চট্টগ্রামে ১৭ নতুন পিপিসহ আইন কর্মকর্তা হলেন ১৭৭ জন

চট্টগ্রাম জেলা ও মহানগর আদালতে নতুন ১৭ বিশেষ পাবলিক প্রসিকিউটরসহ (পিপি) বিভিন্ন স্তরে ১৭৭ জন আইন কর্মকর্তা নিয়োগ দিয়েছে আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিচার বিভাগ।

সোমবার (১৯ ডিসেম্বর) আইন,বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিচার বিভাগের সিনিয়র সহাকারী সচিব (জিপি, পিপি) মো. আব্দুছ ছালাম মতল স্বাক্ষরিত এই নিয়োগ আদেশ দেওয়া হয়।

বিচারিক ট্রাইব্যুনালগুলোর মধ্যে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ হলো দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল। চট্টগ্রাম বিভাগের এই বিশেষ ট্রাইব্যুনালের পিপি হিসেবে দায়িত্ব পেয়েছেন অ্যাডভোকেট অশোক কুমার দাশ।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে অ্যাডভোকেট অশোক কুমার দাশ বলেন, ‘পিপিদের কাজ হচ্ছে তথ্য-উপাত্ত বিচারকের কাছে উপস্থাপন করে দ্রুত সময়ে রায় ঘোষণার ব্যবস্থা করা। এক্ষেত্রে অনেকে সরকারি পিপিদের শত্রু মনে করেন। তবে আমি বলতে চাই—আমরা রাষ্ট্রের হয়ে কাজ করি, আমরা রায় ঘোষণার জন্য পর্যাপ্ত প্রমাণ উপস্থাপন করি, যাতে দ্রুত সময়ে বাদি ও বিবাদি বিচার পেয়ে থাকে।’

অশোক কুমার দাশ চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক। তিনি স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে জেল খেটেছেন এবং ১৫ আগস্টের গ্রেনেড হামলার বিরোধিতা করে হয়েছেন মামলার আসামিও। এসব মামলার অভিজ্ঞতা থেকে তিনি বলেন, ‘আমি জানি সুষ্ঠু বিচার পেতে একজন পিপি কত বড় দায়িত্ব পালন করেন।’

তিনি বলেন, ‘আমি যেহেতু দ্রুত বিচারের মত গুরুত্বপূর্ণ ট্রাইব্যুনালের দায়িত্ব পেয়েছি, তাই আমি চেষ্টা করবো, যাতে আমার ট্রাইব্যুনালের জমে থাকা মামলাগুলো দ্রুত রায়ের জন্য তৈরি করা।’

Yakub Group

চট্টগ্রাম বিভাগীয় দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে বিশেষ পিপি অশোক দাশ ছাড়াও পরিবেশ আদালতের আবদুল হান্নান, মানবপাচার অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালে আনোয়ার হোসেন আজাদ, সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালের রুবেল পাল ও প্রশাসনিক ট্রাইব্যুনালের শেখ অহিদুল নবীকে প্যানেল আইনজীবী নিয়োগ দিয়েছে সরকার।

এছাড়া চট্টগ্রামের সাতটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের তিনটিতে নতুন পিপি নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। অপর চারটিতে থাকা আগের পিপিদের পুনর্নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া বিশেষ আদালত ও ট্রাইব্যুনালগুলোতে বিশেষ পিপি হিসেবে ১০ জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

জেলা ও দায়রা জজ আদালতে অতিরিক্ত পিপি হিসেবে ২৭ জন ও মহানগর দায়রা জজ আদালতে ২৬ জন এবং সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর (এপিপি) হিসেবে জেলা আদালতে ৩৮ জন ও মহানগরে ৩০ জন নিয়োগ পেয়েছেন। জেলা ও দায়রা জজ আদালতের অধস্তন আদালতগুলোতে নিয়োগ পেয়েছেন ২৩ অতিরিক্ত সরকারি কৌঁসুলি (অতিরিক্ত জিপি) ও ১৬ সহকারী জিপি।

বিএস/ডিজে

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ksrm