চট্টগ্রামের ৩ স্পটে করোনার টিকা নেবে স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা

0

চট্টগ্রাম মহানগরের স্কুল ও কলেজে অধ্যয়নরত ১২ থেকে ১৮ বছর বয়সী ছাত্র-ছাত্রীদের করোনার টিকা দেওয়ার জন্য চট্টগ্রাম নগরীর ভেতরে তিনটি স্থান ঠিক করেছে সিভিল সার্জনের কার্যালয়।

এগুলো হচ্ছে— নগরীর জামালখানের রীমা কমিউনিটি সেন্টার, আগ্রাবাদ এক্সেস রোডের আবদুল্লাহ কমিউনিটি সেন্টার এবং দেওয়ানবাজার নবাব সিরাজদ্দৌলা রোডের হল সেভেন ইলেভেন।

রোববার (৯ জানুয়ারি) চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. ইলিয়াছ চৌধুরী স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা গেছে, রীমা কমিউনিটি সেন্টারের টিকাদান কেন্দ্রে লোহাগাড়া, সাতকানিয়া, বাঁশখালী, চন্দনাইশ, পটিয়া ও কর্ণফুলী উপজেলার কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা করোনার টিকা দেওয়ার দায়িত্ব পালন করবেন।

আবদুল্লাহ কমিউনিটি সেন্টারের টিকাদান কেন্দ্রে সন্দ্বীপ, সীতাকুণ্ড, মিরসরাই, হাটহাজারী ও রাউজান উপজেলার কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা করোনার টিকা দেওয়ার দায়িত্ব পালন করবেন।

হল সেভেন ইলেভেন টিকাদান কেন্দ্রে ফটিকছড়ি, বোয়ালখালী, আনোয়ারা, রাঙ্গুনিয়া উপজেলার কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা করোনার টিকা দেওয়ার দায়িত্ব পালন করবেন।

Yakub Group

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় গত ৫ জানুয়ারি মন্ত্রিপরিষদের বৈঠকে টিকা ছাড়া ১২ বছর থেকে এর বেশি বয়সী কোনো শিক্ষার্থী স্কুলে যেতে পারবে না বলে সিদ্ধান্ত নেয় সরকার।

এদিকে নিবন্ধিত ও অনিবন্ধিত ১২-১৮ বছর বয়সী সব শিক্ষার্থীর টিকা গ্রহণ নিশ্চিত করতে শনিবার (৮ জানুয়ারি) নির্দেশনা পাঠিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি)। মাউশির নির্দেশনায় বলা হয়, ১২-১৮ বছর বয়সী সব শিক্ষার্থীকে ১৫ জানুয়ারির মধ্যে কোভিড-১৯ প্রতিরোধে ভ্যাকসিন দেওয়ার লক্ষ্যে ইতোমধ্যে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর থেকে গত ৩০ ডিসেম্বর বিভিন্ন নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

এর আগে গত ৫ জানুয়ারি রাতে প্রকাশিত এক প্রজ্ঞাপনে ১২ থেকে ১৮ বছর বয়সী শিক্ষার্থীদের জন্মনিবন্ধনের শর্ত শিথিল করে সরকার। নতুন নিয়ম অনুযায়ী, ২০০১ সালের পর জন্ম নেওয়া শিশুর জন্মনিবন্ধনের ক্ষেত্রে বাবা-মায়ের জন্মনিবন্ধন নম্বর দিতে হবে না।

শিক্ষার্থীদের করোনাভাইরাস প্রতিরোধী টিকার আওতায় আনতেই সরকার জন্মনিবন্ধন করার শর্ত শিথিল করেছে তাতে জানানো হয়।

ওই অফিস আদেশে বলা হয়েছে, সুরক্ষা অ্যাপের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের কোভিড-১৯-এর ভ্যাকসিন দেওয়ার জন্য জন্মনিবন্ধন আবশ্যক। ২০০১ সালের পর জন্ম নেওয়া শিশুর জন্মনিবন্ধনের ক্ষেত্রে বিডিআরআইএস সফটওয়্যারে বাবা-মায়ের জন্মনিবন্ধন নম্বর দেওয়ার নিয়ম আছে। ছাত্র-ছাত্রীদের কোভিড-১৯-এর ভ্যাকসিন দেওয়া ও সুরক্ষা অ্যাপের মাধ্যমে নিবন্ধনের জন্য পিতা-মাতার জন্মনিবন্ধন ছাড়া শিক্ষার্থীদের জন্মনিবন্ধন করার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm