s alam cement
আক্রান্ত
১০২৪১৫
সুস্থ
৮৬৮৫৬
মৃত্যু
১৩৩১

চট্টগ্রামে হঠাৎই কমে গেল করোনার তেজ, শনাক্ত ২০ শতাংশের নিচে

0

চট্টগ্রামে মাসজুড়ে করোনার তাণ্ডবের পর অবশেষে তেজ কমেছে খানিকটা। বহুদিন পর শেষ পর্যন্ত চট্টগ্রামে করোনা শনাক্তের হার নামল ২০ শতাংশের নিচে। জুলাইয়ের শুরু থেকে প্রায় নিয়মিত হাজারছাড়ানো করোনা শনাক্ত শনিবার পর্যন্ত সবশেষ ২৪ ঘন্টায় এই প্রথম নামলো অনেকটা নিচে। এদিন মৃত্যুর সংখ্যাও ছিল সর্বনিম্ন।

শনিবার (১৪ আগস্ট) পর্যন্ত সবশেষ ২৪ ঘণ্টায় ৪৬৬ জনের নমুনায় করোনাভাইরাস শনাক্ত হলে চট্টগ্রামে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯৪ হাজার ৩৫০ জনে। আর এই একই সময়ে মৃত্যু হয়েছে ৫ জনের— যাদের ৩ জন চট্টগ্রাম নগরের এবং বাকি ২ জন উপজেলার।

শনিবার (১৪ আগস্ট) মধ্যরাতে চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয়ের রিপোর্টে বলা হয়েছে, নগরীর ১০টি ল্যাব ও এন্টিজেন টেস্টে গত ২৪ ঘন্টায় ২ হাজার ৩৩৩ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হলে নতুন করে ৪৬৬ জন করোনা পজিটিভ হিসেবে শনাক্ত হন।

নতুন শনাক্তদের মধ্যে চট্টগ্রাম মহানগরে রয়েছে ২৯৭ জন এবং ১৪ উপজেলায় ১৬৯ জন। উপজেলায় আক্রান্তদের মধ্যে রাউজানে সর্বোচ্চ ৫০ জন, হাটহাজারীতে ৪১ জন, ফটিকছড়িতে ২৩ জন, বোয়ালখালীতে ২২ জন, আনোয়ারায় ১১ জন, সীতাকুণ্ডে ৮ জন, চন্দনাইশে ৬ জন, পটিয়ায় ২ জন, মিরসরাইয়ে ২ জন, সাতকানিয়ায় ১ জন, সন্দ্বীপে ১ জন, বাঁশখালীতে ১ জন এবং লোহাগাড়ায় ১ জন। এদিন রাঙ্গুনিয়ায় কোনো রোগী মেলেনি।

চট্টগ্রাম জেলায় করোনাভাইরাসে মোট সংক্রমিতের সংখ্যা এখন ৯৪ হাজার ৩৫০ জন। এর মধ্যে চট্টগ্রাম মহানগরের বাসিন্দা ৬৯ হাজার ৩৩৮ জন এবং ১৪ উপজেলার ২৫ হাজার ১২ জন।

এদিকে গত ২৪ ঘন্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চট্টগ্রাম মহানগরে আরও ৩ জনের মৃত্যু হল। আর উপজেলায় মারা গেলেন ২ জন। সবমিলিয়ে চট্টগ্রামে করোনায় এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১১৬ জনে। এর মধ্যে চট্টগ্রাম মহানগরের ৬৪৬ জন ও উপজেলার ৪৭০ জন।

ল্যাবভিত্তিক রিপোর্টে দেখা যায়, ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল এন্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস ল্যাবে (বিআইটিআইডি) ৯৩২ জনের নমুনা পরীক্ষায় চট্টগ্রাম নগরের ৪৫ ও উপজেলার ৩২ জন জীবাণুবাহক পাওয়া গেছে। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ৩০২ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হলে নগরের ৬৩ জন ও উপজেলার ৩৫ জনের শরীরে জীবাণুর উপস্থিতি চিহ্নিত হয়। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ২১২ জনের নমুনা পরীক্ষায় চট্টগ্রাম নগরের ৪১ ও উপজেলার ৪৪ জন জীবাণুবাহক পাওয়া গেছে। চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও অ্যানিমেল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ২৪৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হলে নগরের ৩৫ জন ও উপজেলার ৩৫ জনের শরীরে জীবাণুর উপস্থিতি চিহ্নিত হয়।

অন্যদিকে ৩৪টি এন্টিজেন টেস্টে উপজেলার ৪ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়।

এদিকে বেসরকারি ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরির মধ্যে আগ্রাবাদের মা ও শিশু হাসপাতালে ৬১টি নমুনায় চট্টগ্রাম নগরের ৯ ও উপজেলার একজনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। বেসরকারি শেভরন ল্যাবে ২৪৬টি নমুনার মধ্যে উপজেলার ৫টিসহ ৩০টি নমুনার ফলাফল পজিটিভ আসে।

এছাড়া বেসরকারি মেডিকেল সেন্টার হাসপাতালে ২৯টি নমুনায় চট্টগ্রাম নগরের ১১ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। ইপিক হেলথ কেয়ারে ১১৫টি নমুনায় চট্টগ্রাম নগরের ৩৬ ও উপজেলার ৯ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। ইমপেরিয়াল হাসপাতাল ল্যাবে ১৫৭টি নমুনায় চট্টগ্রাম নগরের ২৭ জন ও উপজেলার ৪ জনের শরীরে করোনা চিহ্নিত হয়েছে।

এদিকে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ল্যাবে এদিন কোনো নমুনা পরীক্ষা হয়নি।

সিপি

ManaratResponsive

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm