চট্টগ্রামে জেলা প্রশাসনের অভিযানে জরিমানা গুনল ৯ ফিলিং স্টেশন

0

চট্টগ্রাম নগরীর বিভিন্ন এলাকার ফিলিং স্টেশনে অভিযান চালিয়েছে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত। অভিযানে ওজনে কম দেওয়া, প্রয়োজনীয় কাগজ দেখাতে না পারাসহ বিভিন্ন অনিয়মের জন্য ৯টি ফিলিং স্টেশনকে ১ লাখ ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৯ আগস্ট) বিকাল ৩টা থেকে সন্ধা ৭টা পর্যন্ত জেলা প্রশাসক মো. মমিনুর রহমানের নেতৃত্বে তিনজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এ অভিযান চালান।

কাট্টলী সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট উমর ফারুক ২ নম্বর গেট ও চান্দগাঁও এলাকায় অভিযান চালিয়ে খান অ্যান্ড ব্রাদার্সকে ১০ হাজার, ফসিল পেট্রোল পাম্পকে ১০ হাজার, বাকলিয়ার কর্ণফুলী ফিলিং স্টেশনকে ২০ হাজার, মীর ফিলিং স্টেশনকে ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড করেন।

অন্যদিকে চান্দগাঁও সার্কেলের সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মাসুদ রানা নগরীর নাসিরাবাদ ও প্রবর্তক এলাকায় অভিযান চালিয়ে ফয়েজ আহমেদ অ্যান্ড সন্সকে ১০ হাজার, বাদশা মিয়া ফিলিং স্টেশনকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

এছাড়া নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্লাবন কুমার বিশ্বাস হাক্কানী টাইগারপাস, ডিটি রোড, পাহাড়তলী ও আকবরশাহ এলাকায় অভিযান চালান। অভিযানে রিফুয়েলিং স্টেশন ইউনিট -১ কে ৫০ হাজার, নূর-এ-মদিনা সিএনজি ফিলিং স্টেশনকে ৪০ টাকা অর্থদণ্ড করেন।

Yakub Group

চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মো. মমিনুর রহমান বলেন, ‘নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বেশি মূল্যে বিক্রির, ওজনে কম দেওয়া, লাইসেন্স না থাকা, জ্বালানি তেলের মান নিয়ে অভিযোগ থাকায় মঙ্গলবার নগরীর বিভিন্ন ফিলিং স্টেশনে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। বিভিন্ন অনিয়মের প্রেক্ষিতে ফিলিং স্টেশনগুলোকে অর্থদণ্ড করা হয়।’

তিনি বলেন, ‘ফিলিং স্টেশন খোলার ক্ষেত্রে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের অনাপত্তিপত্র, বিস্ফোরক অধিদপ্তর ও পরিবেশ অধিদপ্তরের লাইসেন্স প্র‍য়োজন। কিন্তু সরজমিনে দেখা যায়, অনেকেরই প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নেই। যার ফলে তাদের অর্থদণ্ড করা হয়। আমাদের এ ধরনের অভিযান অব্যাহত থাকবে।’

ডিজে

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ksrm