চট্টগ্রামে করোনা সব রেকর্ড ভেঙে দিল, একদিনেই শনাক্ত ৮২১

করোনা এবার চট্টগ্রামে আগের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেল। এতোদিন সাতশোর ঘরে ঘোরাফেরা করলেও গত ২৪ ঘন্টায় চট্টগ্রামে করোনা শনাক্ত হল রেকর্ড ৮২১ জনের শরীরে। গতকালের ১৪ মৃত্যুর পর চট্টগ্রামে গত ২৪ ঘন্টায় মারা গেলেন আরও ৯ জন।

রোববার (১১ জুলাই) সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় ৮২১ জনের নমুনায় করোনাভাইরাস শনাক্ত হলে চট্টগ্রামে মোট করোনারোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬৫ হাজার ৮২৯ জনে। শনাক্তের দিক থেকে গত ২৪ ঘন্টায় পাওয়া ৮২১ জন করোনারোগী একদিনের আগের সব রেকর্ডই ভেঙে দিল। সংক্রমণের হার ৩৭ দশমিক ৭৬ শতাংশ। আর এই একই সময়ে মৃত্যু হয়েছে ৯ জনের— যার ৩ জন চট্টগ্রাম নগরের, আর বাকি ৬ জন উপজেলার।

সোমবার (১২ জুলাই) মধ্যরাতে চট্টগ্রাম সিভিল সার্জন কার্যালয়ের রিপোর্টে বলা হয়েছে, নগরীর নয়টি ও কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ল্যাব এবং এন্টিজেন টেস্টে গত ২৪ ঘন্টায় ২ হাজার ১৭৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হলে নতুন ৮২১ জন করোনা পজিটিভ হিসেবে শনাক্ত হন।

নতুন শনাক্তদের মধ্যে চট্টগ্রাম মহানগরে রয়েছে রেকর্ডসংখ্যক ৫২৭ জন এবং উপজেলাগুলোতে ২৯৪ জন। উপজেলায় আক্রান্তদের মধ্যে হাটহাজারীতে সর্বোচ্চ ৫৭ জন, মিরসরাইয়ে ৩৮ জন, রাউজানে ৩৫ জন, রাঙ্গুনিয়ায় ২৭ জন, বোয়ালখালীতে ২৭ জন, আনোয়ারায় ২৩ জন, পটিয়ায় ১৭ জন, সন্দ্বীপে ১৬ জন, সীতাকুণ্ডে ১৪ জন, চন্দনাইশে ১২ জন, বাঁশখালীতে ১১ জন, সাতকানিয়ায় ৮ জন, ফটিকছড়িতে ৬ জন এবং লোহাগাড়ায় রয়েছেন ৩ জন।

চট্টগ্রাম জেলায় এখন করোনাভাইরাসে মোট সংক্রমিতের সংখ্যা এখন ৬৫ হাজার ৮২৯ জন। এদের মধ্যে চট্টগ্রাম মহানগরের বাসিন্দা ৫০ হাজার ৬৬১ এবং ১৪ উপজেলার ১৫ হাজার ১৬৮ জন।

গত ২৪ ঘন্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে চট্টগ্রাম মহানগরে সাতজন এবং উপজেলাগুলোতে আরও নয়জনের মৃত্যু হল। সবমিলিয়ে চট্টগ্রামে করোনায় এ পর্যন্ত মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭৮০ জনে। এর মধ্যে চট্টগ্রাম মহানগরের ৫০০ ও উপজেলার ২৮০ জন।

ল্যাবভিত্তিক রিপোর্টে দেখা যায়, ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল এন্ড ইনফেকশাস ডিজিজেস ল্যাবে (বিআইটিআইডি) ২৯১ জনের নমুনা পরীক্ষায় চট্টগ্রাম নগরের ৪৫ ও উপজেলার ১২ জন জীবাণুবাহক পাওয়া গেছে। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ৩২৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হলে নগরের ৯৬ ও উপজেলার ২৭ জনের শরীরে জীবাণুর উপস্থিতি চিহ্নিত হয়। চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি এন্ড এনিম্যাল সায়েন্সেস বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ২২৯ জনের নমুনা পরীক্ষায় চট্টগ্রাম নগরের ২৫ ও উপজেলার ৪১ জন জীবাণুবাহক পাওয়া গেছে। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবে ১৭০ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হলে নগরের ৮৬ ও উপজেলার ২৯ জনের শরীরে জীবাণুর উপস্থিতি চিহ্নিত হয়।

নগরীর বিশেষায়িত কোভিড চিকিৎসা কেন্দ্র আন্দরকিল্লা জেনারেল হাসপাতালের আরটিআরএল-এ পরীক্ষা করা ৩৭টি নমুনায় নগরের ১৭ ও উপজেলার পাঁচটি নমুনার ফলাফল পজিটিভ আসে। নমুনা সংগ্রহের পরপরই ফলাফল প্রদানকারী এন্টিজেন টেস্টে ৬৬৩ জনের মধ্যে ২২৮ জন জীবাণুবাহক বলে জানানো হয়। এর মধ্যে চট্টগ্রাম নগরের ৬৮ জন ও উপজেলার ১৬০ জন। চট্টগ্রাম নগরীতে করোনা পরীক্ষার নমুনা সংগ্রহকারী কয়েকটি কেন্দ্রে এন্টিজেন টেস্ট করা হয়ে থাকে।

এদিকে বেসরকারি ক্লিনিক্যাল ল্যাবরেটরির মধ্যে আগ্রাবাদের মা ও শিশু হাসপাতালে ৫৩টি নমুনায় চট্টগ্রাম নগরের ২০ ও উপজেলার ৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। অন্যদিকে বেসরকারি এপিক হেলথ কেয়ারে ১৪১টি নমুনার মধ্যে উপজেলার ৫টিসহ ৬৫টি নমুনার ফলাফল পজিটিভ আসে। ইমপেরিয়াল হাসপাতালে ২১৭টি নমুনায় চট্টগ্রাম নগরের ৯৬ ও উপজেলার ৫ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। এদিন শেভরনে নমুনা পরীক্ষা হয়নি।

এদিন কক্সবাজার মেডিকেল কলেজ ল্যাবে ২৭টি নমুনার মধ্যে ৪ জনের পজিটিভ এসেছে।

সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!