s alam cement
আক্রান্ত
৩২৫৪০
সুস্থ
৩০৪২০
মৃত্যু
৩৬৭

চট্টগ্রাম-ঢাকা বুলেট ট্রেনের ভাড়া ২০০০ টাকা, সময় লাগবে ৫৫ মিনিট

৯৭ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প

1

দ্রুতগতির বুলেট ট্রেনে চট্টগ্রাম থেকে ঢাকা যেতে ভাড়া লাগবে প্রায় দুই হাজার টাকা। কোনো বিরতি ছাড়াই এই পথ অতিক্রম করতে সময় লাগবে কেবল ৫৫ মিনিট। বিমানেও অনেকটা এই সময়ে ঢাকা পৌঁছা গেলেও তার ভাড়া ২৫০০ থেকে ৩০০০ টাকার মধ্যে পড়ে।

ইতিমধ্যে ঢাকা-চট্টগ্রাম-ঢাকা বুলেট ট্রেনের ৯৭ হাজার কোটি টাকার এই প্রকল্পের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের কাজ শেষ হয়েছে। বর্তমানে নকশা তৈরির কাজ চলছে। আগামী দুই মাসের মধ্যে নকশা তৈরির এই কাজ শেষ হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

ঢাকা-চট্টগ্রাম বুলেট ট্রেন চলবে ঘন্টায় ৩০০ কিলোমিটার গতিতে। প্রতিদিন এই ট্রেনে ৫০ হাজার যাত্রী বহন করা যাবে। প্রাথমিক রুট ম্যাপ অনুযায়ী প্রস্তাবিত রেলপথে মোট ছয়টি স্টেশন রয়েছে। সেগুলো হলো— চট্টগ্রাম, পাহাড়তলী, নারায়ণগঞ্জ, কুমিল্লা, ফেনী ও ঢাকা।

সূত্রমতে, শুরুতে ৪০ জোড়া রেল চালু করা হবে। পরে যাত্রীদের চাহিদা অনুযায়ী রেলের সংখ্যা আরও বাড়ানো হবে।

Din Mohammed Convention Hall

সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, ঢাকা-চট্টগ্রাম বুলেট ট্রেনের ভাড়া হতে পারে প্রায় দুই হাজার টাকা। তবে এই ভাড়া নির্ভর করবে প্রকল্পের কাজের সময়সীমাও ওপর। প্রকল্পের কাজ শেষ হতে যদি বেশি সময় লাগে, তাহলে ভাড়ার পরিমাণ খানিকটা বাড়তেও পারে।

বুলেট ট্রেনে করে বিরতি ছাড়া চট্টগ্রাম থেকে ঢাকায় পৌঁছা যাবে মাত্র ৫৫ মিনিটে। তবে ট্রেন যদি নির্ধারিত স্টেশনে থামে, তাহলে সময় লাগতে পারে ৭৩ মিনিট বা ১ ঘন্টা ১৩ মিনিট। বুলেট ট্রেন বিরতিহীন চলবে, নাকি স্টেশনে স্টেশনে থামবে— সেই সিদ্ধান্ত অবশ্য আসবে চূড়ান্ত অনুমোদনের পর।

বুলেট ট্রেনে ঢাকা থেকে চট্টগ্রামের এই প্রকল্পটির জন্য মোট আনুমানিক ব্যয় হবে প্রায় ১১ দশমিক ৪ বিলিয়ন ডলার। বাংলাদেশি টাকায় যার পরিমাণ প্রায় ৯৬ হাজার ৭৫২ কোটি টাকা।

দ্রুতগতির এই রেলপথ হবে উন্নত এবং ডাবল ট্র্যাকের। এছাড়াও পাথরহীন এই রেলপথটি হবে বাংলাদেশ রেলওয়ের প্রথম বিদ্যুৎচালিত রেলপথ। প্রকল্পটির জন্য ৬৬৮ দশমিক ২৪ হেক্টর জমির প্রয়োজন হবে, ফলে এটি বাস্তবায়নে বাংলাদেশ রেলওয়েকে ৪৬৪ দশমিক ২ হেক্টর জমি অধিগ্রহণ করতে হবে।

সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ManaratResponsive
1 মন্তব্য
  1. ফিরোজ বলেছেন

    বৃহত্তর নোয়াখালী ও চাঁদপুরের যাত্রীদের কথা বিবেচনা করে লাকসাম জংশনে যাত্রা বিরতী দেয়া প্রয়োজন।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন
ksrm