চট্টগ্রাম-ঢাকায় টিভি দেখতে চাইলে ‘সেট টপ বক্স’ নিতে হবে ২৫ দিনের মধ্যে

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের গণবিজ্ঞপ্তি জারি

1

আগামী ২৫ দিনের মধ্যে চট্টগ্রাম ও ঢাকা শহরের ডিশ ক্যাবলের গ্রাহকদের সেট টপ বক্স সংগ্রহ করার জন্য বলে দিয়েছে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়। সেট টপ বক্স না নিলে ৩০ নভেম্বরের পর চট্টগ্রাম ও ঢাকায় আর স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেল দেখতে পারবেন না গ্রাহকরা।

বৃহস্পতিবার (৪ নভেম্বর) তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের জারি করা গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘আগামী ৩০ নভেম্বরের মধ্যে ঢাকা ও চট্টগ্রাম শহরে টিভি ক্যাবল নেটওয়ার্ক ডিজিটাল পদ্ধতির আওতায় আসবে। স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেল দেখা অব্যাহত রাখতে সম্মানিত ডিশ ক্যাবল গ্রাহকগণকে এই সময়ের মধ্যে ক্যাবল/ফিড অপারেটরের সহযোগিতায় এনালগ পদ্ধতির পরিবর্তে ডিজিটাল সেট টপ বক্স স্থাপনের জন্য অনুরোধ করা যাচ্ছে। অন্যথায় ৩০ নভেম্বরের পর ঢাকা ও চট্টগ্রাম শহরে স্যাটেলাইট টিভি চ্যানেল দেখা যাবে না।’

চট্টগ্রাম ও ঢাকা শহরে প্রচলিত পদ্ধতির ডিশ ক্যাবল সিস্টেমের পরিবর্তে পুরো ব্যবস্থাটিকে ডিজিটাল সিস্টেমের আওতায় আনা হচ্ছে। ফলে বিভিন্ন চ্যানেল দেখতে হলে গ্রাহককে ডিজিটাল সেট টপ বক্স কিনে সেটার গ্রাহক হতেই হবে।

আর এই সবকিছুই করতে হবে আগামী ৩০ নভেম্বরের মধ্যে। এই সময়ের মধ্যে ডিশ ব্যবহারকারীরা সেট টপ বক্স না বসালে আর স্যাটেলাইট চ্যানেল দেখতে পারবেন না।

জানা গেছে, বিভিন্ন চ্যানেল দেখতে হলে গ্রাহককে ডিজিটাল সেট টপ বক্স কিনে সেটার গ্রাহক হতে হবে। গ্রাহকদের সেট টপ বক্স দেওয়ার ব্যবস্থা করবে ক্যাবল অপারেটররা। কিস্তিতে গ্রাহকদের কাছ থেকে তারা সেট টপ বক্সের দাম আদায় করবে।

Yakub Group

কেবল অপারেটররা অবশ্য ইতিমধ্যে জানিয়েছেন, সেট টপ বক্সের দাম তারা গ্রাহকদের কাছ থেকে ১২ থেকে ৩০ কিস্তিতে নেবেন। অন্যদিকে গ্রাহক চাইলে কেবল অপারেটরের কাছ থেকে না নিয়ে নিজেই বাজার থেকেও কিনে নিতে পারবেন।

সরকার দুটি প্রতিষ্ঠানকে ডিটিএইচ লাইসেন্স দিয়েছে। এর মধ্যে বর্তমানে সচল আছে বেক্সিমকো গ্রুপের মালিকানাধীন ‘আকাশ’। সেট টপ বক্সসহ প্রতিষ্ঠানটির ডিটিএইচ সেবার সর্বনিম্ন প্যাকেজের মূল্য প্রায় ৪ হাজার টাকা। এছাড়া স্ট্যান্ডার্ড প্যাকেজের মাসিক বিল প্রায় ৫০০ টাকা। অন্যদিকে ডিটিএইচ লাইসেন্স পাওয়া অপর প্রতিষ্ঠানটি সরকারি মালিকানাধীন বিটিভি। তবে তারা এখনও ডিটিএইচ কার্যক্রম শুরু করেনি।

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ ইতিমধ্যে জানিয়ে দিয়েছেন, আগামী ৩০ নভেম্বরের মধ্যে ঢাকা এবং চট্টগ্রাম শহরে সব ক্যাবল নেটওয়ার্ক সিস্টেম ডিজিটালাইজড করতে হবে। এছাড়া ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে অন্যান্য মেট্রোপলিটন শহর, সব বিভাগীয় শহর এবং কুমিল্লা, বগুড়া, দিনাজপুর, কুষ্টিয়া, রাঙামাটি, কক্সবাজার জেলা শহরে ক্যাবল নেটওয়ার্ক ডিজিটালাইজেশনের আওতায় আনতে হবে।

হাছান মাহমুদ বলেন, ডিজিটাল সেট টপ বক্সের দাম এক হাজার ২০০ থেকে এক হাজার ৫০০ টাকা বা তার বেশিও হয় অনেক সময়। ক্যাবল অপারেটররা সেগুলো সরবরাহ করবে। সেটি ১২ কিংবা ৩০ কিস্তিতে তারা টাকা নেবেন। কিভাবে নেবেন— সেটি গ্রাহকের সঙ্গে তাদের বিষয়। সেটা সরকার ঠিক করে দেবে না।

মন্ত্রী বলেন, ‘দুটি ডিটিএইচ লাইসেন্স দেওয়া আছে। দুটির মধ্যে একটি আকাশ, আরেকটি বিটিভিকে। বিটিভি এখনও কার্যক্রমে যায়নি, খুব সহসা যাবে। আমরা দেখছি টাটা স্কাইয়ের নামে অনেক জায়গায় ডিটিএইচ সেবা বিভিন্ন জায়গায় দেওয়া হচ্ছিল, সেটির বিরুদ্ধে আমরা এনফোর্সমেন্ট করেছিলাম, অনেক কমেছে।’

তিনি বলেন, ‘ইদানিংকালে চীন থেকে সেটআপ বক্স এনে অন্যদের ডিস লাগিয়ে সেখান থেকে ডিটিএইচ সেবা নিচ্ছে, এগুলোর বিরুদ্ধে আমরা এনফোর্সমেন্ট করব। এগুলোর কিন্তু কঠিন শাস্তি হবে।’

সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

1 মন্তব্য
  1. এন আমিন বলেছেন

    এটা কি বেক্সিমকোর জন্যে অতিমাত্রার সুবিধা নাকি ডিজিটালাইজেশন!?

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm