চট্টগ্রামে ভবন নির্মাণকাজ বন্ধে বন্দর থানাকে চিঠি সিডিএর, বিব্রত পুলিশ

চট্টগ্রাম নগরীর বন্দরের ফকিরহাটে অনুমোদন ছাড়া ভবন তৈরি করায় ভবন মালিককে কারণ দর্শানোর চিঠি দিয়েছে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (সিডিএ)। চিঠির অনুলিপিতে সংশ্লিষ্ট থানার ওসিকে নির্মাণকাজ বন্ধ করার অনুরোধও করা হয়েছে।

জানা গেছে, নগরীর বেশিরভাগ থানায় যাচ্ছে এই ধরনের অনুরোধের চিঠি। এতে বিব্রত হচ্ছেন পুলিশ কর্মকর্তারা।

এদিকে সিডিএ কর্মকর্তারা বলছেন, সংশ্লিষ্ট থানার কর্মকর্তাদের এমন অনুরোধ করে থাকেন সিডিএ।

কিন্তু কোনো লিখিত অভিযোগ ছাড়াই তৃতীয়পক্ষকে এমন দায়িত্ব দেওয়া নিজের দায়িত্বের বরখেলাপ বলেও মনে করছে পুলিশ।

জানা গেছে, নগরীর ফকিরহাট এলাকায় সিডিএর অনুমোদন ছাড়াই এক তলা ভবন তৈরির সেন্টারিংয়ের কাজ করছিলেন মোহাম্মদ রফিক নামের এক ব্যক্তি। ইফতেখার ফয়সাল নামের এক ব্যক্তির অভিযোগের ভিত্তিতে অবৈধ ভবন মালিককে কারণ দর্শানোর চিঠি দেয় সিডিএ।

বুধবার (২৮ ডিসেম্বর) পাঠানো চিঠি সিডিএর সদস্য সচিব ইমারত নির্মাণ কমিটি-২ ও অথরাইজড অফিসার-২ মোহাম্মদ ইলিয়াছ স্বাক্ষরিত। এতে জানানো হয়, এক সপ্তাহের মধ্যে ভবন মালিক ইমারত নির্মাণ আইন ১৯৫২ ও সংশোধনী ১৯৮৭ এর ৩বি ধারা অনুযায়ী কারণ জানাবেন।

Yakub Group

তবে এমন কারণ দর্শানোর চিঠিতে কারোর অপত্তি থাকার কথা নয়। তবে এই চিঠির অনুলিপিতে বন্দর থানার ওসিকে অনুরোধ করে জানানো হয়, সিডিএ থেকে পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত ওই ভবনের কাজ বন্ধ রাখতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে।

কিন্তু কোনো অভিযোগ ছাড়া বন্দর থানা কেন এ কাজ করবে—তা জানতে কথা হয় সিডিএ অথরাইজড অফিসার-২ মোহাম্মদ ইলিয়াছের সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘অনুমোদন ছাড়া ভবন তৈরি করায় আমরা কারণ দর্শানোর চিঠি দিয়ে ওসির কাছে হেল্প চাইতে পারি। এক্ষেত্রে পুলিশ কমিশনার বরাবর যেতে হয় না। তারা এই বিষয়ে সদুত্তর না দিলে ম্যাজিস্ট্রেট অভিযান পরিচালনা করে অবৈধ স্থাপনা ভেঙে দেবেন।’

পুলিশ সংশ্লিষ্টরা বলছেন, তৃতীয়পক্ষ কেন সেখানে গিয়ে কাজ বন্ধ করবে? সিডিএ কর্তৃপক্ষ অবৈধ ভবনের কাজ বন্ধ করতে নিজেরা যাবে। সেক্ষেত্রে পুলিশের সহায়তা চাইতে পারে। কিন্তু নিজের দায়িত্ব অন্যের ওপর চাপিয়ে দেওয়া দায়িত্বের বরখেলাপ।

আরও জানা গেছে, সিডিএ চিঠির অনুলিপিতে নগরীর বিভিন্ন থানায় এমন দায়িত্ব দেন। কিন্তু আদালত কিংবা পুলিশ কমিশনারের অনুমোদন ব্যতীত পুলিশকে এমন অনুরোধ বা আদেশ কেউ দিতে পারে না। কিন্তু কোনো অভিযোগ না থাকায় পুলিশ ওসব স্থানে কোনো ধরনের বাধা দিতে পারছে না। এছাড়া সেসব স্থানে কোনো দুর্ঘটনা ঘটলে সেই দায় পুলিশ কেন নেবে? এমন প্রশ্নের মুখে পড়তে হচ্ছে পুলিশকে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (অপরাধ ও অপারেশন) এএসএম মাহাতাব উদ্দিন বলেন, ‘এ বিষয়ে সিডিএকে জিজ্ঞেস করেন। তারা বিষয়টি ভাল জানবেন।’

আরএস/ডিজে

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ksrm