টেরিবাজারে কোস্টগার্ডের অভিযানে বাধা

0

নিজস্ব প্রতিবেদক : নগরের কোতোয়ালী থানার টেরিবাজারে শুল্ক ফাঁকি দিয়ে আনা বিদেশি শাড়ি-কাপড়ের বিরুদ্ধে অভিযান চালিয়েছে কোস্ট গার্ড।

বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত এ অভিযান চালানো হয়। এ সময় বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মালিক ও শ্রমিকদের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। তারা সড়কে নেমে বিক্ষোভ করেন। এ সময় কোস্ট গার্ড সদস্যরা ফাঁকা গুলি ছুড়ে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেন।

টেরিবাজারের অন্যতম অভিজাত শপিংমল ‘মনেরেখ’, ‘স্টারপ্লাস’ ও ‘মেগামার্ট’ নামের তিনটি দোকানে অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণ বিদেশি পোশাক জব্দ করে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ‘মনেরেখ’তে পোশাক জব্দ করার পর ওই দোকানের মালিক এর প্রতিবাদ জানান। তার সঙ্গে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে টেরিবাজার ব্যবসায়ী সমিতির পক্ষ থেকে মাইকে বাজারের সব দোকান বন্ধ করার ঘোষণা দেওয়া হয়। এরপর কয়েকশ দোকানের মালিক-কর্মচারীরা সড়কে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করলে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

তখন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে লাঠিপেটার পাশাপাশি ফাঁকা গুলি ছোড়ে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান। এতে মার্কেটে আসা গ্রাহকদের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

 

এ বিষয়ে টেরিবাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ হোসেন বলেছেন, আমরা সবসময় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে সহায়তা করে থাকি। কিন্তু আজ আগে থেকে কিছু না জানিয়ে হঠাৎ করেই অভিযান শুরু হয়। তারা অভিযানের নামে পুরো টেরিবাজারে ঈদ বাজারে বিঘœ করায় শ্রমিক মালিক সকলে বিক্ষোভ করেছে।

তবে অভিযানে অংশ নেওয়া র‌্যাব-৭ এর কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আশেকুর রহমান বলেছেন, অভিযানে কিছুটা ভুল বোঝাবুঝি সৃষ্টি হয়। কয়েকটি দোকান থেকে বিপুল পরিমাণ চোরাই ভারতীয় পোশাক জব্দ করার পর ব্যবসায়ী সমিতির মাইকে ঘোষণা দিয়ে অভিযানে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করে বিক্ষোভ করে। পরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কোস্ট গার্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ের পর অভিযান অব্যাহত রাখা হয়।

Loading...
আরও পড়ুন