‘গার্লফ্রেন্ড’সহ কক্সবাজারে এসে ইয়াবায় মৃত্যুমুখে ঢাকার পর্যটক

এক রুমে ছিলেন নারীসহ তিনজন

0

কক্সবাজারে ইয়াবা সেবন করে এখন মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন আবু নাঈম (২৫) নামের এক পর্যটক। তিনি পুরান ঢাকার আবুল হাসেমের ছেলে। মঙ্গলবার (৭ জানুয়ারি) রাত ১০টার দিকে কক্সবাজার শহরের কলাতলীর দেলোয়ার প্যারাডাইস নামের একটি হোটেলে এই ঘটনা ঘটে।

ইয়াবা সেবনে স্বর্ণা রশিদ নামের ঢাকার এক শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতে আবারও ইয়াবা সেবনে এমন ঘটনা ভাবিয়ে তুলেছে প্রশাসনকে।

জানা গেছে, গত ৬ জানুয়ারি কক্সবাজার এসে দেলোয়ার প্যারাডাইস নামের একটি হোটেলে উঠেন পুরান ঢাকার আবুল হাসেমের ছেলে আবু নাঈম (২৫) ও লাজিম খান নামে দুই বন্ধু। ওই রুমেই নাঈমের স্ত্রী পরিচয়ে উঠেন নাদিয়া আক্তার (২০) নামে এক তরুণী। মঙ্গলবার (৭ জানুয়ারি) রাত সাড়ে নয়টার দিকে আবু নাঈম হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

হোটেলের এক বয় ছেলে তাদের এ ইয়াবা সরবরাহ করেছে বলে ধারণা পুলিশের।
হোটেলের এক বয় ছেলে তাদের এ ইয়াবা সরবরাহ করেছে বলে ধারণা পুলিশের।

কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসকদের মতে, নাঈম অতিরিক্ত ইয়াবা সেবন করেছেন। যার প্রভাবে তিনি অসুস্থ হয়েছেন। অবস্থার অবনতি দেখে তাকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগ থেকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) পাঠানো হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, নাঈমের স্ত্রী পরিচয়ে হোটেলে আসা নাদিয়া আক্তার তার স্ত্রী নয়। ‘গার্লফ্রেন্ড’ হিসেবে আসেন তিনি। তবে এক রুমে তারা তিনজনই ছিলেন— এ নিয়েও চলছে ধোঁয়াশা। তবে হোটেলের এক বয় ছেলে তাদের এ ইয়াবা সরবরাহ করেছে বলে ধারণা পুলিশের।

দেলোয়ার প্যারাডাইসের জেনারেল ম্যানেজার আব্দুল কুদ্দুস দাবি করেন, এটি হোটেল কক্ষে হতে পারে না। এরা বাইরে কোথাও সেবন করেছে বলে ধারণা তার।

তবে একই কক্ষ দুই যুবক ও এক নারীর অবস্থানের বিষয়টি কোনো ব্যাখ্যা না দিয়ে বিষয়টি এড়িয়ে যান তিনি।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি (অপারেশন) মোহাম্মদ ইয়াসিন বলেন, ‘বিষয়টি শুনেছি। তবে কী কারণে তিনি অসুস্থ হয়েছেন তা এখনও স্পষ্ট নয়।’

সিপি

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

আরও পড়ুন