চবি কর্মকর্তার ওপর ‘দুর্বৃত্তের’ হামলা, সবাই ছিল ছাত্র

0

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) হিসাব নিয়ামক (ভারপ্রাপ্ত) মো. ফরিদুল আলম চৌধুরীকে তার অফিস কক্ষে মারধর করেছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনা তদন্তে একটি কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। অন্যদিকে ঘটনার প্রতিবাদে দুই দিনের কর্মসূচি পালন করছে চবি অফিসার সমিতি।

মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের চতুর্থ তলায় হিসাব নিয়ামক দপ্তরে এই ঘটনা ঘটে।

ঘটনার বিবরণ দিয়ে হিসাব নিয়ামক ফরিদুল আলম চৌধুরী চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, অফিসের কিছু লোককে অনৈতিক সুবিধা না দেওয়ায় আমার ওপর হামলা চালানো হয়েছে। আমি জোহরের নামাজ পড়ে মাত্র অফিসে আসছি। এমন সময় কতগুলো ছেলে আমার অফিসে প্রবেশ করে দরজা বন্ধ করে আমার ওপর আক্রমণ চালায়। এমন সময় অফিসার সমিতির সভাপতি জাবেদ সাহেব এসে আমাকে উদ্ধার করেন। উনি না থাকলে হয়ত আমি লাশ হয়ে যেতাম। এর আগেও আমার ওপর আরও দুইবার হামলা চালানো হয়েছে।

মারধরকারীরা কারা জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘তারা সবাই ছাত্র। সরকারদলীয় ছাত্র সংগঠনের হতে পারে।’

এ ঘটনা তদন্তে মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের অধ্যাপক আবুল মনসুরকে প্রধান ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর রবিউল হাসান ভূঁইয়াকে সদস্য সচিব করে চার সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। কমিটির বাকি দুই সদস্য হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেপুটি রেজিস্ট্রার সৈয়দ ফজলুল করিম ও চবি অফিসার সমিতির সভাপতি রশীদুল হায়দার জাবেদ। কমিটিকে চার দিনের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

Yakub Group

অন্যদিকে এ ঘটনার সাথে সাথে হিসাব নিয়ামক দপ্তরের সব কার্যক্রম বন্ধ করে দেয় কর্মকর্তারা। এছাড়া ঘটনার প্রতিবাদে দুই দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে চবি অফিসার সমিতি।

বিশ্ববিদ্যালয় অফিসার সমিতির সাধারণ সম্পাদক হামিদ হাসান নোমানী চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, হিসাব নিয়ামককে মারধরের প্রতিবাদে আমরা দুই দিনের কর্মসূচি দিয়েছি। ১৩ জানুয়ারি মানববন্ধনের পর বৃহস্পতিবার (১৪ জানুয়ারি) অবস্থান ধর্মঘট পালন করবো আমরা।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, হিসাব নিয়ামক কর্মকর্তার সাথে কে বা কারা উদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করেছে। ঘটনার সাথে সাথে আশপাশের লোকজন ও প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা ছুটে আসে। এর আগে তারা পালিয়ে যায়। তবে তিনি (হিসাব নিয়ামক) কাউকে চিনতে পারেননি বলে জানিয়েছেন।

প্রক্টর আরও বলেন, আমরা গুরুত্বের সাথে বিষয়টি নিয়ে কাজ করছি। ঘটনাতদন্তে উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

এদিকে ফরিদুল আলম চৌধুরীর ওপর হামলার ঘটনায় চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় অফিসার সমিতি বুধবার (১৩ জানুয়ারি) সকাল ৯টায় বঙ্গবন্ধু চত্বরের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে। এ সময় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া বক্তব্য দেন। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কর্মচারী সমিতি ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কর্মচারী ইউনিয়ন অফিসার সমিতির কর্মসূচির সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করে। অফিসার্স সমিতির সভাপতি রশিদুল হায়দার জাবেদের সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ হামিদ হাসান নোমানীর পরিচালনায় এ সময় বক্তব্য রাখেন লাইব্রেরিয়ান (ভারপ্রাপ্ত) একেএম মাহফুজুল হক, ডেপুটি রেজিস্ট্রার এসএম ফোরকান, ডেপুটি রেজিস্ট্রার (একাডেমিক) এসএম আকবর হোসেন, উপ পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (পিএস টু ভিসি) মিসবাহুল মোকর রবিন, উপ হিসাব নিয়ামক ইফতেখার মো. আলমগীর, ডেপুটি রেজিস্ট্রার মিনা পারভিন হোসেন, সহকারী রেজিস্ট্রার আবদুর রহিম ও কর্মচারী সমিতির সভাপতি আনোয়ার হোসেন প্রমুখ।

সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm