চট্টগ্রাম এসে দেহব্যবসার ফাঁদে কুমিল্লার নারী, খুলশীতে গ্রেপ্তার ৪

0

কুমিল্লায় প্রবাসী স্বামীর সাথে অভিমান করে ৩ বছরের শিশুকে নিয়ে ঘর থেকে বেরিয়ে পড়ে সুমনা (ছদ্মনাম)। বাস স্টেশনে পৌঁছাতেই এক নারীর দেওয়া চাকরির টোপে পড়ে চট্টগ্রামের খুলশীতে এসে বনে যান যৌনকর্মী। প্রায় দুইমাস বাসাবাড়িতে বন্দি রেখে দেহব্যবসায় বাধ্য করে মা-মেয়ে।

ভিকটিম সুমনার অভিযোগের ভিত্তিতে বিউটি পার্লারে চাকরি দেওয়ার কথা বলে দেহব্যবসায় বাধ্য করার দায়ে চট্টগ্রাম নগরীর খুলশী থানার আল ফালাহ গলির একটি ভবনে অভিযান চালিয়ে মা-মেয়ে তাদের পুরুষ সহযোগীসহ ৪জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন পাঠানটুলীর খলিলুর রহমানের মেয়ে খালেদা মুস্তারি সুমা (৫০), সুমার মেয়ে তাসমিয়া বিনতে জয়নাল (৩০)। তাদের সহযোগীরা হলেন পূর্ব মাদারবাড়ির মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে খায়রুল আনোয়ার (৩৮)ও লাভলেইন এলাকার মোহাম্মদ আলীর ছেলে দিদারুল আলম (৪০)।

বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) গভীর রাতে অভিযান চালায় খুলশী থানা পুলিশ। পুলিশ অভিযুক্তদের আটকের পাশাপাশি সন্তানসহ উদ্ধার করেছে প্রতারণার শিকার ওই নারীকে।

খুলশী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা প্রণব চৌধুরী চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, ‘প্রতারণার শিকার নারী কৌশলে তার এক ভাইকে বিষয়টি জানায়। তার ভাই থানায় অভিযোগ করলে আমরা ভুক্তভোগী নারী ও তার শিশুকে উদ্ধার করি। তিনি ওই চারজনকে আসামি করে মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন। গ্রেপ্তারকৃতদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী নারীর বাড়ি কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলায়। গত ১০ সেপ্টেম্বর প্রবাসী স্বামীর সঙ্গে ঝগড়া করে তিন বছর বয়সী সন্তানকে নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে পড়েন তিনি। কুমিল্লার গৌরিপুর বাসস্ট্যান্ডে খালেদা মুস্তারি সুমার সঙ্গে আলাপ হয়। সুমা তাকে বিউটি পার্লারে চাকুরি দেওয়ার কথা বলে চট্টগ্রাম নগরীর খুলশীর আল ফালাহ গলি বনানী নামক ভবনের তিনতলায় আটকে রাখেন। বিভিন্ন সময় তাকে অনৈতিক কাজে বাধ্য করেন।

এফএম/এসএস

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।