চট্টগ্রাম শিল্পকলায় করোনাকালের পর প্রথম নাটক রোববার

0

করোনা পরিস্থিতিতে দীর্ঘ সময় বন্ধ থাকার পর চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমি মঞ্চে শুরু হতে যাচ্ছে নাটকের প্রদর্শনী। বাদল সরকার রচিত ও মোকাদ্দেম মোরশেদ নির্দেশিত ‘সারারাত্তির’ দিয়ে ফের শুরু হতে যাচ্ছে নাটকের যাত্রা। নাটকটির উদ্বোধনী মঞ্চায়ন হতে যাচ্ছে ১০ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা সাতটায়। পরদিন একই সময়ে হবে দ্বিতীয় প্রদর্শনী।

চট্টগ্রাম জেলা শিল্পকলা একাডেমির মঞ্চে ১ সেপ্টেম্বর সাংস্কৃতিক আয়োজন শুরু হলেও ‘সারারাত্তির’ হবে করোনাকালের পর প্রথম নাটক।

‘মনন থেকে মঞ্চে’— এই স্লোগানে ২০২০ সালের ২৫ অক্টোবর যাত্রা করে প্রসেনিয়াম। প্রায় এক বছরের প্রস্তুতির পর তারা মঞ্চে নিয়ে আসছে প্রথম প্রযোজনা ‘সারারাত্তির’।

‘সারারাত্তির’-এর প্রধান তিন চরিত্রে অভিনয় করছেন প্রতীক গুপ্ত, ফারহানা আনন্দময়ী ও মিশফাক রাসেল। আলোক পরিকল্পনা করেছেন মোসলেম উদ্দিন শিকদার এবং মঞ্চ ও পোশাক পরিকল্পনা করেছেন সিরাজাম মুনিরা স্বর্ণা। কোরিওগ্রাফি মিতাশা মাহরিন, আবহ পরিকল্পনায় মোকাদ্দেম মোরশেদ এবং শব্দ প্রক্ষেপণে দিদারুল আলম।

গল্পে দেখা যাবে, ছুটি কাটাতে বের হয়ে বর্ষার রাতে এক দম্পতি আটকে যায় খোলামাঠের ধারে এক পোড়োবাড়িতে। রাতটা সেখানে কাটানো ছাড়া অন্য কোনো উপায়ও ছিল না। আর সেখানেই আবির্ভূত হলো তৃতীয় চরিত্রটি, পোড়োবাড়ির প্রৌঢ় মালিক। নাটক কিংবা নাটকীয়তার শুরু তখনই।

ভুতুড়ে আলো-আঁধারিতে প্রৌঢ়ের পরিচয়, আতিথেয়তা, এক রাতের আন্তরিকতা, এসবের আড়াল ডিঙিয়ে যা মূর্ত হয়ে তিনজনের সামনে এসে দাঁড়ায়, তা হলো সম্পর্কের প্রতিরূপ; যা এত দিন এই দম্পতির কাছে অজানা, অচেনা ছিল।

সাত বছরের অভ্যস্ত দাম্পত্যের শেকলে বন্দী হয়ে-পড়া দম্পতিটি ধীরে ধীরে অনুধাবন করতে পারে, কাছে থাকলেই কাছের মানুষ হওয়া যায় না হয়তো। ফাঁকি ছিল না কোথাও, কিন্তু নিশ্চিতভাবেই বড় ফাঁক ছিল ওদের সম্পর্কের বুননে। আর এই উপলব্ধির আয়নায় দুজনকে মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে সম্পর্কের সেই অদেখা রূপকে আবিষ্কারে অনুঘটক হয়ে কাজ করে তৃতীয় ব্যক্তি।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm