চট্টগ্রামে নৌকার প্রার্থীর কার্যালয় ভাঙচুর, পাল্টা হামলা বিএনপির অফিসে

চট্টগ্রামের ১০ আসনের উপনির্বাচনে নৌকার প্রার্থী মহিউদ্দিন বাচ্চুর নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলা চালিয়েছে বিএনপির নেতাকর্মীরা। এর জবাবে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা হামলা চালিয়েছে বিএনপির কার্যালয়ে।

চট্টগ্রামে নৌকার প্রার্থীর কার্যালয় ভাঙচুর, পাল্টা হামলা বিএনপির অফিসে 1

আর এই হামলা বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরুর নির্দেশেই হয়েছে বলে দাবি করেছেন চট্টগ্রাম-১০ আসনের নৌকার প্রার্থী মহিউদ্দিন বাচ্চু।

বুধবার (১৯ জুলাই) বিকালে হামলার পর মহিউদ্দিন বাচ্চুর প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে গণমাধ্যমের কাছে এমন অভিযোগ করেন তিনি।

এর আগে বুধবার বিকালে বিএনপির পদযাত্রা থেকে চট্টগ্রাম নগরীর লালখানবাজারের নৌকার প্রার্থী মহিউদ্দিন বাচ্চুর নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলা চালানো হয়। হামলায় একটি ট্রাক, একটি প্রাইভেট কার, একটি পাজেরো গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। এছাড়া নির্বাচনের লিফলেট ও ব্যানার ছিঁড়ে ফেলার অভিযোগ ওঠে। হামলায় আটজন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

এরপর বিক্ষুব্ধ আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ কাজীর দেউরির বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে হামলা চালায়। এই সময় প্রতিবাদে সড়কে আগুনও জ্বালানো হয়।

Yakub Group

হামলার পর তাৎক্ষণিক সংবাদ সম্মেলনে মহিউদ্দিন বাচ্চু বলেন, ‘বিএনপির পদযাত্রাটি যখন আমার নির্বাচনী কার্যালয় অতিক্রম করছিল, তখন আমির খসরু হাসতে হাসতে আঙুল দিয়ে ইশারা করে হামলার ইঙ্গিত দেন। এর পরপরই বিএনপির নেতাকর্মীরা লাঠি-সোটা, দেশী্য় অস্ত্র নিয়ে কার্যালয়ে হামলা করে। হামলায় নির্বাচনী ক্যাম্পের নিরাপত্তা প্রহরী নিউটন, মহিলা যুবলীগ নেত্রী উম্মে কাওসার এ্যাপিসহ আটজন কর্মী আহত হয়েছেন।’

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মহিউদ্দীন বাচ্চু বলেন, ‘এই ঘটনায় মামলা করা হবে। এছাড়া নগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার একটি বিক্ষোভ সমাবেশেরও আয়োজনের কথা রয়েছে।’

সংবাদ সম্মেলনে নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহতাব উদ্দীন চৌধুরী বলেন, ‘মহিউদ্দীন বাচ্চুকে হত্যার উদ্দেশ্যেই এই হামলা চালানো হয়। কিন্তু ভাগ্যক্রমে তাকে না পেয়ে কার্যালয়ে হামলা চালায় বিএনপির সন্ত্রাসীরা।’

বিএস/ডিজে

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!