গরিব মেধাবি শিক্ষার্থীদের জন্য কোটা চালু করেছে সরকার : আ জ ম নাছির

১৫ শিক্ষার্থী পেল ‘সেইভ দ্য হাঙ্গার পিপল’র মেধাবৃত্তি

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতা গ্রহণের আগে বাংলাদেশে দারিদ্র্যতার হার ছিল ৪৮ শতাংশ। গত ১৩ বছরে দারিদ্রতা দূরীকরণে সরকারের নানামুখি বাস্তবধর্মী পদক্ষেপ গ্রহণের ফলে বর্তমানে তা ২১ শতাংশের কিছু বেশি মাত্র। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, চিকিৎসা, কর্মসংস্থান, সেবাসহ বিভিন্ন সেক্টরে দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য সরকার কোটা প্রথা বাস্তবায়ন করে চলেছেন। আগে মেধাবি হলেও গরিবের ছেলেমেয়েরা মেডিকেল, ইঞ্জিনিয়ারিং বা উচ্চতর কোনো শিক্ষায় পড়ালেখার সুযোগ পেত না। এই সরকার শিক্ষাক্ষেত্রে গরিব-মেধাবি কোটা চালুর কারণে তারা শিক্ষার্জনের সুযোগ পাচ্ছে না।’

দ্বিতীয় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সামাজিক সংগঠন ‘সেইভ দ্য হাঙ্গার পিপল’র উদ্যোগে মঙ্গলবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) বিকালে চট্টগ্রাম জেলা ক্রীড়া সংস্থার সম্মেলন কক্ষে কৃতি শিক্ষার্থীদের স্কুল ব্যাগ ও বৃত্তি প্রদান, নারীদেরকে সেলাই মেশিন ও খাদ্যসামগ্রী প্রদান করা হয়েছে। এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ‘দারিদ্রতা দূরীকরণে সরকারের এসব কার্যকর উদ্যোগ বাস্তবায়নের সহায়ক শক্তি হিসেবে স্বেচ্ছাসেবী বিভিন্ন ব্যক্তি প্রতিষ্ঠান কার্যকর ভূমিকা রেখে যাচ্ছে। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘সেইভ দ্য হাঙ্গার পিপল’ চট্টগ্রামে স্বেচ্ছাসেবায় প্রশংসিত একটি সংগঠনে পরিণত হয়ে উঠেছে। প্রতিষ্ঠার মাত্র দু’বছরের মধ্যে সংগঠনটি জনসেবায় নানামুখি কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে চলেছে। আমার জানা মতে, করোনার সময় সংগঠনটি খাদ্যসামগ্রী প্রদান ও চিকিৎসা সহায়তা, গরিব-মেধাবি শিক্ষার্থীদেরকে বৃত্তি প্রদান, স্বাবলম্বী প্রকল্পের অংশ হিসেবে নারীদের সেলাই মেশিন বিতরণসহ বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে।’

মহিলা শ্রমিক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির মানবাধিকার ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক রুকসানা পারভীন রুবার সভাপতিত্বে ও সেইভ দ্য হাঙ্গার পিপল’র মহাসচিব মো. সোহেল হকের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ, কাউন্সিলর হাসান মুরাদ বিপ্লব, বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশনের সহ-সভাপতি আবদূর নূর, হ্যালো ডাক্তার’র চেয়ারম্যান ডা. সজীব তালুকদার, জসিম উদ্দিন, শেখ আবদুল মান্নান, জাহাঙ্গীর আলম, আতিকুর রহমান আতিক, তানভীর আহমেদ রিংকু, মনির হোসেন মানিক, দিদারুল আলম সাগর, ইব্রাহিম মুন্সী, মুরাদ হোসেন, মো. হোসেন।

অনুষ্ঠানে ৫০ জন কৃতি গরিব শিক্ষার্থীকে স্কুল ব্যাগ, ১০০ জন মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী, ৪টি সেলাই মেশিন ও ১৫ জন কৃতি শিক্ষার্থীকে মেধাবৃত্তি প্রদান করা হয়েছে।

যখনই ঘটনা, তখনই আপডেট পেতে, গ্রাহক হয়ে যান এখনই!