জায়গা একই/ ৭ মাসের ব্যবধানে এবার জোড়া খুন রাঙামাটিতে

0

রাঙামাটিতে এমএন লারমা সমর্থক পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতির (জেএসএস) সহযোগী সংগঠন যুব সমিতির দুই নেতাকে গুলি করে হত্যা করেছে একদল দুর্বৃত্ত। জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলার বাবুপাড়া এলাকায় রোববার (১১ আগস্ট) রাত পৌনে ১২টায় এ ঘটনা ঘটেছে। এর আগে গত ৪ জানুয়ারি একই জায়গায় গুলি করে হত্যা করা হয় এমএন লারমা সমর্থক জেএসএসের কর্মী বসু চাকমাকে।

নিহত দুজন হলেন জেএসএস যুব সমিতি কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক শতসিদ্ধি চাকমা (৩৭) এবং বাঘাইছড়ি উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এনো চাকমা (৩২)। শতসিদ্ধি চাকমা পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের রাঙামাটি জেলা কমিটির সাবেক সভাপতি।

সদরের বাবুপাড়া এলাকায় কমিউনিটি সেন্টারের পাশের বাসায় স্থানীয় রিপন চাকমার বাড়িতে অবস্থান করছিলেন শতসিদ্ধি চাকমা ও এনো চাকমা। এলাকাটি এমএন লারমা সমর্থক জেএসএসের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত। রাত রাত সাড়ে ১১টার দিকে একদল সশস্ত্র দুর্বৃত্ত ওই বাড়িতে ঢুকে এলোপাতাড়ি গুলি চালায়। ওই দুজনের মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার পর রাত ১২টায় দুর্বৃত্তরা ওই বাড়ি ছেড়ে যায়।

বাঘাইছড়ি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমএ মঞ্জুরুল আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। ঘটনার পর খবর পেয়ে বাঘাইছড়ি থানার একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। এ রিপোর্ট লেখার সময় ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসার প্রস্তুতি চলছিল।

এই জোড়া খুনের সঙ্গে কারা দায়ী এ ব্যাপারে পুলিশ নিশ্চিত করে কিছু বলতে পারেনি। তবে বরাবরের মতোই এবারও সন্দেহের তীর সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন জনসংহতি সমিতির দিকে। এর আগেও অপর এক কর্মীকে হত্যার অভিযোগ ওঠে সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন জনসংহতি সমিতির বিরুদ্ধে।

গত ৪ জানুয়ারি একই জায়গায় গুলি করে হত্যা করা হয় এমএন লারমা সমর্থক জেএসএসের কর্মী বসু চাকমাকে। সদরের বাবুপাড়া কমিউনিটি সেন্টারের পাশে তাকে গুলি করা হয়। তিনি বাঘাইছড়ি এলাকার খেদারমারা গ্রামের বাসিন্দা। ওইদিন সন্ধ্যা সাতটার দিকে উপজেলা সদরের বাবুপাড়া কমিউনিটি সেন্টারের পাশে স্থানীয় জ্যোতি প্রভা চাকমার বাড়িতে খাবার খাওয়ার সময় একদল দুর্বৃত্ত তাকে গুলি করে হত্যা করে। নিহত ব্যক্তির লাশের পাশে একটি একনলা বন্দুক, একটি পিস্তল, পিস্তলের গুলি দুই রাউন্ড, খালি খোসা ৯টি ও খাবার খাওয়ার আলামত পাওয়া যায়। বসু চাকমা হত্যার দায়ে রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বড়ঋষী চাকমার বিরুদ্ধে খুনের দায়ে অভিযোগ দায়ের করা হয়।

সিপি

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন