চট্টগ্রামের দুই সাংবাদিকের ওপর হামলার নিন্দা জানালো বিজেআইএম

দায়ীদের জবাবদিহিতার আওতায় আনার আহ্বান

চট্টগ্রামে দুই সাংবাদিকের ওপর পুলিশের হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে কর্মরত বাংলাদেশি সাংবাদিকদের সংগঠন বাংলাদেশি জার্নালিস্ট ইন ইন্টারন্যাশনাল মিডিয়া (বিজেআইএম)। একই সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছে সংগঠনটি।

শনিবার (১১ মে) রাতে সংগঠনটির পক্ষ থেকে পাঠানো এক বিবৃতিতে এ কথা জানানো হয়। বিজেআইএম ওই ঘটনার বিশ্বাসযোগ্য তদন্ত দাবি করেছে এবং দায়ীদের জবাবদিহিতার আওতায় আনার জন্য কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৯ মে) চট্টগ্রাম কলেজে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষের সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে ইংরেজি দৈনিক ঢাকা ট্রিবিউনের সাংবাদিক পিম্পল বড়ুয়া এবং দৈনিক চট্টগ্রাম প্রতিদিনের প্রতিবেদক বিশ্বজিৎ শর্মাকে চ্যালেঞ্জ করে পুলিশের সদস্যরা।

শুক্রবার বিজেআইএমকে ফোন করে নির্যাতিত সাংবাদিক পিম্পল বড়ুয়া বলেন, ‘আমরা পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়া শিক্ষার্থীদের ছত্রভঙ্গ করার ভিডিও রেকর্ড করছিলাম। এ সময় একজন পুলিশ অফিসার আমাদের কাছে এসে মোবাইল ফোনটি ধরে একটি প্লাস্টিকের লাঠি দিয়ে আমার হাতে আঘাত করে এবং আমার ফোনটি কেড়ে নেয়। প্রেস কার্ড দেখানোর পরও তিনি আমাদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন।’

বিজেআইএম এ ঘটনায় নির্যাতনের শিকার হওয়া অপর সাংবাদিক দৈনিক চট্টগ্রাম প্রতিদিনের প্রতিবেদক বিশ্বজিৎ শর্মার সঙ্গেও কথা বলে— যিনি তার মোবাইল ফোনে পিম্পল বড়ুয়া এবং পুলিশ কর্মকর্তার মধ্যকার বাকবিতণ্ডা রেকর্ড করেছিলেন। তিনি বলেন, ঘটনাস্থলে উপস্থিত অন্যান্য পুলিশ কর্মকর্তারা তাকে নির্যাতনের ফুটেজ মুছে ফেলতে বলেন।

সাংবাদিকরা বিজেআইএমকে বলেন, ঘটনাটি তাদের দুজনের ওপর ভীষণভাবে মানসিক প্রভাব ফেলে। পিম্পল বড়ুয়ার ডান হাতের একটি আঙুলে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। পরে অবশ্য তাঁর ফোনটি ফেরত দেন স্থানীয় পুলিশ ক্যাম্পের দায়িত্বপ্রাপ্ত অফিসার।

বিজেআইএমের বিবৃতিতে বলা হয়, আইন প্রয়োগকারী কর্মকর্তাদের দ্বারা সাংবাদিকদের প্রতি এ ধরনের আচরণ অগ্রহণযোগ্য। এটি কেবল তাদের পেশাগত দায়িত্ব পালনের সক্ষমতাকেই বাধাগ্রস্ত করে না বরং বাংলাদেশে সংবাদপত্রের স্বাধীনতার কঠিন অবস্থাকেও তুলে ধরে।

ওই দুই সাংবাদিক নির্যাতনকারী পুলিশ কর্মকর্তাকে সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) সাইফুদ্দিন মানিক বলে শনাক্ত করেন, যিনি হামলার সময় তার ইউনিফর্মে নেম ব্যাজ পরা অবস্থায় ছিলেন না।

এ বিষয়ে বিজেআইএম অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য সাইফুদ্দিন মানিকের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তিনি সাড়া দেননি।

এর আগে পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় পুলিশ কর্তৃক দুই সাংবাদিক লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনার নিন্দা জানিয়ে ৯ মে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে সিইউজে সভাপতি তপন চক্রবর্তী ও সাধারণ সম্পাদক ম. শামসুল ইসলাম বলেন, পুলিশ কর্তৃক সাংবাদিক লাঞ্ছনার এ ঘটনা অত্যন্ত জঘন্য ও দুঃখজনক। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে দায়ী পুলিশ সদস্যদের বিরুদ্ধে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সিএমপি কমিশনারের প্রতি আহ্বান জানান।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!