করোনার ঝুঁকি নিয়েই চট্টগ্রামের গণপরিবহনে লক্ষ মানুষের চলাচল

0

করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়া রোধে জনসমাগমে নিরুৎসাহিত করা হলেও চট্টগ্রামে প্রতিদিন গণপরিবহনে যাতায়াত করছেন লক্ষাধিক মানুষ। গণপরিবহনের মাধ্যমে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়া রোধ করতে শনিবার (১৫ মার্চ) সচিবালয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক সংক্রমণ ঠেকাতে গণপরিবহন ব্যবহার না করা এবং বাস, লঞ্চ, ট্রেনের মতো গণপরিবহন জীবাণুমুক্ত করার অনুরোধ করেছেন। গণপরিবহনের মাধ্যমে করোনা ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনাকে উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না বলে মত দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

৭০ লাখ মানুষের বসবাসের নগর চট্টগ্রামে প্রতিদিন লক্ষাধিক যাত্রী বাদুড়ঝোলা হয়ে যাতায়াত করেন। গণপরিবহনগুলোর অধকিাংশের ভেতরের পরিবেশ ও বসার আসন অপরিচ্ছন্ন। যানবাহনের আসন ও হাতলে একাধিক মানুষের শরীরের স্পর্শ এবং গাদাগাদি করে দাঁড়িয়ে যাতায়াতের কারণে করোনার মতো সংক্রামক ভাইরাস একজনের শরীর থেকে অন্যের শরীরে ছড়িয়ে পড়ার আশংকা রয়েছে। এছাড়া মোটরসাইকেলে রাইড শেয়ারে আরোহীর ব্যবহৃত হেলমেটের মাধ্যমেও ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আশংকা রয়েছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গণপরিবহনে যাতায়াতের সময় মাস্ক দিয়ে নাক মুখ ঢেকে রাখা ও নির্দিষ্ট দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। যাতে আশেপাশের কিছু শরীরে স্পর্শ না হয়। গণপরিবহন থেকে নামার পর শরীরের খোলা স্থানগুলো যেমন হাত ও মুখ জীবাণুনাশক লিকুইড অথবা সাবান দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে।

মুরাদপুর মোড়ে গণপরিবহণের জন্য অপেক্ষারত বখতিয়ার, মহসিন, হাশেমসহ একাধিক যাত্রীদের সাথে কথা বললে তারা জানান, দেশে করোনাভাইরাস রোগী শনাক্ত হওয়ার পর স্বাভাবিকভাবে নিজেদের মধ্যে আতংক আছে। করোনাভাইরাস থেকে বাঁচার জন্য জনসমাগম ও গণপরিবহন এড়িয়ে চলা জরুরি হলেও আমাদের চলাচল করতে হচ্ছে। নির্দিষ্ট দূরত্ব তো দূরের কথা, পরিবহন সংকটের কারণে ভিড়ের মধ্যে গাদাগাদি করে বাড়ি ফিরতে হয়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. জাকির হোসেন বলেন, ‘করোনাভাইরাস আক্রান্ত মানুষের কাশি ও হাঁচি থেকে ছড়িয়ে পড়তে পারে প্রাণঘাতি এই ভাইরাস। আক্রান্ত ব্যক্তি যদি গণপরিবহনে যাতায়াত করে তাহলে তার শরীর থেকে ভাইরাস অন্যের শরীরে ছড়িয়ে পড়তে পারে। এজন্য যথাসম্ভব গণপরিবহন এড়িয়ে চলা দরকার। যদি গণপরিবহন ব্যবহার করতে হয় তাহলে নাক ও মুখ ঢেকে রাখা ও জীবানুনাশক লিকুইড বা সাবান দিয়ে হাতমুখ ধুয়ে ফেলতে হবে।

এসএস/সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন