বাঁধাবিপত্তি কাটিয়ে সামনে এগিয়ে যাওয়ার গল্প শোনান ৷ পাঁচলাইশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল কাশেম ভুঁইয়া বলেন, এই তরুণেরাই সমাজের গুরুত্বপূর্ণ অংশ। তাদের ভেতরের সুপ্ত প্রতিভা ঘুমিয়ে আছে। তাই এ ধরনের আয়োজন তরুণদের উজ্জীবিত করবে বলে মনে করি।

উল্লেখ্য, এএসপি ইমরুল হাসান ৬৯ তম বুনিয়াদী প্রশিক্ষণের অংশ হিসাবে ২১ দিনের জন্য চট্টগ্রাম জেলায় সংযুক্তিতে এসেছেন।

শারমিন/আরিফ

Loading...
আরও পড়ুন