চট্টগ্রামের ‘পরীর পাহাড়ে’ সিসিটিভি ক্যামেরা লাগাতে বাধা আইনজীবীদের

ক্যামেরা লাগাবেই জেলা প্রশাসন

0

চট্টগ্রামে ‘পরীর পাহাড়’ হিসেবে পরিচিত আদালত ভবন এলাকায় লাগানো ১৪৮টি সিসিটিভি ক্যামেরার কয়েকটি ভেঙে দিয়েছে অজ্ঞাত ব্যক্তিরা। এর মধ্যে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্থ ক্যামেরাগুলো মেরামত ও নতুন ক্যামেরা লাগাতে গেলে ৫ থেকে ৭ জন আইনজীবী ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে বাধা দেয় বলে অভিযোগ উঠেছে।

শনিবার (২০ আগস্ট) দুপুর ২টার দিকে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের ঠিকাদার কোম্পানি সিসিটিভি স্থাপন করতে গেলে এ ঘটনা ঘটে। পরে ক্যামেরা না লাগিয়েই ওই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের ফিরে আসতে হয়।

জানা গেছে, ‘পরীর পাহাড়’ হিসেবে পরিচিত আদালত ভবন এলাকায় সরকারি স্থাপনাগুলোর নিরাপত্তার স্বার্থে ১৪৮টি সিসিটিভি ক্যামেরার মাধ্যমে নজরদারি চালাচ্ছে জেলা প্রশাসন। এখানে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়, বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় ছাড়াও আদালতের কার্যক্রম চলে। কিন্তু কয়েকদিন আগে অজ্ঞাত কিছু ব্যক্তি কয়েকটি ক্যামেরা ক্ষতিগ্রস্ত করে বলে অভিযোগ ওঠে। এরপর সেইসব সিসিটিভি ক্যামেরা মেরামত এবং নতুন সিসিটিভি স্থাপন করতে যায় চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নিয়োজিত ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা। এ সময় ৫ থেকে ৭ জন আইনজীবীর বাধার মুখে পড়ে তাদের ফেরত আসতে হয় বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্রতীক দত্ত বলেন, ‘পরীর পাহাড়ের নিরাপত্তার জন্য সিসিটিভি ক্যামেরা মেরামত ও নতুন ক্যামেরা স্থাপন করতে আমাদের একটা টিম যায় সেখানে। কিন্তু সিসিটিভি ক্যামেরা লাগাতে ঠিকাদার কোম্পানিকে ৫-৭ জন আইনজীবী বাধা দেয়। এই আইনজীবীরা এমনেই অবৈধভাবে এখানে দখল করে আছে। তারপরও আমাদের কাজে তারা সব সময়ই বাধা প্রদান করে।’

জানা গেছে, গত বুধবার (১৭ আগস্ট) সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে চট্টগ্রাম আদালত প্রাঙ্গণে উচ্ছৃঙ্খল কিছু আইনজীবীর হামলা ও লাঞ্ছনার শিকার হন যমুনা টেলিভিশনের রিপোর্টার আল আমিন সিকদার এবং ক্যামেরাপারসন আসাদুজ্জামান লিমন।

Yakub Group

এ ঘটনায় নড়েচড়ে বসে জেলা প্রশাসন। পরীর পাহাড় এলাকার নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরও জোরদার করার জন্য শনিবার (২০ আগস্ট) চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসকের নির্দেশে ক্ষতিগ্রস্ত সিসিটিভি ক্যামেরাগুলো মেরামত এবং নতুন সিসিটিভি স্থাপন করার জন্য একটি ঠিকাদারি কোম্পানিকে দায়িত্ব দেওয়া হয়। কিন্তু তাদের কাজে বাধা সৃষ্টি করেন ৫ থেকে ৭ জন আইনজীবী।

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট প্রতীক দত্ত বলেন, ‘এর আগেও পরীর পাহাড় ধস রোধে দেয়াল তোলার জন্য গেলে তারা সেটা তৈরি করতে বাধা দেয়। আজকেও (শনিবার) আমাদের সিসিটিভি লাগাতে দেয়নি তাদের সুবিধার জন্য। আজকে আমরা চলে এসেছি। কিন্তু পরবর্তীতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ প্রস্তুতি নিয়ে আমরা সেখানে অবশ্যই সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন করবো।’

আরএ/সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

ksrm