চট্টগ্রামে অবিবাহিত পুরুষ বেশি, ফটিকছড়িতে মানুষ বেড়েছে, কর্ণফুলীতে কম

মোবাইল আছে ৫০ লাখ মানুষের কাছে

চট্টগ্রাম জেলায় পুরুষের চেয়ে নারীর সংখ্যা বেশি। নগরীতে আবার এর উল্টো চিত্র। ১০ বছরে সাড়ে ১৫ লাখ মানুষ বেড়েছে চট্টগ্রাম জেলায়। যদিও শহরে মানুষ বাড়ছে, কিন্তু কমছে গ্রামে। চট্টগ্রাম জেলায় মুসলিম ধর্মাবলম্বী মানুষ এখন ৮৭ দশমিক ৫৩ শতাংশ। ১৫ উপজেলার মধ্যে ফটিকছড়িতে মানুষ বেশি, কর্ণফুলীতে কম। এদিকে চট্টগ্রামে নারীর চেয়ে অবিবাহিত পুরুষের সংখ্যা বেড়ে গেছে। নারীর চেয়ে এখানে পুরুষরাই মোবাইল ব্যবহার করেন বেশি।

বৃহস্পতিবার (২৭ জুন) দুপুরে চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে চট্টগ্রাম জেলা পরিসংখ্যান কার্যালয়ের জনশুমারি ও গৃহগণনা ২০২২ এর প্রতিবেদন থেকে এসব তথ্য উপস্থাপন করেন জেলা পরিসংখ্যান কার্যালয়ের উপপরিচালক মো. ওয়াহিদুর রহমান। পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগের যুগ্মসচিব দেব দুলাল ভট্টাচার্য্যের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান। বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিসংখ্যান বিভাগের চেয়ারম্যান চন্দন কুমার পোদ্দার।

চট্টগ্রামে পুরুষের চেয়ে নারী বেশি

১০ বছরে চট্টগ্রাম জেলায় জনসংখ্যা বেড়েছে ১৫ লাখ ৫৩ হাজার। ২০১১ সালে চট্টগ্রামের জনসংখ্যা ছিল ৭৬ লাখ ১৬ হাজার জন। এর ১০ বছর পর ২০২২ সালের জনশুমারি অনুযায়ী চট্টগ্রামে মোট জনসংখ্যা দাঁড়ায় ৯১ লাখ ৬৯ হাজার ৪৬৫ জন। এর মধ্যে পুরুষের সংখ্যা ৪৫ লাখ ৭০ হাজার ১১৩ এবং নারীর সংখ্যা ৪৫ লাখ ৯৮ হাজার ৯২৬ জন। নারী ২৮ হাজার ৮১৩ জন বেশি।

চট্টগ্রাম জেলায় পুরুষের চেয়ে নারীর সংখ্যা বেশি। জেলায় প্রতি ১০০ জন নারীর অনুপাতে পুরুষের সংখ্যা এখন ৯৯ জন। জেলায় নারীর সংখ্যা ২১ লাখ ৯৬ হাজার ১৩৭ জন। পুরুষের সংখ্যা ২০ লাখ ৮৭ হাজার ৯৯৬ জন। এ হিসেবে পুরুষের সংখ্যা নারীর তুলনায় ১ লাখ ৮ হাজার ১৪১ জন কম।

চট্টগ্রাম নগরীতে অবশ্য পুরুষের সংখ্যা নারীর চেয়ে বেশি। নগরীতে পুরুষের সংখ্যা ২৪ লাখ ৮২ হাজার ১১৭ জন। নারীর সংখ্যা ২৪ লাখ ২ হাজার ৭৮৯ জন। ব্যবধান ৮০ হাজারের কাছাকাছি।

শহরে মানুষ বাড়ছে, কমছে গ্রামে

২০১১ সালে প্রতি বর্গকিলোমিটারে চট্টগ্রাম জেলার জনসংখ্যা ছিল ১ হাজার ৪৪২ জন। ১০ বছর পর ২০২২ সালে প্রতি বর্গকিলোমিটারে জনসংখ্যা দাঁড়ায় ১ হাজার ৭৩৬ জন। এ হিসেবে ১০ বছরে প্রতি বর্গকিলোমিটারে জনসংখ্যা বেড়েছে ২৯৪ জন। সবমিলিয়ে ১০ বছরে চট্টগ্রাম জেলার জনসংখ্যা বেড়েছে প্রায় সাড়ে ১৫ লাখ ৫৩ হাজার ১১৩ জন। ২০১১ সালে বার্ষিক গড় বৃদ্ধির হার ছিল ১ দশমিক ৪০। ১০ বছর পর এ সংখ্যা দাঁড়ায় ১ দশমিক ৬৫।

২০১১ সালে চট্টগ্রাম নগরীর জনসংখ্যা ছিল ৭৬ লাখ ১৬ হাজার ৩৫২ জন। ২০২২ সালে এই সংখ্যা গিয়ে দাঁড়ায় ৯১ লাখ ৬৯ হাজার ৪৬৫ জনে। যদিও গ্রামে বসবাসকারী জনসংখ্যা কমে গেছে। ১০ বছর আগে গ্রামের যে জনসংখ্যা ছিল ৪৪ লাখ ৬৩ হাজার ৭২৩ জন, ১০ বছর পর সেখানে ১ লাখ ৭৯ হাজার ৪৭৪ জন কমে গ্রামে বসবাসকারীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪২ লাখ ৮৪ হাজার ২৪৯ জনে।

চট্টগ্রামে মুসলিম ৮৮ শতাংশ

চট্টগ্রাম জেলার জনসংখ্যার মধ্যে মুসলিম ধর্মাবলম্বী ৮৭ দশমিক ৫৩ শতাংশ। অন্যদিকে হিন্দু ধর্মাবলম্বী ১০ দশমিক ৭২ শতাংশ। এছাড়া বৌদ্ধ ১ দশমিক ৬৩ শতাংশ, খ্রিষ্টান শূন্য দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ এবং অন্যান্য ধর্মাবলম্বী রয়েছে শূন্য দশমিক শূন্য ৩ শতাংশ।

ফটিকছড়িতে মানুষ বেশি, কর্ণফুলীতে কম

চট্টগ্রামের ১৫টি উপজেলার মধ্যে ফটিকছড়ির জনসংখ্যা সবচেয়ে বেশি। ১০ বছর আগে এই উপজেলার জনসংখ্যা ছিল ৫ লাখ ২৬ হাজার ৩ জন। ২০২২ সালের সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী উপজেলাটির জনসংখ্যা ১ লাখ ১৬ হাজার ৮৬ জন বেড়ে দাঁড়ায় ৬ লাখ ৪২ হাজার ৮৯ জনে।

চট্টগ্রাম নগরীর পার্শ্ববর্তী কর্ণফুলী উপজেলার জনসংখ্যা সবচেয়ে কম। এর জনসংখ্যা মাত্র ২ লাখ ৩ হাজার ৬৯৭ জন।

এছাড়া বাঁশখালী উপজেলায় ৫ লাখ ৩৭ হাজার ৫৫৫, হাটহাজারী উপজেলায় ৪ লাখ ৯৮ হাজার ১৭৯, মীরসরাই উপজেলায় ৪ লাখ ৭২ হাজার ৭৭৭, সীতাকুণ্ড উপজেলায় ৪ লাখ ৫৭ হাজার ৩৬৮ জন, সাতকানিয়া উপজেলায় ৪ লাখ ৫৪ হাজার ৫১, লোহাগাড়া উপজেলায় ৩ লাখ ২৮ হাজার ২০৬, পটিয়া উপজেলায় ৩ লাখ ৯৭ হাজার ৬৭২, রাউজান উপজেলায় ৩ লাখ ৯৬ হাজার ৩৫০, রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় ৩ লাখ ৯২ হাজার ৮৯৮, সন্দ্বীপ উপজেলায় ৩ লাখ ২৭ হাজার ৫৫৩, আনোয়ারা উপজেলায় ৩ লাখ ১৯ হাজার ৪৮২, বোয়ালখালী উপজেলায় ২ লাখ ৫৮ হাজার ৬৭৫ ও চন্দনাইশ উপজেলায় ২ লাখ ৫২ হাজার ২৩৮ মানুষ বাস করেন।

চট্টগ্রামে নারীর চেয়ে অবিবাহিত পুরুষ বেশি

চট্টগ্রাম জেলায় অবিবাহিত নারীর চেয়ে পুরুষের সংখ্যা বেশি। অবিবাহিত নারী ২৬ দশমিক ৫২ শতাংশ। এর বিপরীতে অবিবাহিত পুরুষের হার ৪২ দশমিক ৪৩ শতাংশ। পুরুষের চেয়ে বেশি নারীর সংখ্যা। প্রতি ১০০ জন অবিবাহিত নারীর অনুপাতে অবিবাহিত পুরুষের সংখ্যা ৯৯ দশমিক ৩৭ শতাংশ। চট্টগ্রাম জেলায় পুরুষের সংখ্যা ৪৫ লাখ ৭০ হাজার ১১৩ এবং নারীর সংখ্যা ৪৫ লাখ ৯৮ হাজার ৯২৬ জন। এ হিসেবে চট্টগ্রামে ২৮ হাজার ৮১৩ জন নারী বেশি।

মোবাইল আছে ৫০ লাখ মানুষের

চট্টগ্রাম জেলায় নারীর চেয়ে পুরুষরাই মোবাইল ব্যবহার করেন বেশি। মোবাইল ব্যবহারকারী নারীর সংখ্যা ২২ লাখ ৭৩ হাজার ৯১০ জন, বিপরীতে মোবাইল ব্যবহারকারী পুরুষের সংখ্যা ২৭ লাখ ৪৭ হাজার ২৭১ জন। সবমিলিয়ে চট্টগ্রাম জেলায় ১৫ বছরের বেশি বয়সী মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা ৫০ লাখ ২১ হাজার ১২১ জন— যা মোট জনসংখ্যার ৭৭ দশমিক ০৭ শতাংশ।

অন্যদিকে ইন্টারনেট ব্যবহার করেন মোট জনসংখ্যার ৫০ দশমিক ৮২ শতাংশ। এর মধ্যে নারী ৪২ দশমিক ৪৩ শতাংশ এবং পুরুষ ৫৯ দশমিক ৫৪ শতাংশ।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!