চট্টগ্রাম-কক্সবাজারে ৪ হাজার ৭৫০ কোটি টাকা খাটাবে ৬ প্রতিষ্ঠান

কাজ পাবেন ১ হাজার ২০০ মানুষ

৬ প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে ৪৫৭ মিলিয়ন ডলারের (প্রায় ৪ হাজার ৭৫০ কোটি টাকা) বিনিয়োগ পেয়েছে চট্টগ্রামের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর ও কক্সবাজারে দেশের প্রথম বিশেষায়িত ট্যুরিজম পার্ক সাবরাং। এসব প্রকল্প শুরু হলে তাতে অন্তত ১ হাজার ২০০ মানুষ কাজের সুযোগ পাবেন বলে আশা করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ (বেজা) জানিয়েছে, চট্টগ্রাম-কক্সবাজারের দুই শিল্পাঞ্চলে দেশের ৬টি শিল্পপ্রতিষ্ঠান হোটেল-রিসোর্ট নির্মাণ এবং ঔষধ শিল্পের কাঁচামাল উৎপাদনে এই অর্থ বিনিয়োগ করবে। এজন্য প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ৪৭ একর জায়গা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এসব প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে ৮ হাজারের বেশি মানুষের কর্মসংস্থান হবে।

পাহাড় ও সাগরের বৈচিত্র্যপূর্ণ সৌন্দর্যের লীলাভূমি সাবরাং ট্যুরিজম পার্ক। দেশের সর্বদক্ষিণে টেকনাফ উপজেলার প্রায় ১ হাজার একর জায়গায় দেশের অন্যতম আর্কষণীয় এ পর্যটনকেন্দ্রটি গড়ে উঠছে। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যেই সাবরাং ট্যুরিজম পার্কে মাটি ভরাটের কাজ শেষ হবে।

কক্সবাজারের টেকনাফে সমুদ্রের পাড়ঘেঁষে গড়ে উঠেছে সাবরাং ট্যুরিজম পার্ক; এখানে ইকো-ট্যুরিজম, মেরিন এ্যকুয়ারিয়াম ও সি-ক্রুজ, বিদেশি পর্যটকদের জন্য বিশেষ সংরক্ষিত এলাকা, সেন্টমার্টিনে ভ্রমণের বিশেষ ব্যবস্থা, ভাসমান জেটি, শিশু পার্ক, ইকো-কটেজ, ওশেনেরিয়াম, আন্ডার ওয়াটার রেস্টুরেন্ট, ভাসমান রেস্টুরেন্টসহ নানা রকমের বিনোদনের সুবিধা থাকবে।

কর্তৃপক্ষের প্রত্যাশা, এই পর্যটন কেন্দ্র বাস্তবায়ন হলে প্রতিদিন দেশি-বিদেশি ৩৯ হাজার পর্যটক উপভোগ করতে পারবে। ১১ হাজার মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হবে এখানে।

Yakub Group

সাবরাং ট্যুরিজম পার্কে অবকাঠামো উন্নয়নের কাজ এখনও শেষ না হলেও এরই মধ্যে সেখানে ৫৭ মিলিয়ন ডলার (৫৯০ কোটি টাকা) বিনিয়োগ করতে যাচ্ছে পাঁচটি প্রতিষ্ঠান।

বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) সঙ্গে প্রতিষ্ঠানগুলোর পক্ষে চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ১ একর জায়গায় ১৬ মিলিয়ন ডলার ব্যয়ে তিন তারকা মানের হোটেল নির্মাণ করবে ইফাদ মোটরস লিমিটেড। তিনটি ব্লকে ৫ একর জায়গায় হোটেল, মোটেল, কটেজ ও রিসোর্ট নির্মাণ করবে ডার্ড গ্রুপের সহযোগী তিন প্রতিষ্ঠান। এতে ব্যয় হবে প্রায় ৩৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার (৩৯৩ কোটি টাকা)।

এছাড়া হোটেল নির্মাণে ১ একর জায়গা পেয়েছে ইস্ট ওয়েস্ট ট্রাভেলস অ্যান্ড ট্যুরস লিমিটেড।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর বাংলাদেশের বৃহত্তম ও প্রথম পরিকল্পিত শিল্পনগর। চট্টগ্রামের মীরসরাই ও সীতাকুণ্ড উপজেলা আর ফেনীর সোনাগাজী উপজেলায় বিস্তৃত প্রায় ৩৩ হাজার একর জমির ওপর গড়ে উঠছে এই শিল্পনগর।

এ শিল্পনগরে ওষুধের কাঁচামাল ও রফতানিযোগ্য ওষুধ উৎপাদনে ৪০ একর জায়গায় ৫টি প্ল্যান্ট স্থাপন করবে হেলথকেয়ার গ্রুপ। এতে ৪০০ মিলিয়ন ডলার (৪ হাজার ১০০ কোটি টাকা) বিনিয়োগ করা হবে। এতে ৭ হাজার মানুষের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হবে।

এ পর্যন্ত দুই শতাধিক দেশি-বিদেশি প্রতিষ্ঠান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরে বিনিয়োগে এগিয়ে এসেছে। এদের সঙ্গে ২২ বিলিয়ন ডলারের বিনিয়োগ চুক্তি হয়েছে। আরও বিনিয়োগ-শিল্পায়ন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। চীন, জাপান, মালয়েশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, সিঙ্গাপুর, কোরিয়া, ভারত, অস্ট্রেলিয়া, থাইল্যান্ডসহ বিদেশি ও বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানকে আকৃষ্ট করেছে বঙ্গবন্ধু শিল্পনগর।

শিল্পনগরে সরাসরি শতভাগ বিদেশি বিনিয়োগ (এফডিআই), বেসরকারি উদ্যোগ এবং যৌথ বিনিয়োগ প্রস্তাব অব্যাহত আছে। শিল্পোদ্যোক্তা-বিনিয়োগকারীরা একক অথবা যৌথ উদ্যোগে টেক্সটাইল, গার্মেন্টস ও নিটওয়্যার, ইস্পাত ও লোহাজাত শিল্প, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাত, পাটজাত শিল্প, চামড়া শিল্প, রাসায়নিক, প্লাস্টিক ও মেলামাইন, স্পোর্টস সামগ্রী, খেলনা, সাইকেল, বৈদ্যুতিক ও ইলেকট্রনিক্স সরঞ্জাম, ওষুধ, মেডিকেল সামগ্রী, কন্টেইনার ম্যানুফ্যাকচারিং, ভোজ্যতেল, খাদ্য প্রক্রিয়াজাত, মোটরযান ও অটোমোবাইল, আইটি, বিভিন্ন সেবাখাতের পণ্যসামগ্রী উৎপাদনের উপযোগী শিল্প-কারখানা স্থাপন করছে।

সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ksrm