‘চোর’ সন্দেহে যুবককে পিটিয়ে হত্যা মিরসরাইয়ে

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে ‘চোর’ সন্দেহে স্থানীয়দের গণপিটুনীতে নিহত হয়েছে এক যুবক। বুধবার (২৬ জুন) ভোর পাঁচটায় উপজেলার মায়ানী ইউনিয়নের চৌধুরী বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত যুবকের নাম কবির আহম্মদ (৩৫)। তিনি পটুয়াখালীর সদর এলাকার গাবুয়া মোল্লাবাড়ির আমজাদ মোল্লার পুত্র।

খরব পেয়ে মিরসরাই থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (চমেক) প্রেরণ করে।

মায়ানী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কবির নিজামী বলেন, ‘বুধবার ভোরে স্থানীয়রা এক চোরকে আটক করে গণপিটুনীতে মেরে ফেলার খবর শুনি। পরে বিষয়টি মিরসরাই থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়।’

নিহতের ভাই মিজানুর রহমান বলেন, ‌‘কবির আহম্মদ প্রতিদিন গভীর রাতে ঘর থেকে বেরিয়ে যেত। তবে কোথায় যেত তিনি তার কিছুই জানেন না। কবির আহম্মদ শ্রমিক হিসেবে করতো বলে জানান তিনি।’

মিরসরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাহিদুল কবির বলেন, ‘বুধবার ভোরে স্থানীয়রা আমাকে ফোন করে মায়ানী ইউনিয়নের চৌধুরী বাড়িতে এক চোরকে আটক করেছে বলে জানায়। আমি তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে একটি পুলিশ টিম পাঠায়। তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে জানতে পারে স্থানীয়রা চোরটিকে গণপিটুনী দিয়ে মেরে ফেলেছে। পরে লাশটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে।

তিনি আরও বলেন, স্থানীয় এক মহিলা দাবি করেন চুরি করতে গিয়ে চোর কবির আহম্মদ এক মহিলার গায়ে হাত দেয়। পরে স্থানীয়রা উত্তেজিত হয়ে পড়ে কবির আহম্মদকে গণপিটুনি দিতে থাকে। এতে তার মৃত্যু হয়। এ বিষয়ে মায়ানী ইউনিয়ন পরিষদের চৌকিদার রতন বড়ুয়া বাদি হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছে। নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

এএইচ

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!