চকরিয়া পৌরশহরকে পরিচ্ছন্ন ও যানজটমুক্ত রাখতে অভিযান

0

মুকুল কান্তি দাশ,চকরিয়া: রমজানকে সামনে রেখে পথচারী ও যাত্রীদের যানজট থেকে রক্ষা এবং কক্সবাজারের চকরিয়া পৌরশহরকে পরিচ্ছন্ন রাখতে উচ্ছেদ অভিযান চালিয়েছে উপজেলা প্রশাসন ও পৌর কর্তৃপক্ষ।

শুক্রবার সকালে টানা দুইঘন্টা অভিযানকালে স্থানীয় ও ভাসমান তিন শতাধিক দোকান উচ্ছেদ করা হয়। তবে, দুপুর গড়াতেই সড়কের উপর বিভিন্ন যানবাহন এলোমেলোভাবে পার্কিং করায় ফের যানজটের সৃষ্টি হয়।
জানা গেছে, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চকরিয়ার পৌরশহরে ত্রি-লাইন বিশিষ্ট সড়ক রয়েছে। দুরপাল্লার গাড়িগুলো বক্স রোড দিয়ে চললেও লোকাল গাড়ি চলাচল করে সাইট সড়ক দিয়ে। কিন্তু বক্স রোডের দু’পাশের সড়কের উপর কয়েকশত ভাসমান দোকানের পাশাপাশি মার্কেট ঘেষে সড়কের ফুটপাতের উপর স্থায়ী দোকান নির্মাণ করা হয়। সাথে যত্রতত্র পরিবহণ পার্কিং করায় যানজট নিত্যকার ঘটনা হয়ে উঠে। এতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয় যাত্রী, পথচারী, শিক্ষার্থী ও বিপনী কেন্দ্রে সওদা করতে আসা নারী-পুরুষদের।
চকরিয়া পৌরসভার সচিব মাসউদ-মোর্শেদ বলেন, রমজানে পৌরশহরকে পরিচ্ছন্ন ও যানজটমুক্ত রাখতে শুক্রবার তিনশতাধিক দোকান উচ্ছেদ করা হয়। পৌরসভার মেয়র মো.আলমগীর চৌধুরী, চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাহেদুল ইসলাম, থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মিজানুর রহমান অভিযানের নেতৃত্ব দেন। এসময় সাথে ছিলেন চকরিয়া পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো.রেজাউল করিম, ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মুজিবুল হক, ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট নিজাম উদ্দিনসহ পৌরসভার কর্মকর্তা ও কমিউনিটি পুলিশের সদস্যরা।
অভিযানকালে ১৫টি স্থায়ী ও অন্তত ৩’শ ভাসমান দোকান উচ্ছেদ করা হয়। দোকানগুলোর মধ্যে স্টেশনারী, পানের দোকান, কাপড় ও ফলের দোকান রয়েছে।
এদিন বিকালে সরজমিন ঘুরে দেখা গেছে, নিউ মার্কেট ও আনোয়ার শপিং কমেপ্লক্সের সামনে সড়কের উপরে টমটম, সিএনজি চালিত টেক্সি, জীপ গাড়ি, ম্যাজিকসহ বিভিন্ন ছোট গাড়ি পার্কিং করে রাখা হয়েছে। পৌরসভার কমিউনিটি পুলিশের সদস্যরা ওই গাড়ি সরাতে চেষ্টা করলেও ব্যর্থ হয় গাড়িগুলোর চালকরা সহযোগিতা না করায়।
অন্যদিকে জনতা মার্কেট এলাকায় টিকিট কাউন্টার সংলগ্ন মহাসড়কের উপরে পার্কিং করে যাত্রী উঠানামা করা হচ্ছে। পার্কিং অবস্থায় দেখা মেলে শ্যামলী, হানিফ ও ইউনিক পরিবহণের বেশকটি গাড়ি। এই বড়গুলোর পার্কিং এর কারণে সৃষ্টি হয় তীব্র যানজটের। ট্রাফিক পুলিশ চেষ্টা করলেও যানজট মুক্ত রাখা যাচ্ছিলনা সড়ক।
এব্যাপারে জানতে চাইলে ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট নিজাম উদ্দিন বলেন, মহাসড়কে বড় যানবাহন পার্কিং নিষিদ্ধ করতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অনুরোধ করেছি। উপজেলা প্রশাসন ও পৌর কর্তৃপক্ষ সহায়তা করলে পৌরশহরকে যানজট মুক্ত রাখা সম্ভব হবে।
চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাহেদুল ইসলাম বলেন, পৌর কর্তৃপক্ষ, পরিবহণ মালিক ও শ্রমিক সমিতির নেতৃবৃন্দদের সাথে অচিরেউ আলোচনাপূর্বক পুরোপুরি যানজট নিরশনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।
চকরিয়া পৌরসভার মেয়র মো.আলমগীর চৌধুরী বলেন, রমজানে যেকোন উপায়ে পৌরশহরকে পরিচ্ছন্ন ও যানজট মুক্ত রাখা হবে। প্রয়োজনে প্রতিদিনই অভিযান চলবে।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন