চুনতী মাদ্রাসায় পিএইচডিধারী ৩৩ প্রাক্তন শিক্ষার্থীকে সম্মাননা প্রদান

প্রাক্তন ৩৩ শিক্ষার্থী পিএইচডি অর্জন করায় তাদের সম্মাননা প্রদান করা হল চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার চুনতী হাকিমিয়া কামিল (অনার্স-মাস্টার্স) মাদ্রাসায়।

শনিবার (১৯ নভেম্বর) মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এ সম্মাননা প্রদান করা হয়।

চুনতী মাদ্রাসায় পিএইচডিধারী ৩৩ প্রাক্তন শিক্ষার্থীকে সম্মাননা প্রদান 1

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন সাতকানিয়া-লোহাগাড়া আসনের সাংসদ ও আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রামের বোর্ড অব ট্রাস্টের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী।

অনুষ্ঠানে মাদ্রাসা আল্লামা ফজলুল্লাহ ফাউন্ডেশন ও আনজুমনে তোলাবায়ে সাবেকীনের (প্রাক্তন ছাত্র পরিষদ) সহযোগিতায় সম্প্রসারিত মসজিদে আসমাউল হুসনার উদ্বোধন, বুখারী ও মুসলিম শরীফের সবকদান, আল্লামা ফজলুল্লাহ (রাহ.)’র জীবনীগ্রন্থসহ কয়েকটি গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন, কামিল সম্মিলিত মেধা তালিকায় দ্বিতীয় স্থান অধিকারী ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে অধ্যক্ষ হিসেবে কর্মরতদের সম্মাননা প্রদান করা হয়।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রফেসর ড. আবু রেজা মোহাম্মদ নেজামুদ্দিন নদভী বলেন, ‘নৈসর্গিক সৌন্দর্য মন্ডিত বাংলাদেশের প্রাচীনতম দ্বীনি শিক্ষা নিকেতন ‘উম্মুল মাদারেস’ খ্যাত চুনতী হাকিমিয়া কামিল মাদ্রাসা থেকে তৈরি হয়েছে অসংখ্য মুহাদ্দিস, মুফাচ্ছির, বরেণ্য শিক্ষাবিদ ও গবেষক। পিএইচডি ডিগ্রি অর্জনকারী প্রাক্তন ছাত্রদের সংখ্যা প্রায় অর্ধ শতাধিক। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন ও ঐতিহ্য রক্ষায় প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা নানাভাবে যে ভূমিকা রাখতে পারে তার উৎকৃষ্ট দৃষ্টান্ত এই আনজুমনে তোলবায়ে সাবেকীন। দীর্ঘ প্রায় সাত দশক ধরে এই সংগঠনটি মাদ্রাসার উন্নয়নে নানাভাবে ভূমিকা রেখেছে। দেশের অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের জন্য ‘আনজুমন’ এক অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত ও মডেল।’

Yakub Group

ওই মাদ্রাসার ছাত্র হতে পেরে নিজেকে সৌভাগ্যবান বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘কৈশোরের আকাশ-কুসুম স্বপ্নগুলোর শুরু হয়েছিল এই মাদ্রাসা থেকেই। এখান থেকেই স্বপ্ন দেখেছি ভালো মানুষ হওয়ার, সুন্দর ভবিষ্যতের। এখান থেকেই স্বপ্ন দেখেছি উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে মা-বাবা, প্রতিবেশি ও দেশের মুখ উজ্জ্বল করার।’

তিনি বলেন, ‘আমার বাবা আল্লামা আবুল বারাকাত মুহাম্মদ ফজলুল্লাহ (১৮৯৮-১৯৭৯) ভারতের প্রসিদ্ধ দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান মাজহারুল উলুম সাহারানপুর থেকে শিক্ষা সমাপ্ত করে কলিকাতা আকাড়া আলীয়া মাদরাসায় (১৯২২ থেকে ১৯৪২ইং পর্যন্ত) দীর্ঘ ২০ বছর যাবত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এরপর তিনি চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার চুনতি হাকিমিয়া আলীয়া মাদ্রাসায় নাজেমে আ’লা (মহাপরিচালক) হিসেবে আমৃত্যূ ইলমে দ্বীনের খেদমতে আত্মনিয়োগ করেন। তাঁর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় চুনতির শাহ সাহেব হযরত মাওলানা হাফেজ আহমদ (রাহ.) প্রবর্তিত মাহফিলে সীরতুন্নবী (সাঃ) হয়ে ওঠে দলমত নির্বিশেষে ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের মিলনস্থল।’

তিনি আরও বলেন, ‘নির্ভরযোগ্য হাদিসগ্রন্থ ‘শামায়েলে তিরমিযী’র বঙ্গানুবাদসহ আল্লামা ফজলুল্লাহ’র স্বহস্তে লেখা অনেক পান্ডুলিপি বাংলাদেশ ইসলামিক ফাউন্ডেশন থেকে প্রকাশিত হয়েছে। তাঁর রচিত ‘যুক্তির কষ্ঠিপাথরে ইসলাম’ গ্রন্থটিও নতুনভাবে প্রকাশ হতে যাচ্ছে। এছাড়াও বিভিন্ন বিষয়ে তিনি আরও ১৯টি গ্রন্থ রচনা করেছেন।’

মাদ্রাসার গভর্ণিং বডির সভাপতি ও আল্লামা ফজলুল্লাহ (রাহ.) ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মাওলানা অধ্যাপক ড. আবুল আ’লা মুহাম্মদ হোছামুদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জামেয়া দারুল মা’আরিফ আল-ইসলামিয়া চট্টগ্রামের প্রতিষ্ঠাতা মহাপরিচালক আল্লামা সুলতান যাওক নদভী, পটিয়া আল জামিয়া আল ইসলামিয়া মাদরাসার মহাপরিচালক মাওলানা ওবায়দুল্লাহ হামজা, বাংলাদেশ কওমী মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড (বেফাক) এর মহাপরিচালক মাওলানা ওবায়দুর রহমান খান নদভী, রাহবারে বায়তুশ শরফ মাওলানা মুহাম্মদ আব্দুল হাই নদভী, আইআইইউসি ট্রাস্টের ভাইস চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. কাজী দীন মোহাম্মদ, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবি বিভাগের প্রফেসর ড. আ.ক.ম আব্দুল কাদের, চট্টগ্রাম সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোজাহেদুল ইসলাম চৌধুরী, চুনতী হাকিমিয়া কামিল (অনার্স-মাস্টার্স) মাদ্রাসার প্রাক্তন অধ্যক্ষ মাওলানা মাহমুদুল হক, প্রাক্তন উপাধ্যক্ষ মাওলানা মুহাম্মদ আজিজুল হক প্রমুখ

স্বাগত বক্তব্য রাখেন চুনতী হাকিমিয়া কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা ফারুক হোসাইন, শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন আনজুমনে তোলবায়ে সাবেকীনের সভাপতি মাওলানা মমতাজুর রহমান। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মাওলানা জিয়াউল করিম।

অনুষ্ঠানে ড. মুঈনুদ্দীন আহমদ খান, ড. শব্বির আহমদ,ড. মোহাম্মদ আনওয়ারুল হক খতিবীকে মরণোত্তর সম্মাননা দেওয়া হয়। এছাড়াও মাদ্রাসার প্রাক্তন শিক্ষার্থী হিসেবে পিএইচডি অর্জন করায় সম্মাননা দেওয়া হয় ড. আবু বকর রফীক আহমদ, ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজাম উদ্দিন নদভী, ড. মুহাম্মদ ঈসা শাহে, ড. আবু উমর ফারূক আহমদ, ড. হাফেজ মোহাম্মদ বদরুদ্দোজা, ড. মুহাম্মদ আহসান উল্লাহ (আহসান সাইয়েল), ড. নূর মোহাম্মদ ওসমানী, ড. গিয়াস উদ্দিন হাফিজ, ড. আবুল কালাম মোহাম্মদ শাহেদ, ড. মুহাম্মদ এনামুল হক, ড. মুহাম্মদ এনয়ামুল হক, ড. মুহাম্মদ মাহমুদুল হাসান, ড. মিজানুর রহমান, ড. মুহাম্মদ মাহবুবুর রহমান, ড. মুহাম্মদ মুহিউদ্দিন মাহি, ড. মোহাম্মদ আতাউল্লাহ খালেদ, ড. হেলাল উদ্দীন মুহাম্মদ নোমান, ড. আহমদ আলী, ড. মাহমুদুল হক ওসমানী, ড. মুহাম্মদ নূরুল ইসলাম, ড. মোহাম্মদ আমির হোসাইন, ড. মোহাম্মদ নেয়ামত উল্লাহ, ড. যুবাইর মুহাম্মদ এহসানুল হক, ড. আব্দুল কাদের নিজামী, ড. মোহাম্মদ তাছলিম উদ্দীন, ড. মোহাম্মদ জসীম উদ্দিন ভূঞা, ড. মুহাম্মদ নেজামুদ্দীন, ড. আবুল আ’লা মুহাম্মদ হোছামুদ্দিন, ড. মুহাম্মদ শাযাআত উল্লাহ ফারুকী এবং ড. মোহাম্মদ হাবীবুর রহমানকে।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ksrm