আক্রান্ত
১৮৬৯৫
সুস্থ
১৫০৬২
মৃত্যু
২৯০

চট্টগ্রামের বাজারে লুকোচুরি পেঁয়াজের দরে, মূল্য কমে শুধু অভিযানে

0

মূল্য স্বাভাবিক করতে প্রশাসনের নিয়মিত নজরদারি, জরিমানা কিংবা অভিযান থাকলেও দাম কমছে না পেঁয়াজের। প্রায় ১ মাসের বেশি সময় ধরে পেঁয়াজের দামের উর্ধ্বগতি রোধ অনেকটা অসম্ভব হয়ে পড়েছে। পেঁয়াজের দামে এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাব। ঘূর্ণিঝড়ের অজুহাতেও পেঁয়াজের দাম বাড়ছে।

সরেজমিনে খাতুনগঞ্জ ও চট্টগ্রাম নগরীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে দেখা গেছে, রোববার (১১ নভেম্বর) পেঁয়াজের পাইকারি ৯০-১০০ টাকা ও খুচরা ১৩০-১৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে।

ক্রেতারা জানান, ‘পেঁয়াজের দাম কমার কোন লক্ষণই দেখছি না। বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান যতক্ষণ পরিচালিত হয় ঠিক ততক্ষণই নিয়ন্ত্রণে থাকে পেঁয়াজের দাম। এরপরেই কৃত্রিম সংকট দেখিয়ে পুনরায় বাড়িয়ে দেয়া হয় পেঁয়াজের দাম।’

এদিকে সংশ্লিষ্ট অনেকেই অভিযোগ করে বলেন, একটি চক্র পেঁয়াজের আমদানি মূল্য বাড়িয়ে লিখে খুচরা বাজারে বাড়তি দামে পেঁয়াজ বিক্রি করছেন। ফলে জেলা প্রশাসন বাজার নিয়ন্ত্রণে একাধিক বৈঠক, অভিযান পরিচলনা করেও নিয়ন্ত্রণে না এসে বরং লাফিয়ে বেড়েছে পেঁয়াজের দাম।

জেলা প্রশাসন থেকে পাওয়া তথ্য অনুসারে, খাতুনগঞ্জ পাইকারি বাজারে ১৬ সদস্যের একটি সিন্ডিকেট আছে। এর মধ্যে টেকনাফের ১২ আমদানিকারক, সিএন্ডএফ প্রতিষ্ঠান, পাইকারি বিক্রেতার পাশপাশি খাতুনগঞ্জের দুই এবং রিয়াজউদ্দিন বাজারের দুই আড়তদার রয়েছেন।

টেকনাফের সিণ্ডিকেটে রয়েছেন আমদানিকারক সজিব, মম, জহির, সাদ্দাম, বিক্রেতা ফোরকান, গফুর, মিন্টু, খালেক, টিপু, টেকনাফ স্থলবন্দরের সিএন্ডএফ এজেন্ট কাদের, কমিশন এজেন্ট শফি, আলিফ এন্টারপ্রাইজ, খাতুনগঞ্জের মেসার্স আমির ভাণ্ডার, মেসার্স আল্লার দান স্টোর, স্টেশন রোড নুপুর মার্কেটের মেসার্স সৌরভ এন্টারপ্রাইজ, হোসেন ব্রাদার্স।

খাতুনগঞ্জের ব্যবসায়ী মোহাম্মদ ফারুক বলেন, ‘খাতুনগঞ্জে পেয়াজ সংকট রয়েছে। তাছাড়া বৈরী আবহাওয়ার কারণে মিয়ানমার থেকে পেঁয়াজ আসতে পারছে না। রোববার (১১ নভেম্বর) ৭৫-৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। তবে ভালো মানের পেঁয়াজ কিছুটা বেশি। আমাদের আমদানি মূল্য বেশি হওয়ার কারণে বেশি দামে বিক্রি করতে হয়।’

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. ওমর ফারুক বলেন, ‘আমরা পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে আমরা পাইকারি ও খুচরা বাজারে নিয়মিত তদারকি করছি।মূল্য কারসাজির দায়ে অসাধু ব্যবসায়ীদের জেল জরিমানা করা হয়েছে।’

কনজিউমার অ্যাসেসিয়েশন (ক্যাব) বিভাগীয় সভাপতি এসএম নাজের হোসাইন বলেন, ‘বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সঠিক বাজার তদারকির অভাবে পেয়াজ ব্যবসায়ীরা সাধারণ মানুষের পকেটে থেকে কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। আমরা প্রতিদিন বাজার মনিটরিংয়ের কথা বললেও তা করা হয়নি। নিয়মিত বাজার মনিটরিং হলে বাজার অতটা ঊর্ধ্বগতি হতে পারত না।’

খাতুনগঞ্জের ব্যবসায়ীরা জেলা প্রশাসনের ম্যাজিস্ট্রেটকে জানান, পেঁয়াজ আমদানিকারক, সিএন্ডএফ এজেন্ট, কক্সবাজার ও চট্টগ্রামের কমিশন এজেন্ট এবং আড়তদারদের যোগসাজশে মিয়ানমার থেকে ৪২ টাকা দরে আমদানিকৃত পেঁয়াজ পাইকারি বাজার পর্যায়ে ৯০-১১০ টাকা দরে বিক্রি করতে বাধ্য করছে।

পরে খাতুনগঞ্জ বাজার থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে (৫ নভেম্বর) রিয়াজ উদ্দীন বাজার নুপর মার্কেট এলাকায় পেঁয়াজের মূল্য কারসাজির ৩ টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ২ টি প্রতিষ্ঠানে অভিযান পরিচালনা করে জেলা প্রশাসন। প্রসাধনীর ব্যবসার আড়ালে পেঁয়াজের ব্যবসা করে বাজার কৃত্রিম সংকট করে লাখ টাকা হাতিয়ে নেয় চক্রটি।

জেলা প্রশাসন পরিচালিত অভিযানগুলো
এক রাতেই পেঁয়াজের দাম দ্বিগুণ হওয়ার পর ১ অক্টোবর খাতুনগঞ্জে অভিযান পরিচালনা করে অতিরিক্ত মুল্যে পেঁয়াজ বিক্রি করবে না এমন মুচলেকা নেওয়া হয় বিক্রেতাদের কাছ থেকে। ৩ নভেম্বর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তৌহিদুল ইসলাম খাতুনগঞ্জে অভিযান চালিয়ে আমদানি মূল্যের চেয়ে ৩ গুণ বেশি দামে বিক্রি করায় ৪ প্রতিষ্ঠানকে ১ লাখ ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করেন। অভিযানের খবর পেয়ে কমিশন এজেন্টরা গা ঢাকা দেন।

৪ নভেম্বর অভিযান চালিয়ে গ্রামীণ বাণিজ্যালয়কে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। সর্বশেষ ৫ নভেম্বর জেলা প্রশাসন সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসন, বাণিজ্য উপসচিব ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর পাইকারি ও খুচরা ব্যবসায়ীদের সাথে বৈঠক করেন। বৈঠকে সপ্তাহের মধ্যে খুচরা বাজারে ১০০ টাকায় নামিয়ে আনার প্রতিশ্রুতিও দেন।

এ হোসেন ব্রাদার্স ও মেসার্স সৌরভ এন্টারপ্রাইজের দুই মালিক মালিক মিনহাজুদ্দিন বাপ্পি (২৮), আবুল হোসেনকে (৫৫) ১৫ দিন বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেন। ৭ সেপ্টেম্বর ফোরকান এলাহী অনুপমের নেতৃত্বে অভিযানে কর্ণফুলী, বহাদ্দারহাট, ২ নম্বর গেট, কাজির দেউড়ি এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে ৬ দোকানে ১ লাখ ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

সপ্তাহের ব্যবধানে খুচরা পর্যায়ে দাম কমে আসার কথা থাকলেও হলেও নগরীর বাজারে ১২০-১৫০ টাকায় পেঁয়াজ বিক্রয় হচ্ছে।

সিএম/এসএস

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ManaratResponsive

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন
ksrm