চুয়েটকে শেখ কামাল আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর হস্তান্তর করলো হাইটেক পার্ক

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (চুয়েট) অবস্থিত দেশের একমাত্র আইটি ইনকিউবেটর ‘শেখ কামাল আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর’ চুয়েটকে হস্তান্তর করেছে বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ।

বুধবার (৩ জুলাই) বেলা ১১টায় ইনকিউবেটরের অডিটোরিয়ামে শেখ কামাল আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর চুয়েটকে হস্তান্তর করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জিএসএম জাফরউল্লাহ্।

বিশেষ অতিথি ছিলেন চুয়েটের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. জামাল উদ্দীন আহাম্মদ, শিফট প্রকল্পের পরিচালক সৈয়দ জহুরুল ইসলাম।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন পুরকৌশল অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. সুদীপ কুমার পাল, তড়িৎ ও কম্পিউটার প্রকৌশল অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সামসুল আরেফিন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. এএইচ রাশেদুল হোসেন, মেকানিক্যাল অ্যান্ড ম্যানুফ্যাকচারিং অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. কাজী আফজালুর রহমান, স্থাপত্য ও পরিকল্পনা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ রাশিদুল হাসান ও রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. শেখ মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির, হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের উপ-সচিব মোহাম্মদ মোখতার আহমেদ, হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের উপ-পরিচালক প্রকৌশলী নরোত্তম পাল, দে টেম্পেট লিমিটেডের সহ-প্রতিষ্ঠাতা মোহসেনা খানম।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শেখ কামাল আইটি বিজনেস ইনকিউবেটরের পরিচালক অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মশিউল হক।

এর আগে সকাল ১১টায় প্যানেল ডিসকাশন এবং দুপুর দেড়টার দিকে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষ এবং চুয়েটের মধ্যে ইনকিউবেটরের অবকাঠামো হস্তান্তর এবং যৌথভাবে পরিচালনার লক্ষ্যে এক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে চুক্তি স্বাক্ষর করেন বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জিএসএম জাফরউল্লাহ ও চুয়েটের পক্ষে চুক্তি স্বাক্ষর করেন চুয়েটের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) জিএসএম জাফর উল্লাহ বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ভিত্তিক বিজনেস ইনকিউবেটর ধারণাটি আমাদের দেশে নতুন। যে কারণে শুরুর দিকে আমাদের একটু বেগ পেতে হয়েছে। চুয়েটের শেখ কামাল আইটি বিজনেস ইনকিউবেটরটি ভারতের আইআইটি হায়দারাবাদ ও সিলিকন ভ্যালির মডেলে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে ইন্ডাস্ট্রির একটা কার্যকর সেতুবন্ধন তৈরি করতে এ ধরনের বিজনেস ইনকিউবেটর একটি সময়োপযোগী পদক্ষেপ। আশা করছি, আমরা পূর্বের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে শীঘ্রই এই বিজনেস ইনকিউবেটরের সফলতা দেখতে পাবো।’

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে চুয়েট উপাচার্য অধ্যাপক ড. রফিকুল আলম বলেন, এই আইটি বিজনেস ইনকিউবেটর দক্ষ সৃজনশীল উদ্যোক্তা গড়ে তুলতে সহায়তা করবে এবং স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে আরও একধাপ এগিয়ে নিয়ে যাবে। এই ইনকিউবেটরটি শুধু চুয়েটের ছাত্রদের জন্য নয় বাংলাদেশের যে কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের যে কোনো শিক্ষার্থী এখানে প্রশিক্ষণ নিতে পারবে।’

অনুষ্ঠানের শুরুতে বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি)জিএসএম জাফর উল্লাহ শিফট প্রকল্পের আওতায় সাইবার সিকিউরিটি ল্যাব ও স্টুডেন্ট টু স্টার্ট-আপ ভেঞ্চারস কর্তৃক স্থাপিত স্মার্ট বাংলাদেশ লঞ্চপ্যাডের কনটেন্ট ল্যাব উদ্বোধন করেন।

এছাড়া স্মার্ট বাংলাদেশ লঞ্চপ্যাডের অংশগ্রহণকারী স্টার্টআপদের জন্য স্টার্টআপ ফাইন্যান্স এর উপর ‘মাস্টারক্লাস স্টার্ট আপ ফাইন্যান্স’ শীর্ষক প্রশিক্ষণ, সাইবার সিকিউরিটি প্রশিক্ষণ, BDSET প্রকল্পের আওতাধীন AI ভিত্তিক প্রশিক্ষণ, EDGE প্রকল্প এর আওতাধীন একাধিক প্রশিক্ষণসমূহ পরিদর্শন করেন।

চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় এবং তথ্যপ্রযুক্তি খাতে দক্ষ গ্র্যাজুয়েট তৈরির উদ্দেশ্যে ১১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ইনকিউবেটরটি নির্মাণ করা হয়। ২০২২ সালের ৬ জুলাই উদ্বোধনের পর বাংলাদেশ হাইটেক পার্ক কর্তৃক পরিচালিত হয়ে আসছিল ইনকিউবেটরটি।

জেডএস/ডিজে

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!