আক্রান্ত
৯৮৮৮
সুস্থ
১১৯৫
মৃত্যু
১৮৯

চিকিৎসা না পেয়ে মারাই গেলেন টিউমারে ভোগা খাগড়াছড়ির সুমন

0
high flow nasal cannula – mobile

সাধারণ রোগের চিকিৎসা না পেয়ে ২৬ মার্চ ফেসবুকে সুমন পোস্ট দিয়েছিলেন— ‘আমার করোনো হয়নি অথচ পরিস্থিতি দেখে মনে হচ্ছে করোনার জন্যই আমাকে মারা যেতে হবে।’ এর মাত্র ১০ দিনের মাথায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের তৃতীয় বর্ষের এই শিক্ষার্থী ফুসফুসে টিউমারের রোগে ভুগে মারা গেলেন।

সোমবার (৬ এপ্রিল) সকাল ৮টা ৩৩ মিনিটে খাগড়াছড়ি জেলার সদর উপজেলার ছেলে সুমন চাকমার মৃত্যু হল।

কৃষক বাবা সুপেন চাকমার ছেলে সুমন গত দুই বছর ধরে অসুস্থ ছিলেন। চিকিৎসকেরা একসময় জানান, তার ফুসফুসে ক্যানসার হয়েছে। এরপর তিনি ঢাকার বক্ষব্যাধি হাসপাতালে ছিলেন তিন মাস। একপর্যায়ে যান ভারতেও। তবে সেখানকার চিকিৎসকরা বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর জানান, ক্যান্সার নয় ফুসফুসে তার ছোট একটি টিউমার হয়েছে। পরে সেখান থেকে থেরাপি নিয়ে দেশে ফেরেন। এরপর আবারও ভারতে গিয়ে চেকআপ করে দেশে ফেরেন ২০১৯ সালের জুনে।

এরপর মোটামুটি সুস্থই ছিলেন সুমন। কিন্তু গত জানুয়ারিতে আবার অসুস্থ হয়ে পড়েন। ততোদিনে করোনা ভাইরাস বিস্তৃত হচ্ছিল দেশজুড়ে। ঠিক এই সময়ে প্রচণ্ড অসুস্থতার পর ঢাকার বড় বড় সরকারি হাসপাতালগুলোতে গিয়েও চিকিৎসা পাননি সুমন— এমন অভিযোগ তার বাবার। পরে সুমনকে তার বাবা ঢাকা থেকে খাগড়াছড়ির বাড়িতে নিয়ে যান। চট্টগ্রাম নগরীর একজন হোমিও চিকিৎসকের কাছ থেকে ২৪ দিনের জন্য কিছু ওষুধ সঙ্গে নেন। সেই ওষুধও একসময় শেষ হয়ে যায়। গাড়ি চলাচল বন্ধ থাকায় ওষুধও আর আনা হয়নি। শেষ পর্যন্ত সুমনের আর ওষুধ লাগেনি। সোমবার (৬ এপ্রিল) সকাল ৮টা ৩৩ মিনিটে সব ছেড়েছুঁড়ে তিনি চলে যান ওপারে।

সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Manarat

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন
ksrm