আক্রান্ত
২৯৪৩
সুস্থ
২২৪
মৃত্যু
৭৫

চট্টগ্রামে রোববার থেকে ২ ঘন্টার ব্যাংক, থাকছে কড়াকড়ি

এটিএম থেকে টাকা তোলার সীমা বেড়েছে

0

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী রোববার (২৯ মার্চ) থেকে সারা দেশের মত চট্টগ্রামেও সীমিত পরিসরে ব্যাংকিং সেবা চালু রাখবে ব্যাংকগুলো। এক্ষেত্রে চট্টগ্রাম জোনে সবগুলো ব্যাংক তাদের ২ থেকে ৫টি শাখা চালু রেখে সকাল ১০টা থেকে ১২টা পর্যন্ত সেবা দেবে আগামী ২ এপ্রিল পর্যন্ত। তবে খুব প্রয়োজন না হলে এ সময়ে সরাসরি ব্যাংকে না গিয়ে এটিএম ও মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মত বিকল্প মাধ্যমগুলো ব্যবহার করতে গ্রাহকদের পরামর্শ দিচ্ছে ব্যাংকগুলো। করোনা বিপর্যয়ে ব্যাংকগুলো কার্ডে লেনদেনের সীমা বাড়িয়ে দিয়েছে। ব্যাংকগুলো নিজ নিজ নিরাপত্তা বিবেচনা করেই টাকা উঠানোর পরিমাণও বাড়িয়েছে। এরই মধ্যে কয়েকটি ব্যাংক দিনে সর্বোচ্চ এক লাখ টাকা পর্যন্ত এটিএম থেকে তুলতে পারবে বলে জানিয়েছে গ্রাহকদের কাছে পাঠানো এসএমএসে।

বেসরকারি ইস্টার্ন ব্যাংক ও ব্যাংক এশিয়া জানিয়েছে, এখন থেকে তাদের কার্ডধারী গ্রাহকেরা প্রতিদিন সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকা পর্যন্ত তুলতে পারবেন এবং প্রতিদিন ১০ বার টাকা উঠানো যাবে। অন্যদিকে যে কোনো ব্যাংকের এটিএম বুথ থেকে আইএফআইসি ব্যাংকের কার্ড দিয়ে বিনা খরচে টাকা তোলা যাবে। ব্র্যাক ব্যাংকের সাধারণ গ্রাহকরাও প্রতিদিন সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকা পর্যন্ত তুলতে পারবেন। তবে প্রিমিয়াম গ্রাহকরা প্রতিদিন সর্বোচ্চ ২ লাখ টাকা পর্যন্ত তুলতে পারবেন।

জানা গেছে, নির্ধারিত দুই ঘন্টা সময়ে গ্রাহকদের শুধুমাত্র নগদ লেনদেনের সুযোগ দেবে এসব ব্যাংক। নগদ লেনদেন ছাড়া ব্যাংকিং খাতের অন্যান্য পরিসেবাগুলো পরবর্তী নির্দেশ না পাওয়া পর্যন্ত বন্ধ থাকবে।

গত ২৪ মার্চ বাংলাদেশ ব্যাংকের উপ-মহাব্যবস্থাপক মোহাম্মদ আমিনুর রহমান চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশের নির্দেশনা অনুযায়ী এসব ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে। করোনা প্রতিরোধে সরকার ঘোষিত ১০ দিনের সাধারণ ছুটির মধ্যে ব্যাংকিং ব্যবস্থা সচল রাখতে এই নির্দেশনা দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক।

তবে সেবা দেওয়ার ক্ষেত্রে গ্রাহকদের অবশ্যই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা মেনে ব্যাংকে আসা নিশ্চিত করার বিষয়ে জোর দিচ্ছে ব্যাংকগুলো। জানা গেছে, ব্যাংকের ভেতরে ভিড় এড়াতে ব্যাংকে একসাথে ৩ জনের বেশি ব্যক্তিকে প্রবেশ করতে না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বেশ কিছু বেসরকারি ব্যাংক। ৩ জন সেবা গ্রহণ শেষ করে বের হলে আরও ৩ জন প্রবেশ করতে পারবেন ওসব ব্যাংকে। তবে সবগুলো ব্যাংক এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। এর পাশাপাশি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থ্যার নির্দেশনা অনুযায়ী গ্রাহকদের জন্য ব্যাংকের প্রবেশপথেই হ্যান্ডওয়াশ, হ্যান্ড স্যানিটাইজারের সরবরাহ থাকবে।

এতো সবের পরেও খুব প্রয়োজন না হলে এই সময়ে সরাসরি ব্যাংকে না গিয়ে এটিএম ও মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মত বিকল্প মাধ্যমগুলো ব্যবহার করতে গ্রাহকদের পরামর্শ দিচ্ছে ব্যাংকগুলো। গ্রাহকদের সুবিধার্থে এসব চ্যানেলে টাকা লেনদেন নির্বিঘ্ন করার সব রকম প্রস্তুতি নেয়ার নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে ব্যাংকগুলোকে।

যমুনা ব্যাংকের কর্মকর্তা নাজমুল হোসাইন রাজু চট্টগ্রাম প্রতিদিনকে বলেন, ‘বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা অনুযায়ী চট্টগ্রামে আমাদের দুটি শাখায় সেবা চালু রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে গ্রাহকদের এটিএম ও মোবাইল ব্যাংকিং ব্যবহারে জোর দিচ্ছি আমরা। অনেক ব্যাংকেরই মোবাইল ব্যাংকিং ও মোবাইল অ্যাপ আছে— যেগুলো দিয়ে টাকা একাউন্ট টু একাউন্ট ট্রান্সফার, বিকাশে ট্রান্সফার, এজেন্ট থেকে নগদ উত্তোলন, বিল পেমেন্ট, অনললাইন শপিংসহ বিভিন্ন ব্যাংকিং অপারেশন করা যায়। গ্রাহকরা এসব সেবা নিতে পারেন।’

এআরটি/সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

Manarat

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন
ksrm