জাহাজে চট্টগ্রাম থেকে হজযাত্রী পাঠানোর তোড়জোড়, ১০ দিনেই জেদ্দা

চট্টগ্রাম থেকে সমুদ্রপথে জাহাজে করে সৌদি আরবে হজযাত্রী নিতে চায় চট্টগ্রামভিত্তিক একটি প্রতিষ্ঠান। প্রস্তাবটি আলোর মুখ দেখলে সুদানের পর বাংলাদেশ হবে সমুদ্রপথে হজযাত্রী নেওয়া বিশ্বের দ্বিতীয় দেশ। ২০১৮ সাল থেকে সুদান সমুদ্রপথে হজযাত্রী নিচ্ছে সৌদি আরবে।

হিসাব অনুযায়ী, ১০ দিনে চট্টগ্রাম বন্দর থেকে পৌঁছানো যাবে সৌদি আরবের জেদ্দা বন্দরে। সবমিলিয়ে যাত্রীপ্রতি খরচ পড়বে প্রায় পাঁচ লাখ টাকা। বর্তমানে বিমানযোগে হজে যেতে যাত্রীপ্রতি খরচ পড়ে সাড়ে ছয় লাখ টাকারও বেশি।

সমুদ্রপথে হজযাত্রার অনুমতি চেয়ে ইতিমধ্যে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেছে চট্টগ্রামভিত্তিক প্রতিষ্ঠান কর্ণফুলী শিপ বিল্ডার্স লিমিটেড। অনুমতি মিললে আগামী হজ মৌসুম থেকেই জাহাজ চলাচল শুরুর আশা রাখছে প্রতিষ্ঠানটি।

জানা গেছে, গত ২৯ জানুয়ারি প্রস্তাবটি নিয়ে সচিবালয়ে আন্তমন্ত্রণালয় সভায় বসেছিলেন সংশ্লিষ্টরা। শেষ পর্যন্ত ওই সভায় সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, প্রস্তাবটি পাঠানো হবে প্রধানমন্ত্রীর কাছে। সেখান থেকে ইতিবাচক সাড়া মিললে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে সৌদি সরকারের সঙ্গে এ নিয়ে আলোচনার উদ্যোগ নেওয়া হবে।

এর আগে কর্ণফুলী শিপ বিল্ডার্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী এমএ রশিদ জানিয়েছিলেন, তার প্রতিষ্ঠান ৫০০ কোটি টাকা ব্যয়ে ৩২ তলাবিশিষ্ট একটি জাহাজ আমদানির পরিকল্পনা নিয়েছে।

তিনি জানান, যে জাহাজটি আনা হবে সেটি বছরে দুই মাস হজযাত্রী বহন করবে। বাকি দুই মাস অন্য রুটে যাত্রী নিয়ে চলাচল করবে।

প্রকৌশলী এমএ রশিদ আরও জানান, হজ শুরুর কয়েক দিন আগে যাত্রা করলে বাড়তি হোটেল ভাড়া করে থাকতে হবে না যাত্রীদের। এছাড়াও ৩২ তলা জাহাজটিতে তিন হাজার যাত্রী যাতায়াত করতে পারবেন। যেখানে একটি বিশাল মিলনায়তন থাকবে, তাতে দুই হাজার হজযাত্রী একসঙ্গে বসতে পারবে। নৌরুটে হজের খরচও অনেক কমবে হাজীদের।

সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!