আক্রান্ত
২০৬৪০
সুস্থ
১৬২৯১
মৃত্যু
৩০১

চট্টগ্রামের শেয়ারবাজারে ৩৬ কোটি, ঢাকায় হাজার কোটি টাকার লেনদেন

0

দেশের দ্বিতীয় প্রধান পুঁজিবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) ২৭৯টি প্রতিষ্ঠানের ১ কোটি ৩২ লাখ ৯৪ হাজার ১৮টি শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়েছে। মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) দিন শেষে লেনদেন হওয়া এসব প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে দাম বেড়েছে ১০৭টির, কমেছে ১২৭টির এবং ৪৫টি শেয়ারের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

সিএসইর সার্বিক মূল্যসূচক আগের দিনের চেয়ে ৬১ পয়েন্ট কমে ১৪ হাজার ৮৫ পয়েন্টে নেমে আসে। দিনশেষে সিএসইতে ৩৬ কোটি ১ টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়। আগের দিন সিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৩৬ কোটি ৪৮ লাখ টাকার শেয়ার।

এদিকে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ছয় কার্যদিবস পর লেনদেন আবারও হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়েছে। মঙ্গলবার (৬ অক্টোবর) দিন শেষে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ১ হাজার ৬৭ কোটি ৭২ লাখ টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে। এটি আগের দিন সোমবারের চেয়ে ১০২ কোটি টাকা বেশি। এর আগে গত ২৭ সেপ্টেম্বর ডিএসইতে ১ হাজার কোটি টাকার বেশি লেনদেন হয়। ওইদিনের পর মঙ্গলবার ডিএসইতে সর্বোচ্চ লেনদেন হলো। দিন শেষে পুঁজিবাজারে আর্থিক ও শেয়ার লেনদেন বাড়লেও কমেছে সব সূচক।

মঙ্গলবার ডিএসইতে ৩৫৫টি প্রতিষ্ঠানের ৪১ কোটি ৪২ লাখ ৪৪ হাজার ৭৪০টি শেয়ার ও মিউচুয়াল ফান্ডের ইউনিট লেনদেন হয়েছে। ডিএসইতে লেনদেন হওয়া শেয়ার ও ইউনিটের মধ্যে দাম বেড়েছে ১১৫টির, কমেছে ১৮৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫৩টি কোম্পানির শেয়ার ও ইউনিটের দাম।

দিনশেষে ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স আগের দিনের চেয়ে ১৭ পয়েন্ট কমে ৪ হাজার ৯২৮ পয়েন্টে নেমে আসে। এদিন ডিএসইর শরিয়াহ সূচক ২পয়েন্ট কমে এক হাজার ১০৯ পয়েন্টে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ৬ পয়েন্ট কমে ১ হাজার ৬৭৮ পয়েন্টে অবস্থান করছে। দিনশেষে ডিএসইতে ১ হাজার ৬৭ কোটি টাকার শেয়ার কেনাবেচা হয়েছে।

সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ManaratResponsive

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন
ksrm