জীবনের শুরুতে যারা হোঁচট খায়, তারাই শিখরে পৌঁছাতে পারবে—সুফি মিজান

'দ্য পাওয়ার অফ নাইন’ পদক পেলেন নয়জন

0

মানুষের জীবনের উন্নতি প্রসঙ্গে পিএইচপি ফ্যামিলির চেয়ারম্যান সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেছেন, মানুষ চাইলে তার জীবনের পটপরিবর্তন করতে পারে। জীবনের শুরুতে যারা হোঁচট খায়, তারা যদি এটিকে একাগ্রতা ও অধ্যবসায়ের মাধ্যমে কাজে লাগাতে পারে তাহলে তিনি জীবনে সর্বোচ্চ শিখড়ে পৌঁছাতে পারবেন। বৃস্পতিবার (১ আগস্ট) নগরীর বাদশা মিয়া সড়কের চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা ইনস্টিটিউটের শিল্পী রশিদ চৌধুরী আর্ট গ্যালারিতে বাংলাদেশ আর্ট উইক চট্টগ্রামের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

দেশের স্বনামধন্য ব্যবসায়ী সুফি মিজান বলেন, ‘সাধারণ মানুষ কাজ করে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত। যারা সফল হয়েছে তারা কিন্তু সকাল ৬টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত কাজ করে। প্রতিভা ও পরিশ্রম কখনো ধার করা যায় না। এটি সম্পূর্ণ নিজেকে গড়তে হয়। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আরও বলেন, আজ যারা দ্য পাওয়ার অব নাইন ভূষিত হয়েছ তাতে করে বাংলাদেশ তথা চট্টগ্রামবাসী গর্বিত ও আনন্দিত। জাতির পক্ষ থেকে এই নয়জন প্রভিভাবান শক্তিকে জানাই শ্রদ্ধা ও ভালবাসা। মাটি হয়ে যাও। ফুলের বাগান মাটিতে হয়, পাথরে নয়। মানুষকে নির্মোহ, নির্লোভ, নিরীহ ও প্রেমিক হতে হবে।’

প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখছেন পিএইচপি ফ্যামিলির চেয়ারম্যান সুফি মোহাম্মদ মিজানুর রহমান

পিএইচপি ফ্যামিলির পৃষ্টপোষকতায় ও বাংলাদেশ আর্ট উইক এর ফাউন্ডার নীহারিকা মমতাজের সভাপতিত্বে দু’দিনব্যাপী এ প্রদর্শনী অনুষ্ঠানে বক্তব্যে রাখেন বিশেষ অতিথি দৈনিক পূর্বকোণের প্রকাশক ও পরিচালনা সম্পাদক জসিম উদ্দিন চৌধুরী, চট্টগ্রাম আর্ট কলেজের পরিচালক সায়লা শারমিন সাথী ও পিএইচপি ফ্যামিলির ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মহসীন।

এই প্রথম চট্টগ্রামে ব্যতিক্রমী এই আয়োজন ও দর্শকদের দেখে উচ্ছসিত হন বিশিষ্ট শিল্পী রফিকুন নবী। তিনি বলেন, ঢাকায় প্রায় এ ধরনের আয়োজন হলে উপস্থিতি তেমন থাকে না। অনুষ্ঠানে ভরপুর ছিল দর্শকদের উৎসমুখর উপস্থিতি। এটাই প্রমাণ করে এখানকার মানুষের শিল্পের প্রতি আগ্রহ আছে। চট্টগ্রামে সাংস্কৃতির ক্ষেত্রে নানা দিক বিশেষ আবদান রয়েছে।

শিল্পী মনিরুল ইসলাম বলেন, চট্টগ্রামে সাংস্কৃতি দিক দিয়ে অনেক দূর এগিয়ে গেছে। এখানকার নদী ও পাহাড় বিশেষ আকর্ষণ। প্রদর্শনীতে শিল্পীদের বিভিন্ন দামের ছবি রয়েছে। এদের মধ্যে শিল্পী মনিরুল ইসলামের অ্যাক্রলিক মাধ্যমে কাটুন বক্সে আঁকা ছবি সর্বোচ্চ দাম রাখা হয়েছে ১২ লাখ টাকা।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন দেশের বিখ্যাত নয়জন গুণী শিল্পী যাদেরকে বাংলাদেশ আর্ট উইক নামকরণ করে ‘দ্য পাওয়ার অফ নাইন’ পদকে ভূষিত করা হয়েছে। তাঁরা হলেন, র’নবী খ্যাত রফিকুন নবী, এএমবি সালাউদ্দিন রনি, জামাল আহমেদ, মনিরুল ইসলাম, ফরিদা জামান, কনক চাঁপা চাকমা, মেহাম্মদ ইকবাল, মোস্তফা খালিদ পলাশ, তেজশ হালদার জোশ।

আজাদ/আরিফ

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন