টেকনাফে অপহৃত ৮ ব্যক্তির মুক্তি, শরীরে নির্যাতনের চিহ্ন

কক্সবাজারের টেকনাফের বাহারছড়ার জাহাজপুরা পাহাড়ে অপহৃত আট ব্যক্তিকে তিনদিন পর আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২২ ডিসেম্বর) এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুল হালিম। ইতোমধ্যে তাদের কয়েকজন বাড়ি ফিরেছেন এবং বাকিরা থানায় আছেন বলে জানা গেছে।

এর আগে গত ১৮ ডিসেম্বর বিকালে বাহারছড়া ইউনিয়নের জাহাজপুরা পাহাড়ের খালে মাছ শিকার করতে গেলে সেখান থেকে তারা অপহৃত হন।

উদ্ধার হওয়া আটজন হলেন বাহারছড়া ইউনিয়নের রশিদ আহমদের ছেলে মোহাম্মদ উল্লাহ, ছৈয়দ আমিরের ছেলে মোস্তফা কামাল, তার ভাই করিম উল্লাহ, মমতাজ মিয়ার ছেলে মো. রিদুয়ান, রুস্তম আলীর ছেলে সলিম উল্লাহ, কাদের হোসেনের ছেলে নুরুল হক, রশিদ আহমদের ছেলে নুরুল আবছার ও নুরুল হকের ছেলে নুর মোহাম্মদ।

তিনদিন ধরে প্রশাসনের লোকজন ও স্থানীয়সহ চার শতাধিক মানুষ পাহাড়ি অঞ্চলে অপহৃতদের উদ্ধার অভিযানে নেমেছিলেন।

অপহৃত পরিবারের সদস্য মোহাম্মদ হাবিব বলেন, ‘অপহৃত আট জনকেই মুক্তিপণের টাকার জন্য নানাভাবে শারীরিক নির্যাতন করেছে অপহরণকারীরা। তাদের শরীরের বিভিন্ন জায়গায় নির্যাতনের ক্ষত রয়েছে। তারপরও অপহরণকারীরা তাদের ছেড়ে দিয়েছে। তারা বাড়ি ফিরেছেন, এর জন্য মহান আল্লাহর কাছে শুকরিয়া। আর প্রশাসনসহ যারা উদ্ধার অভিযান চালিয়ে আমাদের পরিবারের পাশে ছিলেন, তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।’

Yakub Group

ওসি আবদুল হালিম জানান, অপহৃতদের উদ্ধারের জন্য পাহাড়ের ঢালে-জঙ্গলে বিভিন্ন দুর্গম জায়গায় পুলিশের অভিযান চলমান ছিল। খবর পেলাম বুধবার দিবাগত রাতে অপহৃতরা বাড়ি ফিরেছে। তারা একটু সুস্থ হোক। তারপর তাদের কাছ থেকে অপহরণের কারণসহ বিস্তারিত জানতে পারব।

ডিজে

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ksrm